BREAKING NEWS

৫ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ১৯ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

রাজ্যের পাঁচ জেলায় বিদ্যুৎ পরিষেবা বিপর্যস্ত, জানালেন মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: May 22, 2020 7:59 pm|    Updated: May 22, 2020 7:59 pm

Power supply collapsed in 5 amphan hit districts, says Sovandeb Chatterjee

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঘূর্ণিঝড় আমফানে বিধ্বস্ত বাংলা। বিপর্যস্ত বিদ্যুৎ, জল, মোবাইল নেটওয়ার্ক পরিষেবা। ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বিদ্যুতের। রাজ্য বিদ্যুৎ দপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ঘূর্ণিঝড়ের দাপটে রাজ্যের ৬০ শতাংশ সাবস্টেশন বিপর্যস্ত। পাঁচটি জেলায় বিদ্যুৎ পরিষেবা নেই বললেই চলে। কলকাতা, দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া ও হুগলি, এই পাঁচ জেলায় বিদ্যুৎ পরিষেবা বিপর্যস্ত। নদিয়া, দুই মেদিনীপুর, মালদা, বীরভূম-সহ একাধিক জেলায় আংশিক পরিষেবা ব্যাহত।

আমফানের বিপর্যয়ের ৪৮ ঘণ্টা অতিক্রান্ত। কিন্তু এখনও রাজ্যের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে স্বাভাবিক হয়নি বিদ্যুৎ পরিষেবা। শুক্রবার রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, বিপর্যস্ত এলাকার ২৩৫টি সাবস্টেশন ক্ষতিগ্রস্ত। তার মধ্যে ১৪৯টি সক্রিয় করতে পেরেছে বিদ্যুৎ বিভাগ। কলকাতা, দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া ও হুগলি, এই পাঁচ জেলায় বিদ্যুৎ পরিষেবা বিপর্যস্ত। নদিয়া, দুই মেদিনীপুর, মালদা, বীরভূম-সহ একাধিক জেলায় আংশিক পরিষেবা ব্যাহত বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: ‘সাতদিন সময় দিন, কলকাতাকে সচল করে দেব’, আশ্বস্ত করলেন পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ]

তিনি আরও জানিয়েছেন, রাজ্যের ১ কোটি গ্রাহকের বাড়িতে পরিষেবা ব্যাহত হয়েছে। তবে যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতে রাজ্য বিদ্যুৎদপ্তরের ১৫-২০ হাজার কর্মী পরিষেবা সচল রাখার চেষ্টায় লেগে রয়েছেন। এদিকে, ৪৮ ঘণ্টা পরেও কলকাতার বিস্তীর্ণ এলাকা এখনও বিদ্যুৎ ও পানীয় জলহীন। দুর্ভোগে দিশেহারা একটা বড় অংশের শহরবাসী। ক্ষোভের জেরে শুক্রবার বাইপাস, বেহালা, তপসিয়ায় রাস্তা অবরোধ করেন তাঁরা। শহরবাসীর অভিযোগ, সিইএসসির টিম ঢিমেতালে কাজ করছে।

পুরসভা গাছ সরাচ্ছে না, এই অভিযোগে তারা বিদ্যুৎ দিচ্ছে না। বারবার ফোন করলেও সিইএসসি সাড়া দিচ্ছে না। ফলে কলকাতার বিস্তীর্ণ এলাকা বিদ্যুৎহীন। কলকাতার বিদ্যুৎ পরিস্থিতি নিয়ে সিইএসই’র সঙ্গে বৈঠকে বসেন বিদ্যুৎমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: আমফানের তাণ্ডবের ৪৮ ঘণ্টা পরেও বিদ্যুৎহীন বিস্তীর্ণ কলকাতা, বিক্ষোভ শহরবাসীর]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে