৩ শ্রাবণ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

কল্যাণ চন্দ, বহরমপুর: এনআরএসে জুনিয়র ডাক্তারদের উপর হামলার ঘটনায় চিকিৎসা পরিষেবা থমকে যাওয়া এখনও জ্বলন্ত সমস্যা। এরই মাঝে রোগী মৃত্যু নিয়ে নতুন করে ধুন্ধুমার মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। শনিবার দুপুরে এই রোগী মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতালের ডাক্তার ও নার্সদের ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান রোগীর আত্মীয়রা। পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তপ্ত হতে থাকে। শেষ পর্যন্ত তা স্বাভাবিক করতে পুলিশকে ঘটনাস্থলে যেতে হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত রোগী চাঁদনি বিবি। বয়স ৪৫ বছর। মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুর থানার নওপাড়া এলাকায় তাঁর বাড়ি। শ্বাসকষ্ট নিয়ে দুপুর ১২টা নাগাদ তাঁকে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের মহিলা বিভাগে ভরতি হন। হাসপাতাল সূত্রে দাবি করা হয়েছে, ভরতির সঙ্গে সঙ্গেই চিকিৎসা শুরু হয়েছে। তা সত্ত্বেও দেড়টা নাগাদ সময় চাঁদনির মৃত্যু হয়।

[ আরও পড়ুন: কর্মবিরতির জের, মেদিনীপুর মেডিক্যালে বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু সদ্যোজাতর ]

এরপরই ছড়িয়ে পড়ে উত্তেজনা। অভিযোগ,ঠিক সময়ে রোগীকে অক্সিজেন দেওয়া হয়নি৷ তাতেই মৃত্যু হয়েছে তাঁর। চাঁদনির স্বামী হাসান শেখের অভিযোগ, ঠিক সময়ে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা হয়নি তাঁর স্ত্রী’র। তা হলে স্ত্রীকে এভাবে হারাতে হত না বলেও দাবি হাসান শেখের৷ ঘটনার পর হাসপাতাল চত্বরে ছড়িয়ে পড়ে উত্তেজনা। মৃতার আত্মীয়দের সঙ্গে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তুমুল বচসা হয়। পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তপ্ত হতে থাকে। ঘটনাস্থলে থাকা কর্তব্যরত নার্স ও ডাক্তারদের ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে রোগীর পরিজনরা। হাসপাতালে ধুন্ধুমার শুরু করেন তাঁরা৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে হাসপাতালে ডাকা হয় পুলিশ।

পুলিশের উপস্থিতিতে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা অবশ্য ঘটেনি। কিন্তু পরিস্থিতি এখনও স্বাভাবিক হয়নি। কীভাবে চাঁদনির মৃত্যু হয়েছে, তা ময়নাতদন্তেই পরিষ্কার হবে বলে পরিবারের সদস্যদের জানানো হয় হাসপাতালের তরফে৷ কিন্তু মৃতার আত্মীয়রা দেহ ময়নাতদন্তে পাঠাতে রাজি হননি। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে এখনও হাসপাতালে মোতায়েন রয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী।

[ আরও পড়ুন: সন্দেশখালি কাণ্ডে গ্রেপ্তার মূল অভিযুক্ত-সহ ৪, বাকিদের খোঁজে জারি তল্লাশি ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং