BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মন্ত্রিত্বের তাসেই ভরসা, পুরুলিয়া জয়ে মরিয়া গেরুয়া শিবির

Published by: Tanujit Das |    Posted: April 12, 2019 9:55 am|    Updated: April 23, 2019 6:03 pm

An Images

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: ‘‘আমাদের আশা জ্যোতির্ময় এই আসন থেকে জিতলেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হবেন। মোদিজির মন্ত্রিসভার সদস্য করা হবে তাঁকে। স্বাধীনতার পর এই প্রথম পুরুলিয়া কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পাবে।” বৃহস্পতিবার পুরুলিয়ার এক নম্বর ব্লকের লাগদা গ্রামে দলীয় প্রার্থী জ্যোতির্ময় সিং মাহাতোর প্রচারে গিয়ে এমনই জানালেন দলের রাজ্য সহ–সভাপতি বিশ্বপ্রিয় রায়চৌধুরি৷ নির্বাচনের আগেই প্রার্থী কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হচ্ছেন বলে ঘোষণা করায় স্বভাবতই জোর জল্পনা শুরু হয়েছে জেলার রাজনৈতিক মহলে৷ একাংশের মতে এর থেকেই স্পষ্ট যে, এবার জঙ্গলমহলের পুরুলিয়া লোকসভা আসনটি জিততে কতটা মরিয়া বিজেপি৷ এবং সেকারণেই তাদের সেরা বাজি, কেন্দ্রীয় মন্ত্রিত্বের তাসকে ব্যবহার করছে গেরুয়া শিবির৷

[ আরও পড়ুন: শিশুর পেটে ‘শিশু’! বিরল, জটিল অস্ত্রোপচারে সাফল্য বর্ধমানের চিকিৎসকদের  ]

যদিও অনেকে বলছেন, আগেই কানাঘুষো শোনা যাচ্ছিল যে জিতলে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হতে পারেন জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো৷ তবে এবার রাজ্য বিজেপির সহ-সভাপতির মুখেও সেকথা শুনে রীতিমতো আবেগে ভেসে যান জেলা বিজেপির নেতা-কর্মীরা। আর সেই আবেগ-উচ্ছ্বাসেই বৃহস্পতিবার ব্যান্ডপার্টির বাজনার তালে তালে জমজমাট ভোটপ্রচার চলে গোটা এলাকাজুড়ে। এদিন লাগাদা গ্রামে বিজেপি প্রার্থীর প্রচারে ঢল নামে সাধারণ মানুষের। চৈত্রের কড়া রোদকে কার্যত উপেক্ষা করেই ভরদুপুরে প্রচারে রাস্তায় নামেন মানুষ। নিজের জয়ের বিষয়ে একশো শতাংশ আশাবাদী বলে জানান প্রার্থী জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো৷ তিনি বলেন, ‘‘ আমি দু’লাখ ভোটে জিতব।’’

জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো বিজেপির শুধু সাংগঠনিক নেতাই নন, তিনি আরএসএসের ছাত্র সংগঠন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের নেতাও ছিলেন। সেই সুবাদে বাংলার জঙ্গলমহল, ঝাড়খণ্ড ও ওড়িশায় কাজ করেছেন দীর্ঘদিন। এবং সেখানের মানুষের সঙ্গে তাঁর পরিচিতিও রয়েছে৷ তবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিত্ব নিয়ে এখনই কিছু ভাবতে চাইছেন না বছর তেত্রিশের জ্যোতির্ময়। ভোটপ্রচারে তিনি বলেন, “এই জেলায় সমগ্র যুব সমাজ আমাদের সঙ্গে রয়েছে। ফলে ওই যুবরা ও দলীয় সংগঠন আমার বিপুল জয় নিশ্চিত করবে। পুরুলিয়ার আসনটি যে বিজেপি জিতছে, সেই বিষয়ে আর কোন সন্দেহ নেই। দ্বিতীয় স্থানের জন্য লড়াই করবেন বিরোধীরা৷ এবং শাসকদল তৃণমূল এই কেন্দ্রে তিনেও চলে যেতে পারে।”

[ আরও পড়ুন: চুরি যাচ্ছে সুর, বিজেপির বিরুদ্ধে নতুন করে স্লোগানে শান বামেদের ]

জানা গিয়েছে, ধানবাদ-জামশেদপুর ৩২ নম্বর জাতীয় সড়কে লাগদা চার মাইল থেকে প্রচার শুরু করেন বিজেপি প্রার্থী। দলের নেতা, কর্মী–সমর্থকদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষও বিজেপির পতাকা নিয়ে তাঁকে স্বাগত জানান। কেবল তাই নয় ‘ছাত্র’ জ্যোতির্ময় ভোটপ্রচারে আসবেন শুনে, সেখানে উপস্থিত হন জারগো হাইস্কুলের শিক্ষক হিমাংশু বাউরিও৷ প্রাক্তন ছাত্রের সঙ্গে দেখা করে তাঁকে জয়ের আগাম শুভেচ্ছা ও আশীর্বাদ জানান তিনি। এদিনের বাড়ি বাড়ি প্রচারে বেরিয়ে সাধারণ মানুষের পা ছুঁয়ে প্রনাম করতে দেখা যায় বিজেপি প্রার্থীকে৷ সঙ্গে তরুণদের সঙ্গে চলছে সেলফি তোলার পর্বও। সূত্রের খবর, শুক্রবার তৃণমূলের খাসতালুক কাশীপুরে ভোটপ্রচারে যাবেন বিজেপি প্রার্থী জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো।

ছবি: সুনীতা সিং

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement