BREAKING NEWS

০৫ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  শুক্রবার ২০ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

চুরি যাচ্ছে সুর, বিজেপির বিরুদ্ধে নতুন করে স্লোগানে শান বামেদের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 11, 2019 9:44 pm|    Updated: April 12, 2019 10:00 am

Left youth making new anti-BJP slogans ahead of election in Burdawn

চন্দ্রশেখর চট্টোপাধ্যায়, আসানসোল: তাঁদের হাত ধরেই তৈরি হয়েছিল উদ্দীপনাময় সব স্লোগান – ‘এই তৃণমূল আর না’ কিংবা  ‘এই বিজেপি আর না’।  কিন্তু সেই স্লোগান চুরি করে বিজেপি থিম সং তৈরি করে৷ ঘাসফুল শিবিরেও তৈরি হয়ে গেছে একই স্টাইলে রিদমিক স্লোগান।  এবার আক্রমণের ধার একই রেখে কথা এদিক-ওদিক করে নতুন স্লোগান তৈরি করল বামপন্থী ছাত্র ও যুব সংগঠন৷

[ আরও পড়ুন: মূর্তি ছেড়ে গ্রেনেড! মডেল অস্ত্র তৈরিতে ব্যস্ত কাটোয়ার ডোকরা শিল্পীরা]

নতুন স্লোগান সোশ্যাল মিডিয়ায় আসার পর বেশি জনপ্রিয় হতে শুরু করেছে – “তা হলে কাকা লাভ কার ? / চুরি করেছে চৌকিদার”। নরেন্দ্র মোদিকে টার্গেট করা হয়েছে নতুন স্লোগানে।  ‘চৌকিদার’ থাকা সত্ত্বেও ললিত মোদি বা বিজয় মালিয়ার বিদেশ পালিয়ে যাওয়া নিয়ে কটাক্ষ করা হয়েছে এখানে।  ভোটের আগে পনেরো লাখ, ভোটের পর জাতপাত – এই সুরে নিয়ে তীব্র আক্রমণ শানিয়েছে বামেরা।  আচ্ছে দিন থেকে নোটবন্দি,গ্যাসের দাম- সব তুলে ধরা হয়েছে এখানে। সিপিএমের নির্বাচনী প্রচারে মূলত ছাত্র ও যুবরা এই স্লোগানকে সামনে নিয়ে আসছেন। আসানসোলে সিপিএম প্রার্থী গৌরাঙ্গ চট্টোপাধ্যায়ের প্রচারে বারবার শোনা গিয়েছে নতুন স্লোগান।  মুকুল রায়ের দলবদল নিয়ে তৈরি স্লোগানে শোনা যাচ্ছে- ‘ঘাসফুলের মধু চুষে, মুকুল এখন পদ্মে বসে!’ অথবা ‘তাহলে কাকা লাভ কার? চুরি করেছে, চুরি করেছে চৌকিদার।’ আবার সাম্প্রতিক ইস্যু রাফালে নথি উধাও প্রসঙ্গে বামেদের তীব্র কটাক্ষ- ‘কানা মোদি কাকা, রাফাল নথি ফাঁকা!’

বামেদের কৃষকমিছিলে রিয়া মাইতি নামে এক এসএফআই নেত্রীর কন্ঠে আগে স্লোগান সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ ভাইরাল হয়েছিল। ‘সিঙ্গুর থেকে শালবনি, খেতমজুরে কান্না শুনি’, ‘এই তৃণমূল আর না’ বা ‘এই বিজেপির অনেক গুণ, ধর্মের নামে মানুষ খুন – এই বিজেপি আর না’ সাম্প্রতিক সময়ে বেশ তোলপাড় ফেলে দিয়েছেন রাজনৈতিক প্রচার ময়দানে৷

[আরও পড়ুন: ভোট লুঠে সহযোগী পুলিশদের সাসপেন্ড করুক কমিশন, দাবি রাহুল সিনহার]

এই একই সুরে বিজেপির হয়ে গান তৈরি করেছিলেন বাবুল সুপ্রিয় এবং তৃণমূলের স্লোগানেও এর প্রতিফলন দেখা গিয়েছে৷ তাই এবার ধারা বদল করে দিলেন বাম ছাত্র, যুবরা।  কুলটি আঞ্চলিক কমিটির সদস্য তথা ভারতীয় গণনাট্য সংঘের বার্ণিক নাট্যগোষ্ঠীর সভাপতি কিংশুক মুখোপাধ্যায় বলেন,‘ ১৯৭৫ থেকে ১৯৭৭ পর্যন্ত, ২১ মাস এমার্জেন্সির পরের নির্বাচনী প্রচারে দেশের বাম দলগুলি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীকে ব্যঙ্গচিত্রে ব্যবহার করেছিল। তৈরি হয়েছিল নতুন ধারার স্লোগান।  বাংলার রাজনীতিতে বামেদের হাত ধরেই উঠে এসেছে এই নতুন ধারা। এবারও তাই হচ্ছে৷’ এতগুলো বছর ধরে রাজনীতির জগতে স্লোগানের রকমফের হয়েছে বহু৷ তার মধ্যে কিছু কিছু চিরস্থায়ীও হয়েছে৷ সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচন ঘিরেও নতুন নতুন স্লোগান তৈরি অব্যাহত।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে