BREAKING NEWS

১৩ মাঘ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

‘বড়মাকে খুন করেছেন জ্যোতিপ্রিয়’, বিস্ফোরক অভিযোগ শান্তনু ঠাকুরের

Published by: Sayani Sen |    Posted: March 10, 2019 9:44 am|    Updated: March 10, 2019 9:44 am

Shantanu Thakur slams Jyotipriyo Mallick

নিজস্ব সংবাদদাতা, বনগাঁ: বড়মার মৃত্যুর পর থেকে ঠাকুর পরিবারের অলিন্দে অশান্তির আবহ৷ বীণাপাণি দেবীকে খুন করা হয়েছে বলে আগেই সুর চড়িয়েছিলেন তাঁর নাতি শান্তনু ঠাকুর৷ এবার সরাসরি এই প্রসঙ্গে সরাসরি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুললেন তিনি৷ তাঁর অভিযোগ, ঠাকুর বাড়িতে বড়মার চিতাভস্ম নিয়ে রাজনীতি করছেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক৷ শান্তনু ক্ষোভ উগড়ে দিলেন বড়মার পুত্রবধূ মমতাবালা ঠাকুরের বিরুদ্ধেও৷

[কমলালেবু থেকে সাপের বিষের প্রতিষেধক, গবেষণায় মিলল সাফল্য]

বেশ কয়েকদিন ধরে বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন শতায়ু বড়মা৷ এসএসকেএমে ভরতি থাকাকালীন গত ৫ মার্চ মারা যান মতুয়া মহাসংঘের প্রধান উপদেষ্টা৷ ৭ মার্চ ঠাকুরনগরের বাড়িতেই পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষকৃত্য সম্পন্ন হয় তাঁর৷ বীণাপাণি দেবীর অবর্তমানে কে হবেন মতুয়া মহাসংঘের প্রধান উপদেষ্টা তা নিয়েই চলছে টানাপোড়েন৷ যদিও রীতি অনুযায়ী মহাসংঘের প্রধান উপদেষ্টার পদ একদিনও ফাঁকা রাখা যায় না৷ তাই দফায় দফায় বৈঠকের পর মহাসংঘের তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে আপাতত প্রধান উপদেষ্টা হিসাবে দায়িত্ব সামলাবেন প্রয়াত বড়মার পুত্রবধূ মমতাবালা ঠাকুর৷ আর এই ঘোষণাকে কেন্দ্র করেই দানা বেঁধেছে বিতর্ক৷ বড়মার নাতি শান্তনু ঠাকুরের দাবি, তিনি তাঁর জেঠিমা মমতাবালাকে প্রধান উপদেষ্টা হিসাবে মানেন না৷ মহাসংঘের প্রধান উপদেষ্টা হিসাবে তিনি বড়মার বড় ছেলে প্রয়াত কপিলকৃষ্ণের প্রথম পক্ষের স্ত্রী অমলা ঠাকুরের নাম ঘোষণা করেন৷ শান্তনুর যুক্তি, হিন্দু ধর্মাবলম্বী কোনও ব্যক্তির একজন স্ত্রী থাকাই বাঞ্ছনীয়৷ কপিলকৃষ্ণের প্রথম পক্ষের স্ত্রী অমলা৷ তাই তিনিই মহাসংঘের প্রধান উপদেষ্টার দায়িত্ব সামলানোর যোগ্য৷

[মমতাবালা নাকি অমলা, কে হবেন মতুয়া মহাসংঘের প্রধান উপদেষ্টা? শান্তনুর ঘোষণায় বিতর্ক]

কপিলকৃষ্ণের দ্বিতীয় পক্ষের স্ত্রী মমতাবালা ঠাকুর৷ যতদিন যাচ্ছে ততই তাঁর প্রতি ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটছে শান্তনুর৷ তাঁর অভিযোগ, রাজনৈতিক উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতেই আপাতত মতুয়া মহাসংঘের প্রধান উপদেষ্টার মতো গুরুদায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছে মমতাবালা ঠাকুরের কাঁধে৷ জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বড়মার চিতাভস্ম নিয়ে রাজনীতি করছেন৷ সম্পত্তির জন্য বড়মাকে অত্যাচার করা হত বলেও অভিযোগ তাঁর৷ এছাড়াও শান্তনুর বিস্ফোরক অভিযোগ, কপিলকৃষ্ণের মতো জ্যোতিপ্রিয়ই পরিকল্পনামাফিক বড়মাকে খুন করেছেন৷ এর পালটা জবাবে যদিও একটিও শব্দ খরচ করেননি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক৷ তিনি বলেন, ‘‘বড়মা তাঁর পুত্রবধূ মমতাবালা ঠাকুরকে উইল করে তাঁর সবকিছু দিয়ে গিয়েছেন৷ ওই উইল আগামী ১৮ মার্চ সামনে আনা হবে৷’’ যদিও এই উইল তিনি মানেন না বলেই দাবি শান্তনুর৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে