Advertisement
Advertisement
Shootout

দোকানে ঢুকে এলোপাথাড়ি গুলি! রায়গঞ্জে ব্যবসায়ী খুনে তীব্র চাঞ্চল্য

মাত্র ৫ দিন আগেই মৃত লালুয়া শেখের মেয়ের বিয়ে হয়েছিল।

Shootout at a village in Raiganj last night, shop owner killed | Sangbad Pratidin

প্রতীকী ছবি।

Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:December 4, 2023 9:40 am
  • Updated:December 4, 2023 9:42 am

শংকরকুমার রায়, রায়গঞ্জ: দোকানের ভিতরে ঢুকে ব্যবসায়ীকে গুলিতে ঝাঁজরা করে দিল দুষ্কৃতীরা। হাড়হিম করা ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার রাতে উত্তর দিনাজপুরের (North Dinajpur) রায়গঞ্জের ভুলকাই গ্রামে। গুলির আওয়াজ পেয়ে গ্রামবাসীরা ছুটে যান। ব্যবসায়ীকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে দ্রুত রায়গঞ্জ মেডিক্যাল হাসপাতালে পৌঁছলে চিকিৎসক মৃত (Death) বলে ঘোষণা করেন। নিহতের নাম লালুয়া শেখ, বয়স ৫৫ বছর।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দিন চারেক আগে ভুলকাইয়ে খাস জমি দখল করে ‘যুব সংঘ’ নামে একটি ক্লাবের বোর্ড লাগাতে বাধা দেন লালুয়া শেখ। তার জেরে স্থানীয় সুলেমান হকের সঙ্গে তাঁর গোলমাল বাঁধে, সামান্য ধাক্কাধাক্কিও হয় দুজনের মধ্যে। অভিযোগ সেসময়ই ওই ব্যবসায়ীকে প্রকাশ্যে গুলি করে খুনের হুমকি (Death Threat) দিয়েছিল সুলেমান হক। এর পর রবিবার রাত দশটা নাগাদ দোকানে ঢুকে লালুয়া শেখের পিঠ লক্ষ্য করে গুলি চালায় দুষ্কৃতীরা। মৃত্যু হয় তাঁর। পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, সুলেমান হকের নেতৃত্বেই খুনের ঘটনা ঘটেছে।

Advertisement

[আরও পড়ুন: হারানো কেন্দ্র ফিরে পেতে ২১ সাংসদকে বিধানসভার টিকিট, কতটা কাজে লাগল BJP-র কৌশল?]

ভুলকাই গ্রামে রাতের বেলা এমন খুনের ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই মেডিক্যাল কলেজে ভিড় জমান গ্রামের লোকজন। খবর পেয়ে মাত্র পাঁচদিন আগে বিয়ে হওয়া মেয়ে নারজুমা বিবি শ্বশুরবাড়ি থেকে পৌঁছে যান রায়গঞ্জ হাসপাতালে। কাঁদতে কাঁদতে তিনি বলেন, “বাবা কোনও দল করতেন না। একটা ক্লাবের নাম লেখা একটি বোর্ড ঝুলানো নিয়ে সুলেমান হক নামে এক বাসিন্দার সঙ্গে তিনদিন আগে গোলমাল হয়। সরকারি জমি দখল করে ক্লাবের বোর্ড ঝুলাতে চেয়েছিল। বাবা বাধা দেওয়ায় বাবার পিঠের মেরুদন্ডে গুলি করে দুই দুষ্কৃতীরা। পিঠে গুলিবিদ্ধ হয়ে দোকানেই রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে যায়। তার কিছুক্ষণের মৃত্যু হয় ওই ব্যবসায়ীর।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ডাইনে কান্তি, বামে বিকাশ, মঞ্চের মধ্যমণি বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়]

স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য তৃণমূলের জুইনুল হক বলেন,” তিনদিন আগে একটি ক্লাবের নাম লেখা বোর্ড ঝুলানো নিয়ে গোলমালে একটু ধাক্কাধাক্কি হয়েছিল। তখনই খুনের ছক হয়ে যায় বলে জানা যায়। তাই কয়েকজন বিচারের জন্য আমাকে সালিশিসভার আয়োজন কর‍তে হয়।” পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ