BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ধারে বিড়ি দিতে নারাজ, ব্যবসায়ীকে পুড়িয়ে মারল প্রতিবেশী!

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: June 1, 2019 4:57 pm|    Updated: June 1, 2019 4:57 pm

An Images

বাবলু হক, মালদহ: টাকা ছিল না, তাই দোকানে গিয়ে ধারে বিড়ি চেয়েছিলেন এক ব্যক্তি। কিন্তু তা দিতে রাজি হননি দোকানদার। এর পরিণতি হল ভয়ংকর। ধারে বিড়ি না দেওয়ায় ব্যবসায়ী ও তাঁর স্ত্রীকে পুড়িয়ে খুনের অভিযোগ উঠল প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের রতুয়ায়। ঘটনার পর থেকেই পলাতক অভিযুক্ত।

[আরও পড়ুন:  তৃণমূল কর্মীর খামার বাড়িতে বিস্ফোরণ, চাঞ্চল্য কাঁকড়তলায়]

মালদহের রতুয়ার বাহারাল পঞ্চায়েতের পরাণপুরের বাসিন্দা মহম্মদ কুসুমুদ্দিন। তাঁর বাড়িতেই একটি মুদি দোকান রয়েছে। জানা গিয়েছে, শুক্রবার রাতে সেই দোকানেই ছিলেন কুসুমুদ্দিন। সেই সময় প্রতিবেশী জাইলুন মিঞা তাঁর দোকানে যায়। সঙ্গে টাকা না থাকায় ধারে বিড়ি চান ওই ব্যক্তি। কিন্তু আগের প্রচুর টাকা বাকি থাকায় আর ধার দিতে রাজি হননি কুসুমুদ্দিন। এই নিয়ে শুক্রবার রাতে বচসা শুরু হয় কুসুমুদ্দিন ও জাইলুনের মধ্যে। প্রতিবেশীরা বিষয়টি টের পেয়ে সেই সময়ের মতো বচসা মিটিয়েও দেয়। এরপর বাড়ি ফিরে যায় জাইলুন মিঞা।  

[আরও পড়ুন: গরম থেকে মিলতে পারে স্বস্তি, সপ্তাহান্তে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির পূর্বাভাস হাওয়া অফিসের]

প্রতিদিনের মতো এদিন রাতেও বাড়ির বারান্দায় ঘুমোচ্ছিলেন কুসুমুদ্দিন (৬০) ও তাঁর স্ত্রী মহেলা বিবি (৫৫)। অভিযোগ, সেই সময় ফের জাইলুন মিঞা কুসুমুদ্দিনের বাড়িতে যায়। অভিযোগ, রাতের অন্ধকারে ওই ব্যবসায়ী ও তাঁর স্ত্রীর গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় জাইনুল। অগ্নিদগ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় মহেলা বিবির। আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয়রা কুসুমুদ্দিনকে উদ্ধার করে মালদহ মেডিক্যাল কলেজে ভরতি করেন। সেখানে মৃত্যু হয় ওই ব্যক্তির। জানা গিয়েছে, মৃত্যুর আগে পরিবারের লোকের কাছে গোটা ঘটনাটি জানিয়েছিলেন কুসুমুদ্দিন। তাঁর দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতেই অভিযুক্তের বিরুদ্ধে রতুয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে মৃতের পরিবার। যদিও এখনও খোঁজ মেলেনি অভিযুক্তের। দ্রুত অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিয়েছেন তদন্তকারী আধিকারিকরা।      

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement