BREAKING NEWS

৭  আশ্বিন  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘শুভেন্দুর প্রার্থী’কে ভোট দেওয়ার আরজি, তৃণমূল নেতাকে ফোন শিশির অধিকারীর! ভাইরাল অডিও

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: February 26, 2022 8:24 pm|    Updated: February 26, 2022 8:55 pm

Sisir Adhikary calls TMC leader to vote for 'Suvendu's candidate', audio goes viral | Sangbad Pratidin

রঞ্জন মহাপাত্র, কাঁথি: ছেলের দাঁড় করানো প্রার্থীকে ভোট দিয়ে জেতান। তৃণমূল (TMC) নেতাদের ফোন করে এমনই ‘আবদার’ করছেন কাঁথির বর্ষীয়ান সাংসদ শিশির অধিকারী (Sisir Adhikary)। পুরভোটের আগেরদিন শিশির অধিকারীর এই টেলিফোনিক কথোপকথনের অডিও ভাইরাল। তা ঘিরে শোরগোল পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথিতে। রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikary)বাবার এই অডিওর পালটা দিয়েছেন তৃণমূল নেতৃত্বও।

শনিবার আচমকাই শিশির অধিকারীর একটি অডিও সামনে আসে। তা শুনে বোঝা যায়, এক তৃণমূল নেতাকে তিনি ফোন করে বিজেপি প্রার্থীকে ভোট দেওয়ার কথা বলছেন। বলছেন, ”ছেলে ফোন করতে বলেছিল আপনাকে, ওর প্রার্থীকে একটু দেখে নেবেন।” বর্ষীয়ান সাংসদের এই কথা শুনে ওই তৃণমূল নেতা জানতে চান, কার কথা বলতে চাইছেন তিনি। তখন শিশির অধিকারী উত্তর দেন, শুভেন্দুর প্রার্থী অর্থাৎ বিজেপি প্রার্থী। এরপর তিনি আরও বলেন, ”কে চোর-ডাকাত, তা তো বুঝেই গিয়েছেন। শুভেন্দুর প্রার্থীকে একটু দেখে নিন এবার।” তাঁর বক্তব্য শুনে কার্যত থ’ বনে যান ওই নেতা। তিনি পালটা বলেন, ”আপনি নিজে সাংসদ পদ ছেড়ে মাঠে নেমে বিজেপির হয়ে কাজ করলে তৃণমূলের জেতা শক্ত হত।” তাতে সাংসদের উত্তর ছিল, ”তৃণমূল আর থাকবে না”।

[আরও পডুন: পুতিনই একদিন বিশ্বের শাসক হবেন! এমনই বলে গিয়েছিলেন রহস্যময় ভবিষ্যৎদ্রষ্টা বাবা ভাঙ্গা]

এই কথোপকথনের ভিডিও ভাইরাল (Viral) হতেই শোরগোল পড়ে যায় স্থানীয় রাজনৈতিক মহলে। রবিবারই রাজ্যের ১০৮ পুরসভার ভোট (WB Civic Polls 2022)। তার ঠিক আগের দিন শিশির অধিকারীর এই ফোনালাপ ছড়িয়ে পড়া নিয়ে সমালোচনা তুঙ্গে। তৃণমূল বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী অখিল গিরির বক্তব্য, ”উনি অনেক আগে থেকেই অনেককে ফোন করে এরকম বলছেন অর্থাৎ বিজেপির হয়ে প্রচার করছেন। আর চোর-ডাকাত বলে কাদের বোঝাচ্ছেন? ভোটের ফলাফলেই সব বোঝা যাবে, মানুষ কাকে ভরসা করে।”

এনিয়ে বিজেপির (BJP)নির্বাচনী কমিটির সদস্য কণিষ্ক পন্ডা বলেন, ”ভোটের আগে বাজার গরম করতে তৃণমূল বর্ষীয়ান সাংসদের নামে অপপ্রচার করছে। এই কাজগুলো কোন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের হতে পারেনা। তাছাড়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিভিন্ন সভায় প্রকাশ্যে দলীয় নেতাদের কাটমানি কম খাওয়ার কথা বলেন। তার মানে ওই দলের নেতাদের অস্তিত্ব কি বাংলার মানুষ জেনে গিয়েছেন? পাশাপাশি কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়, মদন মিত্ররাও একই কথা বলছেন। তাহলে তৃণমূল সাংসদ শিশির অধিকারী তৃণমূল নেতাদের নিয়ে যা বলেছেন, তা তো খুব একটা খারাপ বলেননি।”

[আরও পডুন: রাষ্ট্রসংঘে কূটনৈতিকভাবে নিরপেক্ষ অবস্থান, ভারতের প্রশংসায় পঞ্চমুখ রাশিয়া]

প্রসঙ্গত, কাঁথির দীর্ঘদিনের তৃণমূল সাংসদ অধিকারী পরিবারের এই সদস্য। তিনি ঘাসফুল শিবিরের প্রতিনিধি। তবে গত বছর অমিত শাহর (Amit Shah) হাত ধরে শিবির বদলেছেন। যদিও দলবদল আইনে তাঁর রাজনৈতিক শিবির নিয়ে সংসদে জটিলতা চলছে। 

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে