BREAKING NEWS

২১ আষাঢ়  ১৪২৭  সোমবার ৬ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

ফের নৃশংসতার ছবি বাংলায়! এবার পশ্চিম মেদিনীপুরে পিটিয়ে মারা হল ৬টি ভাম বিড়ালকে

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: June 30, 2020 2:49 pm|    Updated: June 30, 2020 3:40 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের নৃশংসতার নজির গড়ল বাংলা। এবার মেদিনীপুরের সবংয়ে পিটিয়ে মারা হল ৬টি ভাম বিড়ালকে (Civet Cat)। একটি ভিডিওর মাধ্যমে গোটা ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই ক্ষোভে ফুঁসতে শুরু করেছেন পশুপ্রেমী সংগঠনের সদস্যরা। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ বনদপ্তরে।

সবংয়ের (Sabang) যে ভিডিওটি প্রকাশ্যে এসেছে সেখানে দেখা যাচ্ছে, একটি গাছের নিচে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে ৬টি ভাম বিড়ালের দেহ। সেগুলিকে অন্য জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য কেউ এনেছে জাল, কারও হাতে অন্য সামগ্রী। কারও চোখে-মুখে অনুশোচনার চিহ্নও নেই। কিন্তু কেন এই নৃশংস হত্যালীলা? নাহ, এ বিষয়ে স্পষ্টভাবে এখনও কিছুই জানা যায়নি। তবে সূত্র বলছে, আদিবাসী সম্প্রদায়ের যে যুবকরা এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত তারা নিয়মিত শিকার করে। মঙ্গলবার সকালে ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই তাদের বিরুদ্ধে বনদপ্তরে অভিযোগ দায়ের করে পশুপ্রেমী সংগঠন। কঠোরতম শাস্তির দাবিও জানান তাঁরা। ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সবংয়ের বাসিন্দারা। 

CIVET-CAT-2

[আরও পড়ুন: মেয়ের সম্মান বাঁচাতে গিয়ে খুন মা, বাগনানের ঘটনায় অভিযুক্তদের শাস্তি চেয়ে ডেপুটেশন এবিভিপির]

প্রসঙ্গত, ভামবিড়াল বা সিভেট ক্যাট হত্যা নিষিদ্ধ। ২০১৮ সালের ১৮ এপ্রিল শিকার বন্ধের আইন পাশ করে কলকাতা হাই কোর্ট। ভাম হত্যা করলে সাত বছর পর্যন্ত সশ্রম কারাদণ্ড ও সেই সঙ্গে ২৫ হাজার টাকা জরিমানারও বিধান রয়েছে। তা সত্ত্বেও ক্রমাগত ঘটে চলেছে একই ঘটনা। উল্লেখ্য, গত নভেম্বরে উত্তর ২৪ পরগনার পলতায় ভাম বিড়াল মেরে পিকনিক করার ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছিল। সেক্ষেত্রেও সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে জানাজানি হয়েছিল গোটা ঘটনা। জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল ২ জনকে। শিয়াল হত্যার ছবি ফেসবুকে পোস্ট করায় জেলে যেতে হয়েছিল এক পড়ুয়াকেও।

[আরও পড়ুন: ১০ দিন পর ধসে নিখোঁজ মহিলার দেহ উদ্ধার, ইসিএলের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফুঁসছে অন্ডাল]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement