BREAKING NEWS

২৮ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

প্রধানদের আর ভরসা নয়, রাজ্যের সব গ্রাম পঞ্চায়েতে এবার নোডাল অফিসার নিয়োগ

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: December 3, 2019 8:06 pm|    Updated: December 3, 2019 8:06 pm

An Images

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: গ্রাম পঞ্চায়েতের সামগ্রিক উন্নয়নে আর প্রধানদের ওপর ভরসা নয়। এবার রাজ্যের ৩,৩৪৪ গ্রাম পঞ্চায়েতেই ব্লক থেকে নোডাল অফিসার নিয়োগ করবে রাজ্য সরকার। তাঁরাই হবেন গ্রাম পঞ্চায়েতের মুখ। যেমন ভাবে জেলার প্রধান জেলাশাসক। কিংবা মহকুমা স্তরে মহকুমাশাসক বা ব্লকে বিডিও। বলা যায় ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের সর্বশেষ ধাপকেও আমলাতান্ত্রিক ব্যবস্থাপনার সঙ্গে যুক্ত করছে রাজ্য সরকার। গত ৩০ নভেম্বর রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা জেলায় জেলায় জেলাশাসকদের এই নির্দেশিকা পাঠান। রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, ব্লকের এক্সটেনশন অফিসারদেরকেই এই দায়িত্ব দেবেন বিডিও।

রাজ্যের এই নয়া পদক্ষেপে কার্যত ‘মডেল’ সেই পুরুলিয়াই। কারণ, জঙ্গলমহলের এই জেলা সম্প্রতি গ্রামে গিয়ে কাজ করার রাজ্যের নির্দেশিকাকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতেই এই কাজ করে। গত ৩০ নভেম্বরই ওই জেলার ১৭০টি গ্রাম পঞ্চায়েতের নোডাল অফিসারকে জেলা প্রশাসন এক ছাতার তলায় বৈঠকে ডেকে এই কাজ করার জন্য ১৭ দফা অ্যাসাইনমেন্ট দেয়। ঘটনাচক্রে সেই দিনই মুখ্যসচিবের নির্দেশ যায় জেলাশাসকদের কাছে। পুরুলিয়ার জেলাশাসক রাহুল মজুমদার বলেন, “গ্রাম পঞ্চায়েতের দায়িত্বপ্রাপ্ত নোডাল অফিসাররা এই জেলায় কিভাবে কাজ করবেন তা আমরা ফি মাসে পৃথক নির্দেশিকা দিয়ে তাদের জানিয়ে দেব। ডিসেম্বর মাসে যেমন ১৭ দফা কাজের তালিকা দেওয়া হয়েছে।”

[আরও পড়ুন: সদ্যোজাত কন্যার দেহ অজয় নদের চরে পুঁততে গিয়ে ধৃত বাবা]

গত জুন মাস থেকে শুরু হওয়া এই জেলার ‘গো টু ভিলেজ’ কর্মসূচিকেও অন্যান্য জেলায় রূপায়ণ করার জন্য ‘স্ট্রেংদেনিং দি গ্রাসরুটস রিচ’ নামে গ্রামে গিয়ে কাজ করার জন্য নির্দেশ দেয় রাজ্য। এবার সেই কাজেরই অঙ্গ হিসাবে গ্রাম পঞ্চায়েত স্তরে এই নোডাল অফিসার নিয়োগ হচ্ছে। মুখ্যসচিবের দেওয়া নির্দেশিকায় সর্বশেষ তথা চার নম্বর পয়েন্টে এই নির্দেশ রয়েছে। ব্লক বা বিডিও থেকে নিযুক্ত এই নোডাল অফিসার গ্রাম পঞ্চায়েত স্তরে কিভাবে কাজ করবেন সেই বিষয়টিও আছে ওই নির্দেশিকায়। অর্থাৎ এই নোডাল অফিসারদের কাছ থেকেই সংশ্লিষ্ট হালহকিকত বুঝে নেবেন বিডিও বা জেলাশাসকরা।

দীর্ঘদিন ধরেই অভিযোগ আসছে জেলা থেকে ধারাবাহিকভাবে তদারকি করার পরেও গ্রাম পঞ্চায়েত স্তরে বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের সুযোগ–সুবিধা সঠিকভাবে আম জনতা তথা সংশ্লিষ্ট প্রাপকদের কাছে পৌঁছচ্ছে না। শুধু তাই নয় এই প্রকল্পের সহায়তা পেতে ‘কাটমানি’ দিতে হচ্ছে বলে অভিযোগ। তাই এইসব বেনিয়মে লাগাম টানতেই শুধু গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান, সচিব, এক্সিকিউটিভ অ্যাসিস্ট্যান্টদের ওপর ভরসা না রেখে পঞ্চায়েতে পঞ্চায়েতে এবার সরাসরি তদারকি করবেন ব্লক থেকে নিযুক্ত নোডাল অফিসাররা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement