BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আপ তিস্তা-তোর্সা এক্সপ্রেসে ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 2, 2016 2:11 pm|    Updated: June 2, 2016 2:41 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ:  ফের প্রশ্নের মুখে রেলের নিরাপত্তা৷ এবারে আপ তিস্তা-তোর্সা এক্সপ্রেসে এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠল৷ অভিযোগ ঘটনার প্রতিবাদ করায় সহ যাত্রীদেরও মারধর করা হয়৷ এর প্রতিবাদে বেশ কিছুক্ষণ মালদহ স্টেশনে বিক্ষোভ দেখান যাত্রীরা৷

বুধবার রাতে এনজেপিগামী তিস্তা-তোর্সা এক্সপ্রেসের এস-৬ কামরায় ওই ঘটনা ঘটে৷ মুর্শিদাবাদ জেলার খাগড়াঘাট স্টেশন থেকে তিন-চারজন যুবক ওই সংরক্ষিত কামরায় উঠে পড়ে৷ তাদের কাছে রিজার্ভেশনের বৈধ কোনও টিকিট ছিল না৷ তারা ট্রেনে উঠেই মহিলা যাত্রীদের সঙ্গে অভব্য আচরণ শুরু করে৷ ট্রেনের যাত্রী এক তরুণীর পাশে জোর করে গিয়ে বসে পড়ে তাঁর শ্লীলতাহানি করে বলে অভিযোগ৷ ওই তরুণী শিলিগুড়ি কলেজের ছাত্রী৷ শ্লীলতাহানির প্রতিবাদ করতে গিয়ে আরও অপমানের মুখে পড়েন তিনি৷ ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে ওই কামরায়৷

ঘটনায় প্রতিবাদ করেন এক শিক্ষক৷ তাঁর নাম শ্যামসুন্দর পাণ্ডে৷ তিনি জলপাইগুড়ির লাটাগুড়ি এলাকায় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক৷ অভিযুক্তরা৷ প্রত্যক্ষদর্শী যাত্রীরা জানিয়েছেন, ট্রেনের কামরা থেকেই যুবকরা মোবাইলে কয়েকটি ফোন করে এবং প্রতিবাদী শিক্ষককে দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়৷ এরপর ট্রেনটি মুর্শিদাবাদের নিমতিতা স্টেশনে এসে পৌঁছতেই আরও ১৫-২০ জন যুবক ট্রেনের ওই কামরায় উঠে পড়ে তাণ্ডব চালায়৷ অভিযুক্ত যুবকরা প্রতিবাদী শিক্ষককে চিনিয়ে দিতেই শুরু হয় মারধর৷ মেরে শিক্ষক শ্যামসুন্দর পাণ্ডের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়৷ ঘটনায় অন্য যাত্রীরাও প্রতিবাদ করেন৷ তাঁদের মধ্যে কয়েকজন মহিলাও ছিলেন৷ তাঁরাও দুষ্কৃতীদের হাতে লাঞ্ছিত হন বলে অভিযোগ৷ নিমতিতা থেকে ট্রেনটি ছাড়ার আগেই সব যুবক নেমে পালিয়ে যায়৷

এরপর ট্রেন মালদহ স্টেশনে পৌঁছলে প্লাটফর্মে নেমে বিক্ষোভ দেখান যাত্রীরা৷ অভিযোগ জানান হয় জিআরপিতে৷ অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন মালদহের জিআরপি-র আইসি কৃষ্ণগোপাল দত্ত৷বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য সামশেরগঞ্জ স্টেশনে অভিযোগ পাঠানো হবে বলে জানান তিনি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement