৭  আশ্বিন  ১৪২৯  রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

শ্রীরামপুরে চলন্ত ট্রেনে স্টান্ট! আতঙ্কিত মহিলা যাত্রীরা

Published by: Tanujit Das |    Posted: August 18, 2018 10:52 am|    Updated: August 19, 2018 12:22 pm

Stunt in the moving train in Sreerampore, passengers demanded punishment

সুব্রত বিশ্বাস: ‘দেখনা হ্যায় দেখিয়ে, নেহি তো আঁখ বন্ধ রাখিয়ে।’ এই ধমকি কোনও প্রশাসনিক কর্তার নয়। নিছক কয়েকজন তরুণের। সাদামাটা চেহারা হলেও রকস্টাইলে মোড়া আগাপাশতলা। ওদের কাজ চলন্ত ট্রেন থেকে ঝুঁকি নিয়ে নেমে নাচানাচি করে আবার দুরন্ত গতির ট্রেনে চড়ে যাওয়া। চলন্ত ট্রেনে এক দরজা থেকে অন্য অন্য দরজায় জানালার রড ধরে ঝুলে যাওয়াই তাদের কারসাজি। ওরা স্টান্টবাজ বলে নিজেদের পরিচয় দেয়। 

[জামাইয়ের সঙ্গে শাশুড়ির সম্পর্ক, সন্দেহে পরিবারকে তালাবন্দি করল শ্বশুর]

কয়েকদিন আগে ঠিক যেমনটা দেখা গিয়েছিল মুম্বইয়ের একটি স্টেশনে৷ তিন তরুণকে কিকি চ্যালেঞ্জে অংশ গ্রহণ করেছিল। সেই একই ধরনের স্টান্টবাজি চলছে এখানেও। এজন্য ট্রেনকে বেছে নেওয়া হয়েছে। আর তরুণদের এই স্টান্টবাজিতে আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন যাত্রীরা। বিশেষত মহিলা যাত্রীরা। বিপদের আশঙ্কা এড়াতে যাত্রীরা আরপিএফ ও জিআরপিকে নালিশ জানিয়েছেন। যদিও কোনওরকম প্রতিবাদ এখনও শুরু হয়নি। যাত্রীরা জানিয়েছেন, সকাল পৌনে ন’টা নাগাদ হাওড়াগামী ৩৭৮২৪ ট্রেনে শ্রীরামপুরে এই ঝুঁকির কসরত চলে। পিছনের দিকে ৩ ও ৪ নম্বর কামরা থেকে তরুণরা এই স্টান্টবাজি করে। মহিলা কামরার আগের কামরায় দু’দিকেই চলন্ত ট্রেনে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই খেলা করায় আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন মহিলারাই।

[ভাল চিকিৎসা পেতে নার্সিংহোমে চলুন! রোগীকে টোপ দিতে গিয়ে বর্ধমানে গ্রেপ্তার ২]

এরাজ্যে ট্রেনে এই ধরনের ঝুঁকির কসরত খুব না হলেও এখন শুরু হয়েছে অনেক জায়গায়। প্রশাসনিক স্তরে এই কসরত বন্ধ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়নি বলে রেল যাত্রীদের একাংশের অভিযোগ। তবে এই স্টান্টবাজি নিয়ে পদক্ষেপ নিয়েছে মুম্বইয়ের বসই রেল আদালত। ধৃত তিন তরুণকে সাজা দিয়েছে আদালত। মহামান্য আদালতের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তরুণরা বয়সে কম হলেও ভয়ানক খেলায় অংশ গ্রহণ করেছে৷ তাই রায়ে তিন দিন তাদের স্টেশন সাফাই করার নির্দেশ দেয় আদালত৷ বেলা ১১ থেকে দুটো এক ঘণ্টা বিশ্রাম করে আবার তিনটে থেকে পাঁচটা স্টেশন সাফাই করতে হবে। হাওড়ার রেল পুলিশ সুপার নীলাদ্রি চক্রবর্তী বিপজ্জনক এই খেলা বন্ধের সব ব্যবস্থা করবেন বলে জানান। এই বিপজ্জনক কসরত করতে গিয়ে বহু তরুণ মারাও যাচ্ছে, সোশ্যাল মিডিয়াতে এমন মৃত্যুর দৃশ্য বহু ক্ষেত্রেই ভাইরাল হলেও হুঁশ ফেরেনি তরুণ সমাজের। তাই যাত্রীদের দাবি, কড়া পদক্ষেপ নিক পুলিশ।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে