BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রাজ্যে পরিবহণ ব্যবস্থা হবে আরও ‘স্মার্ট’: শুভেন্দু

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: May 31, 2016 11:42 am|    Updated: May 31, 2016 11:43 am

An Images

নব্যেন্দু হাজরা: মন্ত্রী হিসাবে কাজে যোগ দেওয়ার প্রথম দিনই পরিবহণ ব্যবস্থায় আরও গতি আনার কথা বললেন পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী৷ জানিয়ে দিলেন, রাজ্যের পরিবহণ ব্যবস্থাকে আরও আধুনিক এবং স্বচ্ছভাবে ঢেলে সাজানো হবে৷ পাশাপাশি প্রশাসনিক ক্যালেন্ডার মেনে সবাইকে সময়ে কাজ শেষ করতে হবে৷ সোমবার দুপুরে পরিবহণ ভবনে এসে আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি৷ জানতে চান দফতরের হাল-হাকিকত৷ সেখানেই জোর দেন সময়ে কাজ শেষ করার বিষয়ে৷ একইসঙ্গে প্রপ্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে যাত্রী পরিষেবার এই মাধ্যমকে আরও ‘স্মার্ট’ করার কথা বলেন তিনি৷

এদিন দুপুর একটা নাগাদ পরিবহণ ভবনে আসেন শুভেন্দু আধিকারী৷ মন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব নেওয়ার পর এদিনই প্রথম দফতরে এলেন পরিবহণমন্ত্রী৷ তাই নতুন মন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে একটু সেজেছিল দফতর৷ মন্ত্রী ঢুকতেই আধিকারিকরা তাঁকে পুষ্পস্তবক দিয়ে সংবর্ধনা জানান৷ পরে নিজের ঘরে বসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে নতুন পরিবহণমন্ত্রী বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে রাজ্যজুড়ে যে উন্নয়নের কর্মযজ্ঞ চলছে তাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই আমার প্রথম কর্তব্য৷ মানুষের কাছে এটি একটি জনপ্রিয় দফতর৷ বিভিন্ন সময়ে মন্ত্রী এবং সচিবরা দফতরের কাজ এগিয়ে নিয়ে গিয়েছেন৷ পুরোটা দেখে নিই৷ নির্বাচনের সময়ে যে প্রতিশ্রূতি দিয়েছিলাম তা রাখার চেষ্টা করব৷”

একই সঙ্গে সময়ে কাজ শেষ করার উপর জোর দিয়ে তিনি বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী যে প্রশাসনিক ক্যালেন্ডার বেঁধে দেবেন, সেই সময়ের মধ্যেই কাজ শেষ করতে হবে৷ পরিবহণ ব্যবস্থাকে আরও আধুনিক এবং স্বচ্ছ করতে হবে৷ আমি গ্রাস রুট লেভেল থেকে কাজ করেছি৷ মানুষের সঙ্গে মিশতে গিয়ে কিছু অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করেছি, তা কাজে লাগবে৷ সরকারের একটা নির্দিষ্ট নীতি আছে সেই নীতি মেনে কাজ করা হবে৷”

সরকারি পরিবহণ নিগমগুলোকে নিজের পায়ে দাঁড় করানোর পরিকল্পনাও নেওয়া হবে বলে জানান মন্ত্রী৷ তবে তা সময় সাপেক্ষ৷
সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, “গোটা রাজ্যই আর্থিক সঙ্কটের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে৷ পরিবহণ দফতরও তার ব্যতিক্রম নয়৷ ২০১১ সালে আমাদের সরকার যখন ক্ষমতায় আসে সেই সময়ই কোটি কোটি টাকা ঋণের বোঝা ছিল মাথার উপর৷ সেখান থেকে টেনে তোলার চেষ্টা করা হচ্ছে৷ পরিবহণ ব্যবস্থা যাত্রী পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত৷ তার মধ্যে দিয়েই কর্পোরেশনগুলো দাঁড় করানোর চেষ্টা করা হচ্ছে৷ তাও গত পাঁচ বছরে অনেক পরিবর্তন হয়েছে৷ পরিষেবা মানুষের কাছে পৌঁছে গিয়েছে৷ ইনল্যান্ড ওয়াটার, হেলিকপ্টার, ভলভো বাস–যাত্রী পরিষেবায় সবদিকেই উন্নতি হয়েছে৷ আমিও তা প্রত্যক্ষ করেছি৷” কথা প্রসঙ্গে নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর এক প্রশাসনিক বৈঠকের কথাও তুলে আনেন তিনি৷ বলেন, “নন্দীগ্রামে প্রশাসনিক বৈঠক করার সময় মুখ্যমন্ত্রীকে একজন সোনাচূড়া-কলকাতার মধ্যে একটা বাস চালু করার অনুরোধ করেছিলেন৷ দু’দিনের মধ্যে সেই পরিষেবা চালু করেছিল এসবিএসটিসি৷ তাই বলছি, এই দফতরের কাজ আমি চোখের সামনেই দেখেছি৷ তবুও একটু বুঝে নিতে হবে৷ তার পরই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করব৷” এদিকে আগামিকাল বুধবার পরিবহণ দফতরের কর্তাদের নিয়ে ফের বৈঠকে বসছেন মন্ত্রী৷ সেখানেই বিভিন্ন নিগমের অবস্থা থেকে শুরু করে শহরে চলা মেট্রো প্রকল্প নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা৷ অন্যদিকে সোমবারই ছ’দফা দাবি নিয়ে মন্ত্রীর দফতরে একটি স্মারকলিপি জমা দেন জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেটের সদস্যরা৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement