৩১ আষাঢ়  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

৩১ আষাঢ়  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, দুর্গাপুর: খোদ প্রার্থীর বাড়ির পাঁচিলেই তাঁর সমর্থনে দেওয়াল লিখেছিলেন এসইউসির কর্মী-সমর্থকরা। কিন্তু, সেই দেওয়াল লিখনের উপরে তৃণমূল প্রার্থীর ব্যানার লাগানো হয়েছিল। বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও ব্যানারটি সরানো হয়নি বলে অভিযোগ। শেষপর্যন্ত নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানাতে সমস্যা মিটল। ক্ষমা চেয়ে ব্যানার খুলে নিয়ে গেলেন তৃণমূল কর্মীরা।

[আরও পড়ুন: প্রচারে মিমির হাতে লাগল চোট, মালিশে সারালেন অরূপ]

বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রে এবার এসইউসি প্রার্থী সুচেতা কুণ্ডু। দুর্গাপুরের বেনাচিতি এলাকার অগ্রণী গলিতে থাকেন তিনি। বাড়ির মালকিন দলের প্রার্থী, তাই সুচেতা কুণ্ডর বাড়ির পাঁচিলে দেওয়াল লিখেছিলেন এসইউসিআই-র কর্মীরা। অভিযোগ, দিন দশেক আগে সেই দেওয়ার লিখনের উপরে বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রে দলের প্রার্থী মমতাজ সংঘমিতার একটি ব্যানার লাগিয়ে দেন তৃণমূল কর্মীরা। এসইউসিআই প্রার্থী সুচেতা কুণ্ডর দাবি, তিনি নিজে বেশ কয়েকবার তৃণমূল কংগ্রেসের পার্টি অফিসে গিয়ে ব্যানারটি সরিয়ে নিতে অনুরোধ করেছিলেন। কিন্তু তাতে কাজ হয়নি। শেষপর্যন্ত বাধ্য হয়েই মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশনের অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। তাতেই সমস্যা মেটে। এসইউসিআই প্রার্থীর বাড়ির পাঁচিল থেকে দলের ব্যানারটি খুলে নিয়ে যান তৃণমূল কর্মীরা। শুধু তাই নয়, এই ঘটনার জন্য তাঁরা ক্ষমাও চেয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

কিন্তু, তৃণমূল কংগ্রেসের স্থানীয় কর্মীরা কি এসইউসিআই প্রার্থী সুচেতা কুণ্ডুর বাড়ি চেনেন না! তাঁর বাড়ির পাঁচিলে কি ইচ্ছাকৃতভাবে তৃণমূল প্রার্থীর ব্যানার লাগানো হয়েছিল? অভিযোগ অস্বীকার করেছেন দলের পশ্চিম বর্ধমান জেলার কার্যকরী সভাপতি উত্তম মুখোপাধ্যায়। তাঁর দাবি, নেহাতই ভুলবশত এসসিইউসি প্রার্থীর বাড়ির পাঁচিলে ব্যানার লাগিয়েছিলেন তৃণমূল কর্মীরা। পরে ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা চেয়ে ব্যানারটি সরিয়ে নেওয়া হয়।

ছবি: উদয়ন গুহরায়

[ আরও পড়ুনপ্রার্থীর দেখা নেই কাঁটাতারের ওপারের গ্রামাঞ্চলে, ক্ষোভে ফুঁসছেন বাসিন্দারা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং