BREAKING NEWS

০৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৪ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

জেলা সভাপতির পদ থেকে সরানোর ভাবনা, সৌরভ চক্রবর্তীর ডানা ছাঁটতে পারে তৃণমূল

Published by: Tanujit Das |    Posted: August 4, 2019 2:33 pm|    Updated: August 4, 2019 2:33 pm

TMC likely to sack Sourabh Chakraborty as Jalpaiguri Jela President

শান্তনু কর, জলপাইগুড়ি: লোকসভার ফলাফল ঘোষণার পরই তাঁর কর্মদক্ষতা নিয়ে দলের অন্দরে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছিল৷ নির্বাচনে তাঁর পারফর্মম্যান্সে খুশি ছিল না দলের শীর্ষ নেতৃত্ব৷ এবার হয়তো সেই অসন্তোষেরই ফল ভোগ করতে হবে আলিপুরদুয়ারের বিধায়ক সৌরভ চক্রবর্তীকে৷ সূত্রের খবর, জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল সভাপতির পদ থেকে এই যুব নেতাকে সরিয়ে দিতে পারে শাসকদল৷ তাঁর জায়গায় দায়িত্ব তুলে দেওয়া হতে পারে প্রাক্তন জেলা সভাপতি তথা দলের দীর্ঘদিনের সৈনিক কৃষ্ণকুমার কল্যাণীর হাতে৷

[ আরও পড়ুন: ‘জলের ব্যবস্থা করে দিন আপনাদেরই ভোট দেব’, জনসংযোগ করতে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে মন্ত্রী মলয় ঘটক ]

তৃণমূল সূত্রে খবর, নির্বাচনে জলপাইগুড়ি লোকসভা আসনটি এবং উত্তরবঙ্গের একটা অংশের দায়িত্ব ছিল সৌরভ চক্রবর্তীর কাঁধে৷ অভিযোগ, নিজের দায়িত্ব পালনে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছেন তিনি৷ দলের নিচুতলার কর্মীদের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হয়েছে তাঁর৷ সংগঠনের কাজের দিকেও নজর দেননি৷ ফলে সাধারণ মানুষের সঙ্গে সংযোগ করতে পারেনি শাসকদল৷ এবং দলের অন্দরে দিনে দিনে চওড়া হয়েছে ফাঁটল৷ যার সুযোগে উত্তরবঙ্গে ভিত শক্ত করেছে গেরুয়া শিবির৷ লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গে অভাবনীয় ফল করেছে বিজেপি৷ ঝুলি শূন্য তৃণমূলের৷ কোচবিহার থেকে শুরু করে মালদা, ৮টা লোকসভা আসনের মধ্যে একটাতেও দাঁত ফোটাতে পারেনি শাসকদল৷ সাতটি আসন গিয়েছে বিজেপির দখলে৷ একটি আসন ধরে রেখেছে কংগ্রেস৷ এই পরিস্থিতিতে, আগেই উত্তরবঙ্গের একাধিক জেলা সভাপতির পদে রদবদল করেছে শাসকদল৷ খবর পাকা হলে, শীঘ্রই সেই তালিকায় যুক্ত হতে চলেছে সৌরভ চক্রবর্তীর নাম৷

[ আরও পড়ুন: অস্ত্রোপচার ছাড়াই প্রসব, মঙ্গলকোটের হাসপাতালে জন্ম ‘কনজয়েন্ট বেবি’র ]

প্রসঙ্গত, আলিপুরদুয়ারের ছেলে হলেও, সৌরভ চক্রবর্তী দীর্ঘদিন কলকাতায় রাজনীতি করেছেন। প্রথমে ছাত্র পরিষদ, পরে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি হন তিনি। কিন্তু দলনেত্রীর নির্দেশে ফের আলিপুরদুয়ারে ফিরে যান৷ এক সময় রাজ্য রাজনীতি কাঁপানো দামাল ছেলে সৌরভ, আলিপুরদুয়ারে ‘গুটিস দা’ নামেই পরিচিত। আলিপুরদুয়ারের বিধায়ক ছাড়াও শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ি উন্নয়ন পর্ষদের সভাপতি, জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি-সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পেয়েছেন সৌরভ চক্রবর্তী। কিন্তু ধীরে ধীরে সাধারণ মানুষের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয় তাঁর৷ যে শহরে তিনি বড় হয়েছেন, সেই শহরের মানুষদের মধ্যেও নানান প্রশ্ন ওঠে তাঁকে নিয়ে। যার প্রভাব পড়ে লোকসভার ফলাফলেও৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে