১০ মাঘ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

বিক্রম রায়, কোচবিহার : বিধায়ককে খুনের হুমকি। নাগরিকত্ব বিলের বিরোধিতা করায় সোশ্যাল মিডিয়ায়  খুনের হুমকি দেওয়া হল দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহকে। এরপরই পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, ২০১৯ (CAB) ঘিরে উত্তপ্ত গোটা দেশ। সেই বিতর্কিত বিলের বিরোধিতায় মিছিলের ডাক দিয়েছিলেন দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ। বৃহস্পতিবার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের তীব্র বিরোধিতা করে একটি পোস্টও দেন দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ। তারপরই সেই ফেসবুক পোস্টে তাঁকে খুনের হুমকি দেন তুষার বিশ্বাস নামে এক ব্যক্তি।  ওই পোস্টে এনআরসি ও CAB-এর প্রতিবাদে আগামী সোমবার বিকেল বিশাল মশাল মিছিল করার কথা লেখেছিলেন বিধায়ক। সেই পোস্টে কমেন্ট করে তুষার বিশ্বাস নামের ওই ব্যক্তি বিধায়কের গলার নলি কেটে খুনের হুমকি দেন।

[আরও পড়ুন: অবৈধভাবে ভারতে ঢোকার অভিযোগ, গ্রেপ্তার ৭ বাংলাদেশি নাগরিক]

বিধায়ক এখন কলকাতায় রয়েছেন। তবে ইতিমধ্যেই গোটা ঘটনা জানিয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি। এই ঘটনা প্রসঙ্গে বিধায়ক উদয়ন গুহ জানিয়েছেন, “আমাকে গলা কেটে খুনের হুমকি দেওয়া হয়েছে। অবশ্যই বিজেপির সমর্থক বা সদস্যরাই এ কাজ করেছে। তবে মিছিল আমরা করবই।” তিনি আরও জানান, “আমি পুলিশকে জানিয়েছি। চিন্তা হচ্ছে। এই পোস্ট দেখে আমার অনুগামীরা যদি কিছু করে বসে তাহলেই মুশকিল!” এসপি সন্তোষ মিম্বাইকার বলেন, “অভিযোগ পেয়েছি। গোটা ঘটনা খতিয়ে দেখছি।”

[আরও পড়ুন : অগ্নিগর্ভ অসম, CAB-এর প্রতিবাদে বিজেপি ছাড়লেন অভিনেতা যতীন বোরা]

বুধবারই সংসদের দুই কক্ষে পাশ হয়েছে বিতর্কিত নাগরিকত্ব বিল। এই বিলকে সাম্প্রদায়িক ও সংবিধান পরিপন্থী বলেও সরব হয়েছেন বিরোধীরা। বিলের বিরোধিতার অগ্নিগর্ভ উত্তর-পূর্ব ভারত। অশান্তিতে ইতিমধ্যে অসমে প্রাণ হারিয়েছেন পাঁচজন। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে শুরু থেকেই বিজেপির বিরোধিতা করে আসছে তৃণমূল কংগ্রেস। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ইতিমধ্যেই ঘোষণা করে দিয়েছেন, বাংলায় তিনি নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন লাগু হতে দেবেন না। একই কথা জানিয়ে দিয়েছেন, পাঞ্জাবের কংগ্রেসি মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং এবং কেরলের বামফ্রন্ট সরকারের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। প্রশান্ত কিশোরের আহ্বান, এই তিনজন যে পথ দেখিয়েছেন, সেই পথে হাঁটা উচিত অবিজেপি ১৬ জন মুখ্যমন্ত্রীরই।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং