৫ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ২১ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ধীমান রায়, কাটোয়া: দলের বিরুদ্ধেই সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হয়েছেন কাটোয়ার বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়ের ভাইপো রঞ্জিত চট্টোপাধ্যায়। ফেসবুকে একের পর এক বিতর্কিত পোস্ট করে চলেছেন তিনি। তা নিয়ে জোর বিতর্ক শুরু হয়েছে কাটোয়ায়। যদিও দলের বিরুদ্ধে ভাইপোর এই ধরনের পোস্ট করাকে আদৌ সমর্থন করছেন না রবীন্দ্রনাথবাবু। জানা গিয়েছে, তিনি ভাইপোকে এজন্য তিরস্কার করে সতর্ক করে দিয়েছেন। যদিও রঞ্জিতবাবু তাতে ভ্রুক্ষেপ করছেন না।

[আরও পড়ুন: সিপিএম থেকে দলে নেওয়া চলবে না, বর্ধমানে বিজেপি কার্যালয়ে ব্যাপক গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব]

কয়েকদিন আগে থেকেই কাটোয়ায় দলের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে চাপানউতোর চলছে। আর এই চাপানউতোরের মাত্রা আরও বাড়িয়ে দিয়েছেন রবীন্দ্রনাথবাবুর ভাইপো রঞ্জিত চট্টোপাধ্যায়। তিনি দলের সাংগঠনিক কাজে অনেকদিন ধরেই যুক্ত। কাটোয়ায় টোটোচালক সংগঠনের সভাপতিও তিনি। সোমবার রঞ্জিত বেশ কয়েকটি পোস্ট করেছেন ফেসবুকে। কোথাও লিখেছেন, “দল করতেই হবে কেউ মাথার দিব্যি দেয়নি। দল করে খাই না। দল দেখিয়ে রোজগারও করি না। আর দল তো অনেক আছে, একটা করলেই হল। একটু ভাবি।” আবার কোথাও লিখেছেন “কোন ওয়ার্ডের চোরের নাম দিয়ে আরম্ভ করব বুঝতে পারছি না। চার পাঁচটি ওয়ার্ড বাদ দিয়েই চোরেদের সম্পত্তির হিসাব দিই নাকি?” খোদ বিধায়কের ভাইপোর এমন  পোস্টে শোরগোল পড়ে গিয়েছে তৃণমূলের অন্দরে। 

শুধু বিধায়ক নন, রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় কাটোয়া পুরসভার চেয়ারম্যানও। ২০ আসনের পুরসভায় ১৬ কাউন্সিলর এখন চেয়ারম্যানের পক্ষে। আর বিপক্ষে প্রাক্তন চেয়ারম্যান অমর রাম-সহ চারজন। এই পরিস্থেিতিতে খোদ চেয়ারম্যানের ভাইপো চার-পাঁচজন বাদে সমস্ত কাউন্সিলরকে পরোক্ষে চোর বলায় ক্ষোভপ্রকাশ করেছে কাটোয়া পুরসভায় তৃণমূল কাউন্সিলরদের একাংশ। দলের শীর্ষ নেতৃত্বের দৃষ্টি আকর্ষণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁরা। ভাইপো ফেসবুক পোস্ট অস্বস্তিতে পড়েছেন কাটোয়া পুরসভার চেয়ারম্যান রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়ও। তিনি বলেন, “আমি এই ধরনের মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করছি। ওকে সতর্ক করেছি। শোনেনি। কেন এই আচরণ আমি বলতে পারব না। এনিয়ে দল যা ভাবার ভাববে। আমি মেনে নেব।”

[আরও পড়ুন: ফের ভাঙন তৃণমূলে, বিজেপির পথে আরও এক বিধায়ক]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং