BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জোটের প্রশ্নে সরাসরি দ্বিধাবিভক্ত সিপিএম পলিটব্যুরো

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: May 30, 2016 9:19 am|    Updated: May 30, 2016 9:22 am

An Images

দেবশ্রী সিনহা: পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট-ইস্যুতে প্রত্যাশিতভাবেই ‘উষ্ণ’ হল সিপিএম পলিটব্যুরোর বৈঠক৷ বস্তুত, জোট-বিরোধী কারাত লবি আর জোট-পন্থী ইয়েচুরি লবির ‘দ্বন্দ্বযুদ্ধ’-ই চলল প্রথম দিনের বৈঠকে৷ তা সত্ত্বেও, এই জোট আগামী দিনে দলের অস্তিত্ব রক্ষায় কতটা কার্যকরী ভূমিকা নিতে পারে, তা নিয়ে বৈঠকে চুলচেরা বিশ্লেষণ হবে বলেই জানা গিয়েছে৷ পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের ১০ দিনের মধ্যে পলিটব্যুরোর এই বৈঠক বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ৷ কারণ, তৃণমূলকে ঠেকাতে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করার পরও রাজ্যের ভোটে ভরাডুবি হয়েছে সিপিএমের৷ গত বিধানসভা নির্বাচনের থেকেও অর্ধেক কমে গিয়েছে দলের আসন সংখ্যা৷ এই কারণে, দলের বঙ্গ ব্রিগেডের নেতাদের পলিটব্যুরোতে প্রশ্নের মুখে পড়াটা অবশ্যম্ভাবী ছিল৷ হয়েছেও তা-ই৷

দিল্লিতে রবিবার শুরু হয়েছে পলিটব্যুরোর দুই দিনের বৈঠক৷ নির্বাচন চলাকালীন জোট নিয়ে তাদের অভিজ্ঞতার কথা রাজ্যের নেতাদের কাছে জানতে চাওয়া হয়৷ পাশাপাশি, কংগ্রেসের সঙ্গে জোট বাঁধাতে দলের কতটা ক্ষতি হয়েছে, ভোটের ফলাফলের নিরিখে তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ উল্লেখ্য, সিপিএমের রাজ্য কমিটি প্রথম থেকেই জোটের পক্ষে রয়েছে এবং ভবিষ্যতেও এই জোট চালিয়ে নিয়ে যেতে চায়৷ এদিন জোটের প্রাসঙ্গিকতার প্রশ্নে সরাসরি দ্বিধাবিভক্ত হয়ে যায় পলিটব্যুরো৷ জোটের বিপক্ষে প্রথম থেকেই সওয়াল তুলেছিলেন প্রকাশ কারাতের লবির নেতারা৷ রবিবারও তার পুনরাবৃত্তি ঘটে৷ কোণঠাসা করার চেষ্টা করা হয় দলের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরিকে৷ যিনি পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য নেতাদের পাশে দাঁড়িয়ে জোটের পক্ষে ঐকমত্য গড়ে তুলতে সাহায্য করেছিলেন৷ ভোটের ফলাফলকে কাঁটাছেঁড়া করে স্পষ্ট হয়ে যায় বামেদের ভোট কংগ্রেসের দিকে গেলেও, কংগ্রেসের ভোট কিন্তু পায়নি বামেরা৷ সেক্ষেত্রে প্রশ্ন উঠে আসে, আগামী দিনে এই জোট কতটা কার্যকরী হবে বামেদের জন্য৷

ভোটের ফল প্রকাশের পরই ২২ মে থেকে তিনদিনের পলিটব্যুরো ও কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে বসার কথা ছিল৷ কিন্তু তা পিছিয়ে দেওয়া হয় জুনের তৃতীয় সপ্তাহে৷ যুক্তি দেওয়া হয়, ওই সময় কেরলে পিনারাই বিজয়ন মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেবেন৷ দলের বেশিরভাগ কেন্দ্রীয় নেতাই সেই অনুষ্ঠানে যাবেন৷ যদিও রাজনৈতিক মহল মনে করছে, পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচনে ফলাফল অত্যন্ত হতাশাজনক হওয়ার ফলেই তড়িঘড়ি ময়নাতদন্ত করতে বসতে চায়নি দল৷ সূত্রের খবর, এবার জুনের তৃতীয় সপ্তাহে কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক হওয়ার সম্ভাবনা৷ যেখানে কংগ্রেসের সঙ্গে আগামী সময়ে জোট থাকবে কিনা তার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা৷ তবে তার আগে দুদিনের হওয়া পলিটব্যুরোতে দল জোটের পক্ষে, নাকি বিপক্ষে ঐকমত্য হবে, রাজনৈতিক মহলের নজর এখন সেদিকেই৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement