BREAKING NEWS

২৬ চৈত্র  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ৯ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

ল্যাংচার দাম মেটানোর সময় সম্মোহন! বিদেশিদের কারসাজিতে প্রতারিত ব্যবসায়ীরা

Published by: Bishakha Pal |    Posted: February 25, 2020 12:24 pm|    Updated: February 25, 2020 5:28 pm

An Images

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: ‘অতিথি দেব ভব।’ ভারতীয়রা নিজের দেশে আগত বিদেশিদের সেই চোখেই দেখেন। বর্ধমানের শক্তিগড়েও বিদেশিদের দেশে যত্ন করে ল্যাংচা খাওয়ান ব্যবসায়ীরা। কিন্তু দাম মেটাতে গিয়ে সেই বিদেশিই চোখের পলকে হাতসাফাই করে গোছা গোছা টাকা। দোকান মালিক থেকে কর্মীদের কার্যত হিপনোটাইজড করে কড়কড়ে নোট পকেটে ভরে চলে গেলেন দুই বিদেশি। কিন্তু দোকানদার বা কর্মীদের যখন ঘোর কাটল ততক্ষণে পগার পার বিদেশি অতিথিরা।

চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের শক্তিগড়ে। তিনটি ল্যাংচার দোকান ও একটি হোটেল থেকে সব মিলিয়ে প্রায় ২৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়ে চম্পট দিয়েছে ওই দুই বিদেশি। খবর পেয়ে শক্তিগড় থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। ল্যাংচার দোকানের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করে পরীক্ষা করে দেখছে পুলিশ। সিসি ক্যামেরার ফুটেজে পরীক্ষা করে দেখছে পুলিশ। সোমবার রাত পর্যন্ত অবশ্য ওই দুষ্কৃতীদের চিহ্নিত করতে পারেনি পুলিশ।

[ আরও পড়ুন: পোলবার দুর্ঘটনায় নিহত ঋষভের বাবাকে ফোন, যন্ত্রণা ভুলতে সান্ত্বনা মুখ্যমন্ত্রীর ]

ল্যাংচা ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, রবিবার সন্ধ্যায় দুইজন একের পর এক দোকানে যায়। প্রথমে ল্যাংচা খায়। চিপসও কেনে। তার পর দাম দিতে কাউন্টারে যায়। এরপরই কখনও দুই হাজার টাকার নোট ভাঙিয়ে দিতে বলে আবার কখনও পাঁচশো টাকার চারটে নোট দিয়ে দুই হাজার টাকার নোট দিতে বলে হাতসাফাই করে। একজন পুরুষ ও তাঁর সঙ্গী এক মহিলা ছিল। ইংরেজিতে কথা বলছিল। ভাঙা ভাঙা বাংলাও বলতে পারে। দেখতে বিদেশিদের মত। একটি সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গিয়েছে, কিছু কেনাকাটার পর দাম মেটাচ্ছে পুরুষটি। তার পর পকেট থেকে একটা দুই হাজারের নোট বের করে ভাঙিয়ে দিতে বলে কর্মীকে। কর্মী ক্যাশবাক্স খুলে এক গোছা পাঁচশোর নোট বের করেন। এরপরই ওই বিদেশি যেন মোহিত করে দেয় কর্মীটিকে। তার হাত থেকে পাঁচশো টাকার গোছা তুলে নেয় বাঁ হাতে। সেই টাকা পকেটে ঢুকিয়ে বাকি টাকা ফের তুলে দেয় কর্মীর হাতে। এরপরই কর্মীর সন্দেহ হয়। কিন্তু তৎক্ষণাৎ মানিব্যাগ বের করে কর্মীটিকে দেখায় ওই বিদেশি।

একই কায়দায় আরও দুইটি দোকানে অপারেশন চালায় তারা। ঘটনার সময় কিছুই টের পাননি দোকান কর্মী বা মালিকরা। ঘণ্টাখানেক পরে ক্যাশ মেলাতে গিয়ে যেন সম্বিত ফেরে তাঁদের। দেখেন কোনও দোকানে ১০ হাজার, কোনও দোকানে ১২ হাজার টাকা গায়েব হয়ে গিয়েছে। এরপরই তাঁরা সিসিটিভি ফুটেজ দেখে থ হয়ে যান। ব্যবসায়ীরা দাবি করেছেন, অপারেশন চালিয়ে চারচাকা গাড়ি নিয়ে চম্পট দিয়েছে দুষ্কৃতীরা। তবে পুলিশ সিসি ক্যামেরার ফুটেজে তাদের গাড়ি নিয়ে পালানোর কোনও প্রমাণ পায়নি। তাদের দোকানে ঢোকার ও অপারেশন চালিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার দৃশ্য পেয়েছে। দোকানে তারা হেঁটে ঢুকেছে ও বেরিয়ে গিয়েছে দেখা গিয়েছে ফুটেছে। একটি দোকানের মালিক মিলন মল্লিক ও অন্য একটি দোকানের ম্যানেজার সৌমিত্র ঘোষ জানান, এইভাবে বোকা বানিয়ে বিদেশিরা টাকা হাতাতে পারে তা তাঁরা কল্পনাও করতে পারছেন না। যদিও দুষ্কৃতীরা বিদেশিই কি না সেই ব্যাপারে নিশ্চিত নয় পুলিশ। জেলা পুলিশের এক আধিকারিক জানান, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। দুষ্কৃতীদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে।

[ আরও পড়ুন: ভরতির দু’দিন পর হাসপাতাল থেকে নিখোঁজ রোগী, চাঞ্চল্য বর্ধমান মেডিক্যালে ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement