৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: অযোধ্যা পাহাড়ের উপরের জলবিদ্যুৎ প্রকল্প টুরগা নিয়ে তথ্যচিত্র তৈরি করে বিপাকে নির্মাতা। পুরুলিয়ার আড়ষা থানার পুলিশ তথ্যচিত্রের নির্মাতা-সহ দু’জনকে আটক করেছে। যদিও পুলিশের দাবি, দু’জনের আচরণ সন্দেহজনক হওয়ায় তাঁদের আটক করা হয়েছে। তবে পরিবেশপ্রেমীরা এই দাবি মানতে নারাজ। তথ্যচিত্র তৈরির মাধ্যমে রাজ্য সরকারের বিরোধিতা করায় এমন বিপত্তি বলেই দাবি তাঁদের।

[আরও পড়ুন: কোচবিহারের হোমে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত কিশোর, খুনের অভিযোগ দায়ের পরিবারের]

অযোধ্যা পাহাড়ের মাথায় পাহাড়ের টুরগা নালা বা ঝরনাকে কাজে লাগিয়ে
একটি জলবিদ্যুৎ প্রকল্প তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। মোট ২৯২ হেক্টর জমিতে জাপানের আর্থিক সহায়তায় প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগে তৈরি হবে প্রকল্প৷ এই ২৯২ হেক্টর জমির মধ্যে অধিকাংশই বনভূমি। বনদপ্তরের হিসাব অনুযায়ী, এই প্রকল্প তৈরি হলে কাটা পড়বে প্রায় ১০ হাজার গাছ৷ বড় বিপদের মুখোমুখি হবে বন্যপ্রাণ। পরিবেশ বাঁচানোর দাবিতে জলবিদ্যুৎ প্রকল্পের বিরোধিতায় নেমেছেন পাহাড়ের মানুষজন। ২০১৬ সাল থেকে এই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। তবে গত বছরের শেষ দিক থেকেই এই প্রকল্পের বিরোধিতায় পাহাড়ে ছোট ছোট স্তরে আন্দোলন দানা বেঁধেছে।

Turga-Project

শুধু পুরুলিয়াই নয়, আন্দোলনে শামিল হয়েছেন কলকাতার পরিবেশপ্রেমীরাও। প্রতিবাদে তৈরি হয়েছে ‘অযোধীয়া কমিটি’। টুরগা প্রকল্পের বিরোধিতায় হাই কোর্টেরও দ্বারস্থ হয়েছেন আদিবাসীরা। তাই প্রকল্প তৈরির ক্ষেত্রে জারি হয়েছে স্থগিতাদেশ। মানুষের মতামত ছাড়া কোনওভাবেই প্রকল্প বাস্তবায়িত করা সম্ভব নয় বলেই সাফ জানিয়ে দিয়েছেন বিচারপতি।

Turga-Project

[আরও পড়ুন: সম্পত্তি নিয়ে বিবাদের জের, ছেলের হাতে খুন বাবা]

এই পরিস্থিতিতে টুরগা প্রকল্পের বিরোধিতায় প্রতিবাদের হাতিয়ার হিসাবে তথ্যচিত্রকে বেছে নিয়েছেন প্রতিবাদীরা। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তনী কৌশিক মুখোপাধ্যায় ‘বনমানুষ’ নামে একটি তথ্যচিত্র তৈরি করেন।

Koushik Mukherjee
তথ্যচিত্র নির্মাতা কৌশিক মুখোপাধ্যায়

গত রবি এবং সোমবার অযোধ্যা পাহাড়ের মোট পাঁচটি গ্রামে প্রজেক্টরের মাধ্যমে দেখানো হয় তথ্যচিত্রটি। এরপর মঙ্গলবার গ্রাম থেকে শহরে ফিরছিলেন তাঁরা। অভিযোগ, কলকাতায় ফেরার উদ্দেশে ট্রেন ধরতে যাওয়ার সময় আড়ষা থানার পুলিশ তথ্যচিত্রের নির্মাতা এবং তাঁর সহযোগী ইমন সাঁতরা নামে আরও একজনকে আটক করে। আটক ইমন সাঁতরা হুগলির হরিপাল থানার জামাইবাটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক।

Iman Santra
ইমন সাঁতরা

পুলিশ সুপার আকাশ মাঘারিয়া বলেন, “বিভিন্ন গ্রামে সন্দেহজনকভাবে ঘোরাফেরার জেরে দু’জনকে আটক করা হয়েছিল। তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হয়।” যদিও টুরগা প্রকল্পের প্রতিবাদে তৈরি ‘অযোধীয়া কমিটি’র সদস্য সৌরভ মুখোপাধ্যায় বলেন, “রাজ্য সরকারের বিরোধিতা করে তথ্যচিত্র দেখিয়ে ফিরছিলেন বলেই দু’জনকে আটক করা হয়েছিল। তাঁরা মোটেও সন্দেহভাজন নন।”  

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং