৩ কার্তিক  ১৪২৬  সোমবার ২১ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সৈকত মাইতি, তমলুক: দশমীর দিন নৌকোবিহারে গিয়ে মর্মান্তিক পরিণতি হল দুই ভাই-বোনের। নৌকো উলটে যাওয়ায় জলে তলিয়ে মৃত্যু হল তাঁদের। মঙ্গলবার মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে মেদিনীপুরের তমলুক থানার হরশংকর গ্রামে। দশমীর দিন তরতাজা দুটি প্রাণের অবসানে শোকের ছায়া এলাকায়।

[আরও পড়ুন:ঘর থেকে সন্তান-সহ দম্পতির ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধার, খুনের কারণ নিয়ে ধন্দে পুলিশ]

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার নৌকোয় পূর্ব মেদিনীপুরের হরশংকর গ্রামে মাছ চাষের একটি ঝিলে বেড়াতে যায় গ্রামের ৬ জন। তাঁদের মধ্যেই ছিলেন বছর একুশের সুতপা মাইতি ও তাঁর ভাই উজ্জ্বল মাইতি। স্থানীয় সূত্রে খবর, আচমকাই উলটে যায় নৌকোটি। জলে তলিয়ে যায় নৌকোর ছ’জন যাত্রী। প্রাণ বাঁচাতে জলের সঙ্গে লড়াই করে কোনওক্রমে সাঁতার কেটে পাড়ে ওঠে চারজন। কিন্তু দীর্ঘক্ষণ পেরিয়ে গেলেও খোঁজ মেলেনি সুতপা আর উজ্জ্বলের। এরপর খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ভিড় জমান স্থানীয়রা। ওই দু’জনকে উদ্ধার করতে তল্লাশি শুরু করে স্থানীয়রাই।

বেশ কিছুক্ষণ পর জল থেকে উদ্ধার হয় সুতপা ও উজ্জ্বল। কিন্তু ততক্ষণে মৃত্যু হয়েছে তাঁদের। এরপর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় তমলুক থানার পুলিশ। ইতিমধ্যেই থানার তরফে দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। দশমী মানেই বিষাদ। ভারাক্রান্ত মন। তার মাঝে এই ঘটনা যেন আরও বিষাদ ঢেলে দিয়েছে চারিপাশে। খবর পৌঁছতেই কান্নায় ভেঙে পড়েছে সুতপা ও উজ্জ্বলের পরিবার। সুস্থ শরীরে বাড়ি থেকে বেরিয়েছিল দুই সন্তান। পরিবারের কেউ ভাবতেও পারেননি যে আর কোনও দিনই ঘরে ফিরবে না তাঁরা। যে চারজন সাক্ষাত মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছেন এখনও আতঙ্ক যেন তাড়া করে বেড়াচ্ছে তাঁদের। ঠিক কী হয়েছিল সেই মুহূর্তে বলতে পারছে না কেউই। তবে চোখের সামনে বন্ধু বিয়োগের যন্ত্রণা কিছুতেই যেন ভুলতে পারছেন না তাঁরা।

[আরও পড়ুন: হাসপাতালেই পালটে গিয়েছে সন্তান, ১ মাস পর হুঁশ ফিরল মা-বাবার!]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং