BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের সুপারিশে বাংলার প্রাপ্য ৪১৭ কোটি টাকা দিল কেন্দ্র

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: July 9, 2020 4:59 pm|    Updated: July 9, 2020 6:48 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা পরিস্থিতির সঙ্গে দোসর আমফান দুর্যোগ। দুই বিপর্যয়ই মোকাবিলা করছে বাংলা। এই অবস্থায় পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের সুপারিশ মেনে বাংলার প্রাপ্য টাকা দিল কেন্দ্র। বাংলাকে প্রাপ্য প্রায় ৪১৭ কোটি টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ (Nirmala Sitharaman) টুইট করে জানিয়েছেন, দেশের ১৪টি রাজ্যের জন্য কেন্দ্র ৬,১৯৫ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে। তার মধ্যে বাংলার জন্য বরাদ্দ প্রায় ৪১৭ কোটি টাকা। পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের সুপারিশে এই টাকা দেওয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতি এবং লকডাউনের জেরে রাজ্যগুলির আয় তলানিতে এসে ঠেকেছে। সরকারি কোষাগার প্রায় শূন্য। করোনা পরিস্থিতিতে প্রত্যেকটি রাজ্যেরই স্বাস্থ্যখাতে কয়েক গুণ বেড়ে গিয়েছে। শিল্প-কলকারখানা বন্ধ থাকায় রাজস্ব আদায়ও প্রায় বন্ধ। আরও জটিল পরিস্থিতি বাংলায়। করোনার সঙ্গে দোসর হয়েছিল ঘূর্ণিঝড় আমফান। আমফানের তাণ্ডবে রাজ্যের একাধিক জেলায় প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কেন্দ্র প্রাথমিকভাবে রাজ্যকে ১০০০ কোটি টাকা আর্থিক সাহায্য করে। কিন্তু সেটা যথেষ্ট নয় বলে জানিয়েছে রাজ্য।

[আরও পড়ুন: সরকারি পুনর্বাসনের আশ্বাসে কাটল জট, পুজোর পর শুরু দেউচা পাচামি কয়লা খনির কাজ]

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) বারবার বলেছেন, কোভিড মোকাবিলায় কেন্দ্র অর্থ দিয়ে সাহায্য করছে না। পুরোটাই রাজ্যের কোষাগার থেকে থেকে যাচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী হিসাব দিয়ে বলেছেন, কী কী খাতে রাজ্যের কোষাগার থেকে টাকা খরচ হয়েছে। বুধবার কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ টুইট করে জানান, ‘করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলায় এই অর্থ সহায়ক হবে।’ প্রসঙ্গত, দেশের আর্থিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে নির্মলা সীতারমণ-সহ অন্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের সঙ্গে একপ্রস্থ বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। মূলত, ‘আত্মনির্ভর ভারত’ তৈরির জন্য রোডম্যাপ অনুযায়ীই সমস্ত পদক্ষেপ করছে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক। কেন্দ্রের একটাই লক্ষ্য, করোনা থাবায় বিপর্যস্ত অর্থনীতিকে দ্রুত চাঙ্গা করা। সেই কাজের কতটা অগ্রগতি হয়েছে, বুধবার তারই রিভিউ বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement