২  ভাদ্র  ১৪২৯  শুক্রবার ১৯ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

গ্রাহকের অজান্তেই তাঁর নামে অ্যাকাউন্ট, লক্ষ লক্ষ টাকার বেআইনি লেনদেন

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 20, 2018 8:46 pm|    Updated: April 20, 2018 8:46 pm

Unsound money transaction on fake account

নন্দন দত্ত, সিউড়ি: গ্রাহক নিজেই জানেন না, অথচ তাঁর নামে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলে সেই অ্যাকাউন্ট থেকে গত তিন বছর ধরে তোলা হয়ে গিয়েছে টাকা৷ শুক্রবার তেমনই অ্যাকাউন্টের খোঁজ খবর করতে গিয়ে গ্রামবাসীদের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হল ব্যাংক কর্মীকে৷

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, তাঁরা এই অ্যাকাউন্টের বিষয়ে কিছুই জানেন না৷ তাহলে সেখানে তথ্য দেবেন কেন? বেসরকারি ব্যাংকের কর্মী মান্তু মণ্ডল জানান, বিয়য়টি তিনি ব্যাংক ম্যানেজারকে গিয়ে জানাবেন৷ এদিকে এমন ঘটনা ঘটে থাকলে তা অনভিপ্রেত৷ জানালেন, জেলার লিড ব্যাংক ম্যানেজার পীযূষ পাল৷ তিনি বলেন, গ্রাহকদের সঙ্গে কোথাও ভুল বোঝাবুঝি হয়ে যাচ্ছে৷ তাও তিনি নিজে বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখবেন৷

[বিয়ের দু’মাসেই বালিকা বধূর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, ধৃত স্বামী-শাশুড়ি]

ঘটনাকে কেন্দ্র করে ময়ূরেশ্বর দুই ব্লকের ব্রাহ্মণ বহরা গ্রামে শুক্রবার সকালে হুলস্থুল বেঁধে যায়৷ এদিন সাঁইথিয়ার একটি বেসরকারি ব্যাংকের ডেপুটি ম্যানেজার ব্রাহ্মণ বহরা গ্রামে গ্রাহকদের সঙ্গে দেখা করতে যান৷ ওই গ্রামে ছ’জন গ্রাহকের উপযুক্ত নথি ব্যাংকে দেওয়া ছিল না৷ আগে ব্যাংকের তরফে চিঠি দেওয়া হয় গ্রাহকদের৷ কিন্তু তারপরও কোনও কিছু না হওয়ায় ডেপুটি ম্যানেজার তদন্তে যান৷ তিনি গ্রামে যেতেই গ্রামবাসীরা তাঁকে ঘিরে ধরেন৷ গ্রামবাসীদের দাবি, আদৌ তাঁরা ব্যাংকে কোনও অ্যাকাউন্ট খোলেননি৷ এমনকি অনেকেই জানান, তাঁরা ব্যাংকের নামও জানেন না৷ অথচ ব্যাংক সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই সব গ্রাহকদের হিসাবের খাতায় ২০১৫ সাল থেকে ২৫ থেকে ৩৭ হাজার টাকা লেনদেন হয়ে গিয়েছে৷

২০১৬ সালে নোট বাতিলের সময় এমনই বেশ কিছু ভুয়ো অ্যাকাউন্ট থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা লেনদেন হয়েছে সাঁইথিয়ার বেসরকারি ব্যাংক থেকে৷তাপস গুহ নামে এক ব্যবসায়ী বিষয়টি জানতে পারেন আয়কর দপ্তরের নোটিস থেকে৷ তাপসবাবু জানতেন না, অথচ তাঁকে প্রচুর পরিমাণ কর ধার্য করা হয়৷ সিউড়ি আদালতের দ্বারস্থ হলে এক বেসরকারি ব্যাংক ম্যানেজারের জেল হয় বলে আদালত সূত্রে খবর৷ শুক্রবারও তেমনই প্রতারণার কথা জানান গ্রামের  সুখেন গড়াই, ভবানী ভুইমালিরা৷

[কবে পঞ্চায়েত ভোট? নয়া নির্ঘণ্ট নিয়ে অব্যাহত জটিলতা]

তারা জানান, তারা ওই বেসরকারি ব্যাংকের নাম পর্যন্ত জানেন না৷ তাহলে তাদের অ্যাকাউন্ট খোলা হল কি করে৷ তবে, ব্যাংকের একটি সূত্র জানাচ্ছে, কমিশন ভিত্তিতে ২০১৫ সালে গ্রাহক বৃদ্ধির লক্ষ্যে বেসরকারি এজেন্সিকে নিয়োগ করা হয়েছিল৷ তারাই এই গরমিল করে থাকতে পারে৷ কিন্তু ব্যাংক কর্তার জানাচ্ছেন,  গ্রাহকদের উপস্থিতিতে তার অ্যাকাউন্ট খোলা ব্যাংকের নিয়ম৷ লিড ব্যাংকের ম্যানেজার পীযূষ পাল বলেন, কোথাও একটি ফাঁক থেকে গিয়েছে৷ তবে গ্রাহকদের যাতে অসুবিধা না হয় তা তিনি দেখবেন৷ ছবি সুশান্ত পাল

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে