BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফের ভ্যাপসা গরম থাবা বসাচ্ছে বাংলায়

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 11, 2016 3:48 pm|    Updated: June 11, 2016 3:48 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: গরমের আঁচ পাওয়া গিয়েছিল জামাইষষ্ঠীর দিনই৷ জামাইয়ের পঞ্চ ব্যঞ্জনে থাবা বসিয়েছিল ভ্যাপসা গরম৷ আর শনিবার সকাল থেকেই দুর্বিষহ পরিস্থিতি৷ ফ্যান-এসির মধ্যে বসেও ঘাম শুকোচ্ছে না৷ প্যাচপ্যাচে গরমে ঘেমে নেয়ে একাকার শহরবাসী৷ এদিকে বেশ কয়েক দিন গরমের ছুটির পর সোমবারই খুলছে স্কুলগুলি৷ তার আগে ফের এই তীব্র গরমের চোখরাঙানিতে কপালে চিন্তার ভাঁজ অভিভাবকদের৷ রাজ্যে বর্ষা কবে ঢুকবে সে বিষয়েও নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছে না হাওয়া অফিস৷

এর আগে তীব্র দাববাহের কারণে পড়ুয়াদের কথা মাথায় রেখে স্কুলগুলিতে নির্ধারিত সময়ের আগেই গরমের ছুটি ঘোষণা করে রাজ্য সরকার৷ তারপর মাত্র দু’দিন স্কুল খোলা থাকার পর পরিস্হিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় ছুটির মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়৷ সেই ছুটি শেষ হচ্ছে ১২ জুন রবিবার৷ ১৩ তারিখ থেকে স্কুল খোলার কথা৷ আর তার আগে শনিবার গরমে রীতিমতো হাঁসফাঁস দশা৷ বাতাসে আর্দ্রতা বৃদ্ধির কারণে পরিস্থিতি আরও ঘোরালো হয়েছে৷ তবে এই গরমের কারণ যে অত্যধিক তাপমাত্রা তেমনটা নয়৷

আজ কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকার তাপমাত্রা ৩৭ ডিগ্রির আশপাশে ঘোরাফেরা করেছে৷ যা কি না স্বাভাবিকের থেকে মাত্র তিন ডিগ্রি বেশি৷ এই অস্বস্তিকর পরিস্থিতির জন্য আসল ভিলেন অস্বস্তিসূচক৷ বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যাওয়ায় বেড়েছে অস্বস্তি সূচকের পরিমাণও৷ এদিকে রাজ্যে কবে বর্ষা ঢুকবে সে নিয়ে কিছু আশার কথা শোনাতে পারছে না হাওয়া অফিস৷ কেরলে বর্ষা ঢুকলেও আপাতত ধীরগতিতে সেখানেই দাঁড়িয়ে রয়েছে সে৷ ওড়িশা উপকূলে বর্ষা কবে ঢুকবে তা নিয়ে নিশ্চিতভাবে কিছু বলা যাচ্ছে না৷ তাছাড়া রাজ্যে এখনও প্রাক বর্ষার বৃষ্টি শুরু হয়নি৷ যদিও আবহাওয়াবিদরা মনে করেন, প্রতিবারই রাজ্যে বর্ষা ঢোকার আগে এই ধরনের পরিস্থিতি তৈরি হয়৷ বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বাড়তে থাকে৷ রাজ্যে প্রাক বর্ষার বৃষ্টি না হলে নিস্তার পাওয়ার কোনও আশা নেই৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement