২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৫ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

স্থিতিশীল করোনা আক্রান্ত গায়ত্রী দেবী, শিশির অধিকারীকে ফোন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: September 25, 2020 9:45 pm|    Updated: October 1, 2020 4:06 pm

An Images

কৃষ্ণকুমার দাস: করোনা আক্রান্ত পরিবহণ ও সেচ-জলসম্পদ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর শারিরীক অবস্থা স্থিতিশীল। শুক্রবার আর জ্বর আসেনি মন্ত্রীর। কোভিডের নতুন কোনও উপসর্গ না থাকায় চিকিৎসকের পরামর্শে তিনি কোলাঘাটের সরকারি গেস্ট হাউজে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন। কলকাতার নামী বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি মন্ত্রীর মা গায়ত্রী অধিকারীর শারিরীক অবস্থারও উন্নতি হয়েছে বলে এদিন বিশেষজ্ঞ ডাঃ শ্যামাসিস বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন। টেলি কনফারেন্সের মাধ্যমে পরিবহণমন্ত্রীরও চিকিৎসায় নজরদারি চালাচ্ছেন ডাঃ বন্দ্যোপাধ্যায়।

[আরও পড়ুন: বরফজমা প্যাকেটজাত মাছ-মাংসেও মিলল করোনার হদিশ, নতুন করে আতঙ্কিত চিন]

বেসরকারি হাসপাতালের মেডিক্যাল ডিরেক্টর শ্যামাসিসবাবু সন্ধ্যায় জানিয়েছেন,“মন্ত্রীর নতুন করে জ্বর আসেনি, ভাল আছেন। বলেছি, ফের জ্বর এলে বা অন্য কোনও উপসর্গ হলে তবেই হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে। আর গায়ত্রী দেবীর কাল রাতে অক্সিজেন সার্পোট দিতে হলেও শুক্রবার বিকেলে আর দরকার হয়নি।” মন্ত্রীর চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা আধিকারিকরা জানিয়েছেন, শুভেন্দুবাবুর অক্সিজেন মাত্রা ৯৯ শতাংশ এবং জ্বর বা অন্য অসুস্থতা নেই। স্বাভাবিক খাবার খেয়েছেন, বিশ্রামে রয়েছেন। এদিন প্রবীণ সাংসদ শিশির অধিকারীকে ফোন করে করোনা আক্রান্ত গায়ত্রী দেবী ও শুভেন্দুর চিকিৎসার খবর নেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

করোনা কালের শুরু থেকেই লকডাউনের জেরে অসহায় লক্ষ লক্ষ মানুষকে গত পাঁচ মাসে কয়েক’শ লরি খাদ্যসামগ্রী নানা জেলায় দফায় দফায় পাঠিয়েছেন শুভেন্দু। আমফানে ক্ষতিগ্রস্তদের দু’লক্ষ ত্রিপল বিলি করেছেন। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নানা হাসপাতালে করোনা চিকিৎসার আধুনিক সরঞ্জাম, ওষুধ-পথ্য বারে বারে পাঠিয়ে করোনা আক্রান্তদের সুস্থতার ব্যবস্থা করে নিজেকে এক অন্যন্য কোভিড যোদ্ধা হিসাবে তুলে ধরেছিলেন তিনি। পরিবারে কর্মরত এক পরিচারক কোভিড আক্রান্ত গোপন করায় মা ও ছেলে সংক্রমিত হয়েছেন বলে অধিকারী পরিবার সূত্রে খবর। তবে নন্দীগ্রামের সেনাপতি শুভেন্দু কোভিড আক্রান্ত হওয়ার খবরে এদিন দুই মেদিনীপুর ছাড়াও বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, মুশির্দাবাদ, মালদহ-সহ নানা জেলায় তৃণমূল নেতা-কর্মীদের মধ্যে উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়ে। সোশ্যাল মিডিয়ায় পরিবহণ মন্ত্রীর দ্রুত আরোগ্য কামনা করে হাজার হাজার কর্মীর আকুল-আর্তি আঁছড়ে পড়ে। তমলুকের সুপ্রাচীন মহাপ্রভু মন্দিরেও শুভেন্দুর মঙ্গলকামনায় হয় বিশেষ যজ্ঞ ও পুজাপাঠ। মন্দিরের মূল গর্ভগৃহে সারাদিন ধরে চলে নাম জপ। ১০০৮ সচন্দন তুলসীপত্র সমর্পণ হয় মহাপ্রভুর কাছে। সঙ্গে হয়েছে শ্রীশ্রী আদি নৃসিংহ দেবের বিশেষ পূজা। শুভেন্দুর দ্রুত আরোগ্য চেয়ে হয় মহাপ্রভুর ষোড়শোপচার পুজা, শাস্ত্রপাঠ, নৃসিংহাভিষেক-সহ ধর্মীয় নানা রীতি-অনুষ্ঠান। পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম ও খড়গপুরের একাধিক মন্দিরে দলীয় নেতা ও কর্মীরা মন্ত্রীর সুস্থতা কামনায় পুজোপাঠ ও যজ্ঞের আয়োজন করেন। নন্দীগ্রাম, পাঁশকুড়া, হলদিয়া থেকে শুরু করে মুশির্দাবাদ ও মালদহের অনেক মসজিদে জুম্মার নমাজের পর শুভেন্দুর দ্রুত আরোগ্য কামনায় বিশেষ প্রার্থনা হয়।

[আরও পড়ুন: ট্রাম্প, নেতানিয়াহুর পর নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement