১৭  শ্রাবণ  ১৪২৯  রবিবার ৭ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

পানিহাটি মেলায় দুর্ঘটনায় প্রাণহানি, মৃতদের পরিবারকে আর্থিক সাহায্য ঘোষণা রাজ্য প্রশাসনের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: June 12, 2022 5:42 pm|    Updated: June 12, 2022 8:45 pm

West Bengal Government announces financial help to families of deceased at Panihati fair | Sangbad Pratidin

অর্ণব দাস, বারাকপুর: পাঁচশো বছরের পুরনো ধর্মীয় উৎসবে অংশ নিয়ে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। উত্তর ২৪ পরগনার পানিহাটিতে (Panihati) দই-চিঁড়ে উৎসবে প্রচণ্ড গরমে অন্তত ৩ জনের মৃত্যু হল। অসুস্থ হয়ে আরও অনেকেরই ভরতি হাসপাতালে। তাঁদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে হাসপাতাল সূত্রে খবর। খবর পেয়েই নিহতদের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে প্রশাসন। ইতিমধ্যে প্রশাসনের তরফে মৃতদের পরিবার পিছু ২ লক্ষ টাকা করে সাহায্য ঘোষণা করা হয়েছে। এদিকে, মেলায় চরম বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সামলাতে তৎক্ষণাৎ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে গোটা বিষয়টি সরেজমিনে দেখছেন।

পানিহাটিতে গঙ্গা তীরবর্তী মহোৎসবতলা ঘাটে দণ্ড মহোৎসব পালিত হয় ৫০৫ বছর ধরে। কথিত আছে, এই জায়গা থেকে দই-চিঁড়ে খেয়ে শ্রীচৈতন্যদেব রওনা দিয়েছিলেন শ্রীকৃষ্ণের সন্ধানে। সেই তিথিতে পানিহাটির এই জায়গায় বসে দই-চিঁড়ে মেলা। মাঝে করোনার প্রকোপে ২ বছর ধরে বন্ধ ছিল এই উৎসব। তাই এবছরের অনুষ্ঠান ঘিরে উৎসাহ ছিল অনেক বেশি। তা আঁচ করে আগে থেকে প্রশাসন প্রস্তুতিও নিয়ে রেখেছিল। কিন্তু সকাল থেকেই কাতারে কাতারে মানুষ মেলায় আসছিলেন। লক্ষ লক্ষ জনসমাগম হয়। বেলা বাড়তেই গরম ও আর্দ্রতা বেড়েছিল মারাত্মক। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভিড় বাড়তে থাকায় মেলার মধ্যে পদপিষ্ট হওয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। সেখানেই অসুস্থ হয়ে মৃত্যু হয় তিনজনের।

[আরও পড়ুন: কীটনাশক খাইয়ে ১৪ টি সারমেয়কে খুন! অভিযুক্তের শাস্তির দাবিতে দফায় দফায় বিক্ষোভ বনগাঁয়]

খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছেছিলেন পানিহাটির বিধায়ক নির্মল ঘোষ। পরে সেখানে যান আরেক বিধায়ক পার্থ ভৌমিক, সাংসদ সৌগত রায়, রাজ্যের মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক (Jyotipriya Mullick)। মেলায় আসা পুণ্যার্থীদের সঙ্গে কথা বলে সমস্ত বিষয়টি বোঝার চেষ্টা করেন। জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানান, সানস্ট্রোকে মৃত্যু হয়েছে তিনজনের। আরও কয়েকজনের মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে। তিনি আরও জানান, ২, ৩ লক্ষ মানুষের জমায়েত হবে, সেই আঁচ করে তেমন ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কিন্তু আন্দাজের তুলনায় অনেক বেশি মানুষ ভিড় করেন মেলায়। তাতেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

পানিহাটির মেলায় মৃত্যুর খবর পেয়েই মুখ্যমন্ত্রী টুইট করে শোকপ্রকাশ করেছিলেন। ইসকন মন্দিরের কলকাতার ভাইস প্রেসিডেন্ট রাধারমণ দাসকে ফোন করে তিনি কথাও বলেন। জানতে চান, মেলার ব্যবস্থা কেমন ছিল? পুণ্যার্থীদের সুরক্ষায় কী কী ব্যবস্থা ছিল? তারপর তাঁর নির্দেশে রাজ্য প্রশাসনের তরফে মৃতদের পরিবার পিছু ২ লক্ষ টাকা করে সাহায্য ঘোষণা করেন। দুর্ঘটনার জেরে বন্ধ হয়ে গিয়েছে পানিহাটি থেকে কোন্নগর ফেরি চলাচলও।

[আরও পড়ুন: আদালতের নির্দেশের পরও পুলিশি নিরাপত্তা দিতে ‘ঘুষ’ চাওয়ার অভিযোগ, কাঠগড়ায় হরিদেবপুরের ওসি]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে