২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অভিন্ন সিলেবাস চায় রাজ্য সরকার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 14, 2016 9:33 am|    Updated: June 14, 2016 9:33 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: রাজ্যের সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলির পঠনপাঠনের ধারাকে একসূত্রে বাঁধতে উদ্যোগী হল উচ্চশিক্ষা দফতর৷ এজন্য সমস্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে অভিন্ন সিলেবাসে পঠনপাঠন চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানালেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ তিনি জানান, সর্বভারতীয় স্তরের সঙ্গে সামঞ্জস্য বজায় রেখেই এই সিলেবাস তৈরি করা হবে৷ স্কুলশিক্ষার ধাঁচেই তৈরি করা হচ্ছে একটি সিলেবাস কমিটি৷ বিভিন্ন বিশেষজ্ঞ, শিক্ষাবিদদের নিয়ে এই কমিটি তৈরি করা হবে৷ মতামত নেওয়া হবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলির৷ কমিটি কাজ শুরু করার পর তিন-চার মাসের মধ্যে অভিন্ন সিলেবাসের খসড়া জমা দেবে৷ ওই খসড়া রিপোর্ট খতিয়ে দেখবে উচ্চশিক্ষা দফতর৷ এর পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুমোদন মিললে অভিন্ন সিলেবাসে পঠনপাঠন চালু করা হবে৷ তবে এক্ষেত্রে কোনওভাবেই বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বশাসনে হস্তক্ষেপ করা হবে না বলেও এদিন স্পষ্টভাবে জানান শিক্ষামন্ত্রী৷ তিনি বলেন, চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে সবপক্ষের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমেই৷ সেক্ষেত্রে একটি গাইডলাইন নির্দেশ করে দেওয়া হতে পারে৷ যদিও বিষয়টি পুরোটাই আলোচনাসাপেক্ষ৷
পার্থবাবুর কথায়, বিজ্ঞান কিংবা ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়গুলিতে এমন সিলেবাস তৈরি করা তুলনামূলকভাবে সহজ৷ কিন্তু কলা বিভাগে কীভাবে এমন সিলেবাস চালু করা যায় সেদিকে জোর দিতে হবে৷ এদিকে রাজ্যের কলেজগুলিতে এখন অনলাইনে ছাত্রভর্তি চলছে৷ অনেক ছাত্রই একাধিক কলেজে ভর্তি হয়ে থাকেন৷ সেক্ষেত্রে যে কলেজগুলিতে তিনি পড়বেন না সেখান থেকে পরে ভর্তির জন্য জমা করা টাকা ফেরত পেতে সমস্যায় পড়েন ছাত্ররা৷ বহু ক্ষেত্রে ওই টাকা আর ফেরত পান না তাঁরা৷ পড়ুয়ারা যাতে দ্রুত ওই টাকা পেয়ে যান সেজন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে নজর রাখার বিষয়ে এদিন বার্তা দেন পার্থবাবু৷ শিক্ষামন্ত্রী এদিন আরও জানান, রাজ্যে শিক্ষার গুণগত মান বজায় রাখা প্রয়োজন৷ এক্ষেত্রে উচ্চমানের পঠনপাঠন, পড়ুয়াদের ক্লাসমুখী করা, ক্লাসের প্রতি আকর্ষণ বাড়ানোর দিকে নজর দিতে হবে৷ উচ্চশিক্ষাক্ষেত্রে শারীরিকভাবে অক্ষম ছাত্র-ছাত্রীদের সবরকমের সুযোগ-সুবিধা দিতে হবে৷ র‍্যাগিং রুখতে কড়া পদক্ষেপ করতে হবে৷ ক্যাম্পাসে যেকোনও ধরনের যৌন নিগ্রহের ঘটনা প্রতিহত করতে পোস্টারের মাধ্যমে প্রচার করা হবে৷ বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ পরিদর্শকদের এ বিষয়গুলির উপর আরও বেশি নজর দিতে হবে৷ কলেজগুলি পরিদর্শন করে তাঁরা যাবতীয় রিপোর্ট জমা দেবেন উচ্চশিক্ষা দফতরের কাছে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement