২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ৮ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

স্বামীর দ্বিতীয়পক্ষের শিশুসন্তানকে চুরির চেষ্টা, ল্যাম্পপোস্টে বেঁধে মহিলাকে গণপ্রহার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: May 23, 2018 2:31 pm|    Updated: May 23, 2018 2:31 pm

Birbhum: woman caught red handedly, while trying to steal a baby

নন্দন দত্ত, সিউড়ি: স্বামীর দ্বিতীয়পক্ষে শিশুসন্তানকে চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ে গেল এক মহিলা। ল্যাম্পপোস্টে বেঁধে চলল বেধড়ক মারধর। গণপ্রহারের পর অভিযুক্তকে পুলিশের হাতে তুলে দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। বুধবার ভোরে ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের দুববাজপুরে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, আগেও শিশু চুরি করেছে ওই মহিলা। তিনি মানসিকভাবে সুস্থ কিনা, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

[জমি বিবাদের জের, মায়ের সামনেই যুবককে কুপিয়ে মারল দুই দাদা]

অভিযুক্ত মহিলার নাম আলিয়া। বছর সাতেক আগে সিউড়ির বাসিন্দা ওই মহিলার সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল দুবরাজপুরের শেখ সনিরের। কিন্তু, সন্তানের জন্মের পরই স্বামী-স্ত্রীর অশান্তি শুরু হয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, নিজের সন্তানকে খুন করে শেখ সনির। জেলেও খেটেছে সে। এদিকে, এই ঘটনার পর আলিয়া ও সনিরের বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে যায়। দ্বিতীয়বার নাজমা নামে এক মহিলাকে বিয়ে করে সনির। ওই দম্পতির শিশুপুত্রের বয়স ২ বছর।

[গোয়ালঘরে ডিম পাহারা দিচ্ছে চন্দ্রবোড়া সাপ! আতঙ্ক ছড়াল গ্রামে]

দুবরাজপুরের হাজিপাড়ায় দ্বিতীয় স্ত্রী নাজমা ও শিশুপুত্রকে নিয়ে থাকে শেখ সনির। স্থানীয় বাসিন্দা জানিয়েছেন, বুধবার কাকভোরে পাঁচিল টপকে বাড়িতে ঢোকে আলিয়া। ছেলেকে পাশে নিয়ে তখন ঘুমোচ্ছিলেন নাজমা। চুপিসারে শিশুটিকে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করে আলিয়া। কিন্তু, গ্রামবাসীরা তাকে দেখে ফেলেন। শিশুটিকে উদ্ধার করার পর, শেখ সনিরের বাড়িতে ল্যাম্পপোস্টে বেঁধে ফেলা হয় আলিয়াকে। শুরু হয় গণপ্রহার। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় দুবরাজপুর থানার পুলিশ। অভিযুক্তকে পুলিশের হাতে তুলে দেন গ্রামবাসীরা। তাঁদের অভিযোগ, এরআগেও শিশু চুরি করেছে আলিয়া। এদিকে আবার তার মানসিক স্থিতি নিয়ে সন্দিহান পুলিশকর্মীরা।

ছবি: বাসুদেব ঘোষ

[সেবাই ধর্ম, বিনা পরিশ্রমিকে রোজ রাতে মসজিদ পাহারা দেন হিন্দু যুবক]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে