Advertisement
Advertisement
Bye Election

লোকসভায় হারের পরও মুকুটে আস্থা! রানাঘাট দক্ষিণের উপনির্বাচনে তৃণমূলের প্রার্থী কে?

মুকুটের পাশপাশি স্থানীয় আরও একাধিক প্রভাবশালীর নাম উঠে আসছে মতুয়াগড়ের ওই কেন্দ্রের জন্য।

Who will be TMC candidate for bye election in Ranaghat South assembly
Published by: Subhankar Patra
  • Posted:June 12, 2024 5:14 pm
  • Updated:June 13, 2024 1:53 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লোকসভা নির্বাচন শেষ হতেই ফের ভোটের দামাদা রাজ্যে। বাংলার চারটি বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন হতে চলেছে আগামী মাসের ১০ তারিখ। চারটি বিধানসভার মধ্যে রয়েছে রানাঘাট দক্ষিণ বিধানসভা। ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্রে নিজেদের প্রভাব বজায় রাখে গেরুয়া শিবির। পদ্ম প্রতীকে দাঁড়িয়ে জয় পান মুকুটমণি অধিকারী। তবে সদ্য লোকসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূলে যোগ দিয়ে নির্বাচন লড়েন মুকুট। তার ছেড়ে আসা আসনেই এবার উপনির্বাচন। তবে ঘাসফুল শিবিরের প্রার্থী কে হবেন? তা নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে।

ঘাসফুল (TMC) শিবিরে নাম লেখানোর আগে রানাঘাট দক্ষিণের প্রাক্তন বিধায়ক মুকুট ১৬,৫১৫ ভোটে হারিয়েছিলেন তৃণমূলের প্রার্থী বর্ণালী দেকে (Barnali Dey)। এখন রাজনৈতিক পরিস্থিতি বদলে গিয়েছে। এক সময়ের প্রতিদ্বন্দ্বী দুজনেই এখন শাসকদলে। তবে তাঁদের মধ্যে মোটেই সখ্য নেই বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। উপনির্বাচনের টিকিট পাওয়ার দৌড়ে দুজনেরই নাম শোনা যাচ্ছে। দলের একটি অংশ চাইছেন, থেকে বর্ণালীকে ফের প্রার্থী করা হোক। বর্ণালী বর্তমানে নদিয়া জেলা পরিষদের সদস্যা ও দক্ষিণ নদিয়া জেলা মহিলা তৃণমূলের সভানেত্রীও বটে। এছাড়াও তাঁর স্বামী আনন্দ দে রানাঘাট (Ranaghat) পুরসভার উপ-পুরপ্রধান। এমনকী লোকসভা নির্বাচনে (2024 Lok Sabha) পুরসভার মধ্যে আনন্দের ওয়ার্ড থেকেই মুকুটমণি লিড পেয়েছিলেন। দলের একাংশ আবার বর্ণালীকে প্রার্থী ধরে নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে (Social Media) পোস্টও করছেন।

Advertisement

[আরও পড়ুন: আচমকা ভেঙে পড়ল চলন্ত উত্তরবঙ্গ এক্সপ্রেসের এসি! বরাতজোড়ে রক্ষা যাত্রীদের]

অন্যদিকে, মুকুটের সর্মথনেও অন্য অংশ সুর চড়াচ্ছে। লোকসভা নির্বাচনের পর দলের বৈঠকে খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) মুকুটের প্রংশসা করে তাঁকে বিশেষ দায়িত্ব দেওয়ার কথা বলেছেন বলে জেলা রাজনীতিতে চর্চা। সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে, রানাঘাট দক্ষিণের জন্য মুকুটমণি অধিকারী (Mukut Mani Adhikari) নাম প্রাথমিক বাছাই তালিকায় রয়েছে। এ নিয়ে তৃণমূলের অন্দরেও আলোচনা চলছে। হেরে যাওয়ার এক মাসের মধ্যে তাঁকে প্রার্থী করা হলে সাধারণের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া তৈরি হবে না তো? তাছাড়া লোকসভায় মুকুটমণি নিজের বিধানসভা কেন্দ্রেও ২৭ হাজার ভোটে পিছিয়ে ছিলেন। তাই স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের মত নেওয়ার পরই চূড়ান্ত ঘোষণা হবে বলে খবর।

Advertisement

এছাড়াও, কান পাতলে শোনা যাচ্ছে টিকিট পাওয়ার দৌড়ে রয়েছেন এলাকার প্রাক্তন বিধায়ক তথা দাপুটে নেতা শংকর সিংহের (Shankar Singh) পুত্রবধূ ও রাজ্য তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সহ-সভাপতি শুভঙ্কর সিংহের (Subhankar Singh) স্ত্রী শুচিস্মিতা সিংহ বিশ্বাস। তিনি আবার জেলা পরিষদের সদস্যা ও দক্ষিণ নদিয়া জেলা মহিলা তৃণমূলের সহ-সভানেত্রীও বটে। এছাড়াও অনেকে মনে করছেন লোকসভা নির্বাচনে প্রথমে যাঁকে প্রার্থী করা হবে বলে ঠিক ছিল সেই অতীন্দ্রনাথ মণ্ডলকে প্রার্থী করা হতে পারে। এবার দেখার বিষয়, টিকিট পাওয়ার ইঁদুর দৌড়ে এই নামগুলোর মধ্যে কাউকে প্রার্থী করা হয়, নাকি গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের আশঙ্কা ওড়াতে বাইরে থেকে কাউকে এনে প্রার্থী করা হয়। 

[আরও পড়ুন: বিফলে ‘বিজেমূল’ তত্ত্ব! প্রধান শত্রু নির্বাচনে ভুলই ডুবিয়েছে বামেদের?]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ