৭ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২১ মে ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও #IPL12 ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নির্বাচন ‘১৯

৭ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২১ মে ২০১৯ 

BREAKING NEWS

জ্যোতি চক্রবর্তী, বনগাঁ:  অশরীরী ভর করেছে। এই অভিযোগে এক বধূকে মারধরের অভিযোগ উঠল এক গুণিনের বিরুদ্ধে। শুক্রবার চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার গাইঘাটা এলাকায়। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই ওই মহিলার বাড়িতে যান বিজ্ঞান মঞ্চের সদস্যরা। দ্রুত ওই মহিলাকে চিকিৎসা করানোর পরামর্শও দিয়েছেন তাঁরা। 

[আরও পড়ুন:   সূর্যের তেজের দোসর তীব্র আর্দ্রতা, আগামিকাল অস্বস্তি চরমে ওঠার পূর্বাভাস হাওয়া অফিসের]

বিশাল উঠোন। মাঝখানে বসে এক মহিলা। তাঁর চারপাশে ভিড় করে রয়েছেন গ্রামের বহু মানুষ। ঝাঁটা দিয়ে বধূকে মারধর করছেন এক ব্যক্তি। শুক্রবার বিকেলে এই ছবি দেখা যায় উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁর গাইঘাটা এলাকায়। জানা গিয়েছে, মাস চারেক আগে বছর ১৮-এর ওই তরুণীর বিয়ে হয় গাইঘাটার এক যুবকের সঙ্গে। বৃহস্পতিবার স্বামীর সঙ্গে জলেশ্বরে একটি বিয়েবাড়িতে গিয়েছিলেন তিনি। অভিযোগ, সেখান থেকে ফেরার পথে হঠাৎই অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করেন ওই মহিলা। মাঝপথে গাড়ি থেকে নেমে বাঁশবাগানে চলে যাওয়ার চেষ্টাও করেন তিনি। কোনওক্রমে স্ত্রীকে নিয়ে বাড়ি ফেরেন ওই ব্যক্তি।

[আরও পড়ুন:  ফলের আগে সরগরম পুরুলিয়ার বেটিং বাজার, পছন্দের প্রার্থীকে নিয়ে লক্ষাধিক টাকার বাজি]

বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই স্থানীয়রা বলতে শুরু করে অশরীরী ভর করেছে ওই মহিলার উপর। সেই কারণেই এই ঘটনা। এরপরই মহিলার স্বামীকে ওঝার দ্বারস্থ হওয়ার পরামর্শ দেন স্থানীয়রা। এরপর শুক্রবার বিকেলে অশরীরীকে উৎখাত করতে ওই মহিলার বাড়িতে হাজির হন শুকদেব মণ্ডল  নামে এক ব্যক্তি। তিনি গুনিন বলেই এলাকায় পরিচিত। অভিযোগ, ‘ভূত’ তাড়াতে ওই ব্যক্তি ঝাঁড়ফুক শুরু করেন।  ঝাঁটা, লাঠি দিয়ে মারধরের পাশপাশি মহিলাকে লাথিও মারেন তিনি। একটা সময়ের পর অচৈতন্য হয়ে পড়েন ওই মহিলা। স্থানীয়দের দাবি, এরপর জ্ঞান ফিরতেই তাঁর অসংলগ্নতা কেটে যায়। কিন্তু শনিবার সকাল থেকে ফের অসংলগ্ন কথাবার্তা বলতে শুরু করেন ওই মহিলা। ইতিমধ্যেই ওই গুণিনের বিরুদ্ধে গাইঘাটা থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। 

জানা গিয়েছে, ঝাঁড়ফুকের বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই ওই মহিলার বাড়িতে গিয়েছেন বিজ্ঞান ও যুক্তিবাদী সমিতির সদস্য প্রদীপ সরকার-সহ বেশ কয়েকজন। তাঁরা ওই মহিলার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ কথা বলেন। তাঁরা বোঝান যে, এটা অসুখ।  তাঁদের দাবি, বয়ঃসন্ধির মেয়েদের এমন সমস্যা হতেই পারে৷ এটা সম্পূর্ণ বৈজ্ঞানিক কারণ৷কোনও ওঝা, গুণিন নয়, একমাত্র সঠিক চিকিৎসার মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান সম্ভব।  কিন্তু আধুনিক বিজ্ঞানমনস্ক মানুষজনের এই বার্তা গাঁ-গঞ্জের বাসিন্দারা কতটা যুক্তি দিয়ে বুঝবেন, তা বলা সহজ নয়৷

দেখুন ভিডিও:

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং