BREAKING NEWS

১৭  মাঘ  ১৪২৯  বুধবার ১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

পঞ্চায়েত ভোটে হস্তক্ষেপ নয়, সুপ্রিম কোর্টের রায়ে মুখ পুড়ল বিজেপির

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 9, 2018 10:52 am|    Updated: June 6, 2019 2:03 pm

Won’t interfere in West Bengal Panchayat polls: SC

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একবুক আশা নিয়ে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয় রাজ্য বিজেপি। পঞ্চায়েত নির্বাচনে কেন্দ্রীয় বাহিনী, অনলাইনে মনোনয়ন জমা ও মনোনয়নের মেয়াদ বাড়ানো-সহ একগুচ্ছ দাবিতে সুপ্রিম কোর্টের হস্তক্ষেপ চেয়েছিল বিজেপি। কিন্তু সোমবার সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিল, পঞ্চায়েত নির্বাচনে আদালত হস্তক্ষেপ করবে না। যদি কোনও প্রার্থীর ব্যক্তিগত কোনও অভিযোগ থাকে, তিনি যেন নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হন।

[পঁচাত্তরেও প্রার্থী অজিত কুম্ভকার, বাড়িতে এসে আশীর্বাদ নিয়ে যাচ্ছেন বিরোধীরা]

আদালতের এদিনের রায়ে শুধু রাজ্য নয়, সামগ্রিক বিজেপিরই মুখ পুড়ল বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশ। আদালতের পর্যবেক্ষণ, নির্বাচনের বিজ্ঞপ্তি জারি হয়ে গিয়েছে। মনোনয়নপত্র জমা নেওয়া হচ্ছে, নির্বাচনী আচরণবিধি লাগু হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে দেশের কোনও আদালতই নির্বাচন প্রক্রিয়ায় হস্তক্ষেপ করতে পারে না। আদালতের রায়ে খুশির হাওয়া তৃণমূলে। দলের সাংসদ ও আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় বলছেন, ‘রাজ্য সরকার একাই বিজেপির সবকটা উইকেট ফেলে দিয়েছে। বিজেপি কেন্দ্রীয় বাহিনী চেয়েছিল, আদালত খারিজ করে দিয়েছে। অনলাইনে নমিনেশন ফাইল করতে চেয়েছিল, আদালত না বলেছে। আদালত বলেছে, আমরা নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় হস্তক্ষেপ করব না। কারও যদি কোনও অভিযোগ থাকে, তাহলে নির্বাচন কমিশনকে জানাক।’ সবমিলিয়ে বিজেপির একটিও দাবি শীর্ষ আদালত মেনে নেয়নি বলেই দাবি কল্যাণবাবুর।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের গলাতেও এদিন হতাশার সুর। তাঁর অভিযোগ, ‘প্রশাসন অশান্তি করছে। বিজেপি প্রার্থীদের উপর জেলায় জেলায় হামলা হচ্ছে। আমরা কমিশনের কাছে বারবার গিয়েছি। রাজ্যপালকেও অভিযোগ জানিয়েছি। কিন্তু সুরাহা না মেলায় আদালতের দ্বারস্থ হই। নির্বাচন কমিশনার নিজেই প্রথম থেকে কেন্দ্রীয় বাহিনী চাইছেন, কিন্তু রাজ্য দিচ্ছে না।’ আদালতের রায়কে অবশ্য হার বলে মানতে নারাজ দিলীপবাবু। দলীয় কর্মীদের মনোবল বাড়াতে তাঁর দাওয়াই, বিজেপি নিজের শক্তিতেই নির্বাচনে লড়বে। বিজেপির আইনজীবী পার্থ ঘোষ বলেন, ‘আদালতের রায় মানতেই হবে। তবে আদালত নির্বাচন কমিশনের কোর্টে বল ঠেলে দিয়েছে। ওরাই পুরোটা দেখবে। আদালত হস্তক্ষেপ করবে না।’

[দেওয়ালে ছড়ায় ছড়ায় ভোটের প্রচার, বিরোধীদের গোল দিচ্ছে তৃণমূলই]

আদালতের রায় মোতাবেক আজ একগুচ্ছ অভিযোগ নিয়ে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের দপ্তরে যাচ্ছে বিজেপি। দিলীপ ঘোষ একথা জানিয়ে বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন নিজেই কেন্দ্রীয় বাহিনী চাইছে। জেলায় জেলায় আমাদের কর্মীদের মারছে শাসক দল। পুলিশ দাঁড়িয়ে দেখছে। কখনও তো পুলিশও শাসক দলের গুণ্ডাদের মতো আচরণ করছে। কোথাও গিয়ে এর সুরাহা হয়নি। তাই আদালতে গিয়েছিলাম। আজ নির্বাচন কমিশনে যাব।’ এদিকে আদালতের রায়ে শাসক দলে খুশি রাজ্যের আইনজীবী কল্যাণবাবুর কটাক্ষ, ‘বিজেপিকে শূন্য হাতে ফিরে যেতে হল। রাজ্য সরকার ওভার বাউন্ডারি মারল। বিজেপির মামলা খারিজ করে দিল সুপ্রিম কোর্ট। আদালত জানিয়েছে, যতক্ষণ না রাজ্য নির্বাচন কমিশন বলছে, আমি ভোট করাতে পারছি না, ততক্ষণ সাংবিধানিক দায়বদ্ধতার জন্য হস্তক্ষেপ করতে পারে না শীর্ষ আদালত।’

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে