১৭ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শনিবার ৪ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

ব্লক স্তরে ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচির দায়িত্বে যুব সভাপতিরা, ক্যানিং থেকে শুরু জনসংযোগ

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: September 6, 2019 7:34 pm|    Updated: September 6, 2019 7:34 pm

Youth leadership of Block TMC starts 'Didik Bolo' capmpaign from Canning

দেবব্রত মণ্ডল, বারুইপুর: সাংসদ, বিধায়কদের পর এবার ব্লক সভাপতিদেরও জনসংযোগে জোর দিলেন যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার ক্যানিং ১ ব্লক থেকে শুরু হল ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি। এদিন প্রতিটি ব্লকের যুব সভাপতিরা ঘুরলেন এলাকায়। এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে, তাঁদের সমস্যার কথা শুনে, সমাধানের আশ্বাস দিয়ে গোটা দিন কাটালেন জনসংযোগে।

[আরও পড়ুন: মেয়ের নাবালিকা বান্ধবীকে ধর্ষণের অভিযোগে ধৃত এক ব্যক্তি, চাঞ্চল্য বনগাঁয়]

শুক্রবার ক্যানিং ১ নং ব্লকের যুব সভাপতি পরেশ দাসের নেতৃত্বের গোপালপুর গ্রাম থেকেই শুরু হল কাজ। অংশ নিয়েছেন ব্লকের সহ-সভাপতি অর্ণব রায়, মাতলা ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান উত্তম দাস, মাতলা ১নং পঞ্চায়েতের প্রধান হরেন ঘোড়ুই-সহ অন্যান্য নেতারা। বাড়ি বাড়ি গিয়ে সকলের সঙ্গে কথা বলেন তাঁরা। স্থানীয় প্রশাসনিক স্তরের নেতাদের কাছে পেয়ে অনেকেই জলের কল খারাপ থেকে রাস্তার বেহাল দশা নিয়ে অভিযোগ করেন। সবটা মন দিয়ে শুনে, সমাধানের আশ্বাস দেয় ব্লক নেতৃত্ব। পাশাপাশি স্থানীয়দের বাড়িতে গিয়ে গাছের চারাও বিলি করেন। পরিবেশ রক্ষার বার্তা দেন।

মাসখানেক আগে মুখ্যমন্ত্রীর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসনের সঙ্গে জনসংযোগে জোর দিতে ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি গ্রহণ করেন। চালু হয় একটি ফোন নম্বর। যে নম্বরে ফোন করে সরাসরি অভিযোগ জানানো যাবে মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তরে। এছাড়া বিধায়ক, সাংসদদের মতো জনপ্রতিনিধিরা নিজের নিজের এলাকায় ঘুরে সরাসরি এলাকাবাসীর সঙ্গে জনসংযোগে জোর দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। সেইমতো সকলেই কমবেশি
নিজের এলাকায় ঘুরে নিজেদের ‘ভিআইপি’ ইমেজ ছেড়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে রাত্রিযাপন করেন। এক মাস ধরে কর্মসূচি কেমন হল, তার রিপোর্ট নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। গোটা অপারেশনের নেপথ্যে থাকা নির্বাচনী কৌশলী প্রশান্ত কিশোরের টিম খুঁটিয়ে সাংসদ, বিধায়কদের পারফরম্যান্স দেখে রিপোর্ট পেশ করেছে। তাতে দেখা গিয়েছে, বেশিরভাগ জায়গায় ভাল প্রভাব পড়লেও, কোথাও কোথাও তেমন দাগ কাটতে পারেনি ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি।

[আরও পড়ুন: খিদের জ্বালায় রাজ্য সড়কে উঠে তাণ্ডব, শালবনিতে ত্রাস ছড়াল মূর্তিমান দাঁতাল]

এবার যেন সেই ফাঁকই পূরণ করতে আসরে নামলেন যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর নির্দেশ, শুধু বিধানসভা বা লোকসভা অঞ্চল ভিত্তিতেই নয়। ব্লকে ব্লকেও এভাবেই জনসংযোগ করতে হবে। যার দায়িত্ব বর্তেছে ব্লকের যুব সভাপতিদের উপর। আর অভিষেকের নির্দেশ মেনেই ঘরে ঘরে গিয়ে জনসংযোগের কাজ শুরু হল দক্ষিণ ২৪ পরগনায়।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে