BREAKING NEWS

১৫ মাঘ  ১৪২৮  শনিবার ২৯ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

করোনার জেরে চলতি বছর কর্মীদের বেতন বাড়ায়নি দেশের অধিকাংশ সংস্থাই, বলছে সমীক্ষা

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 24, 2020 6:28 pm|    Updated: August 24, 2020 9:58 pm

Average salary hike down to pittance in 2020 as only 40% Indian companies give increments

‌সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ করোনা (Corona) সংক্রমণে বিধ্বস্ত গোটা পৃথিবী। একদিকে বেড়ে চলেছে আক্রান্তের সংখ্যা। অন্যদিকে, জারি মৃত্যুমিছিল। শুধু স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নয়, ভেঙে পড়েছে বিশ্বের অর্থনীতিও। এর প্রভাব পড়েছে ভারতেও (India)। একের পর এক শিল্প ধুঁকছে। চাকরি নেই। বেকারত্বের হার গত ৪৫ বছরে সবচেয়ে বেশি। এবার তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে সংস্থাগুলোর কর্মী ছাঁটাই, বেতন কমিয়ে দেওয়া অথবা বেতন না বাড়ানোর মতো সিদ্ধান্তগুলো। সম্প্রতি একটি সমীক্ষায় সামনে এসেছে এমনই একটি তথ্য। ওই রিপোর্টে জানানো হয়েছে, দেশের ৪০ শতাংশ সংস্থা কর্মীদের বেতন বাড়িয়েছে।

[আরও পড়ুন: ‘সুপ্রিম কোর্টে ক্ষমা চাইলে বিবেকের অবমাননা হবে’, নিজের মন্তব্যে অনড় প্রশান্ত ভূষণ]

Deloitte Touche Tohmatsu India LLP— নামে একটি সংস্থার করা সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, চলতি বছরে দেশের মাত্র ৪০ শতাংশ সংস্থা নিজেদের কর্মীদের মাইনে বাড়িয়েছে। বাকি সংস্থাগুলোর মধ্যে ৩৩ শতাংশ মাইনে বাড়াবে না বলে ইতিমধ্যে জানিয়ে দিয়েছে। এবং বাকি সংস্থাগুলো এখনও এই ব্যাপারে কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি। অন্যদিকে, গত বছর যেখানে গড়ে বেতন বেড়েছিল ৮.‌৬ শতাংশ, সেখানে চলতি বছর বেতন বাড়ার গড় মাত্র ৩.‌৬ শতাংশ। এছাড়াও সমীক্ষায় আরও জানানো হয়েছে, কর্মীদের মাইনে বাড়ার গড় মাত্র ৭.‌৫ শতাংশ। মাত্র ১০ শতাংশ সংস্থাই কর্মীদের ১০%‌–এর বেশি মাইনে বাড়িয়েছে।

[আরও পড়ুন: ‘রাহুল কখনও বিজেপি যোগের কথা বলেননি’, বিবাদ ভুলে একসুর সিব্বল-আজাদদের]

এদিকে, কয়েকদিন আগেই আরও একটি ভয়ংকর সমীক্ষা সামনে এসেছিল। কর্মনাশা লকডাউনের জেরে কাজ হারিয়েছিলেন অসংগঠিত ক্ষেত্রের প্রায় কয়েক কোটি শ্রমিক। সংগঠিত ক্ষেত্রেও শিউরে ওঠা পরিসংখ্যান উঠে এসেছিল সেই সমীক্ষায়। সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ান ইকোনমির (CMIE) তথ্য অনুযায়ী, গত এপ্রিল মাস থেকে জুলাই পর্যন্ত চার মাসে প্রায় ১ কোটি ৮০ লক্ষ বেতনভুক কর্মী। তার মধ্যে জুলাই মাসেই কাজ হারিয়েছেন প্রায় ৫০ লক্ষ। আর দেশের এই সমস্ত পরিসংখ্যানই রীতিমতো উদ্বেগজনক বলেই মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে