৭  আশ্বিন  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

অটোর রাজত্বে সবাই রাজা, ভোগে কেবল প্রজা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: October 1, 2016 3:28 pm|    Updated: October 1, 2016 4:32 pm

Autocracy of auto of Kolkata

অটোর এই ‘অটোক্রেসি’র দায় কী শুধুই সরকারের? না আমাদেরও? উত্তর খুঁজলেন সুপর্ণা মজুমদার৷

উল্টোডাঙা মোড়ে দাঁড়িয়ে ব্যানার্জীবাবু৷ শোভাবাজার যাবেন৷ বাসগুলোর একটাতেও ওঠার উপায় নেই৷ ওইতো দুটো অটো দাঁড়িয়ে৷

  • দাদা শোভাবাজার যাবে নাকি?
  • না, এখন হবে না৷
  • হবে না মানে?
  • হবে না, মানে হবে না৷ আগে দেখুন৷
  • দাদা আপনি যাবেন?
  • কোথায়?
  • শোভাবাজার৷
  • ২০ টাকা লাগবে৷
  • আরে! কেন? ভাড়া তো ১০ টাকা৷
  • যেতে হলে চলুন৷ না হলে দাঁড়িয়ে থাকুন৷

                               এটাই অটোর রাজত্ব৷ এই খানে সবাই রাজা৷ রাজা যা চাইবে প্রজাকুলকে তাই করতে হবে৷ প্রজা কারা? যাদের কই মাছের প্রাণ৷ ঝড়-জল-বৃষ্টি উপেক্ষা করে যারা রোজ রাস্তায় নামেন কোথাও একটা পৌঁছতে৷ ভারতবর্ষে জন্ম হওয়া অবধি এনাদের ‘অ্যাডজাস্ট’ শব্দটি মজ্জাগত৷ ৯ থেকে ১২ কামরার ট্রেন, পাবলিক বাস থেকে অটো – সবেতেই মানিয়ে নিতে এঁরা সিদ্ধহস্ত৷

চার জনের সিট! তাতে কী? দাদা, দিদি কিংবা বৌদি একটু ‘অ্যাডজাস্ট’ করুন না, আরেকজন হয়ে যাবে৷ হয়ে যাবে, হয়ে যাবে করে হয়েও যায়৷ অটো রাজত্বে তাই পাঁচে মিলে চলি আজ, হারি-জিতি নাহি লাজ৷ তা সে ফাঁকা রাস্তায় মহিলাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেওয়াই হোক বা স্কুলের শিশুকে টেনে-হিঁচড়ে ঝুলন্ত অবস্থায় টেনে নিয়ে চলাই হোক৷ উল্টে-পাল্টে যায় যাক৷ শহরের বুকে এভাবেই অটোর অটোক্রেসি বজায় থাক৷

পুলিশ তো কোন ছাড়, মন্ত্রী-সান্ত্রীদেরও জোরও খুব একটা চলে না৷ সংগঠনের ফাঁকে ঠিক বেরিয়ে যাওয়া যায় ফোঁকড় দালালির জোরে৷ টনক কিছুটা নড়েছে বটে৷ খবরেও বার কয়েক উঠে এসেছে অটোর অটোম্যাটিক দৌরাত্ম্যের কাহিনি৷ ঘটনাচক্রে এর সৌজন্য খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের প্রাপ্য৷ নিজে যখন অটোর অটোক্রেসির শিকার হলেন৷ রাশ টানতে সংগঠনগুলিকে দায়িত্ব দিলেন মন্ত্রীমশাই৷

রাশ টানা হয়েছে৷ নিয়মাবলীও ঠিক হয়েছে৷ কিন্তু, নিয়মের গুরুত্ব তখনই থাকে যখন তা মানা হয়৷ আর এই মানার দায়িত্ব শুধু অটো চালকদের নয়, এই দায়িত্ব নিত্যযাত্রীদেরও৷ যাঁদের সবকিছুতেই আপস করা মজ্জাগত হয়ে গিয়েছে৷ অটো চালক বেশি টাকা চাইলেও যাঁরা অনায়াসেই দিয়ে দিতে পারেন৷ সামনের সিটে একটু সরে গিয়ে পঞ্চম ব্যক্তির জন্য ঠিক জায়গা করে দেন৷

সিস্টেমের দোহাই অনেকেই দিতে পারেন৷ কিন্তু, সিস্টেম মানুষই তৈরি করে৷ আর শুধুমাত্র মানুষই পারে তাতে পরিবর্তন আনতে৷ পরিবর্তন হয়তো অনেকক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদী৷ কিন্তু, শুরুটা তো আপনি করতেই পারেন৷ আমিও করতে পারি৷ আমরা করতে পারি৷ রাজতন্ত্র কিংবা প্রজাতন্ত্র নয়, সার্বভৌমত্বর খাতিরে৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে