৮ মাঘ  ১৪২৬  বুধবার ২২ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৮ মাঘ  ১৪২৬  বুধবার ২২ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সন্দীপ্তা ভঞ্জ: ঘড়িতে তখন সকাল আটটা। রবিবার। ছুটির দিন বলে কথা! কুয়াশা মোড়া শহর সবে ওমের ঘুম ভাঙা চোখে হাই তুলেছে। সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্কের ফুটবল ময়দানে পায়ে বল নিয়ে ছুটে চলেছেন অভিনেতা দেব। অপরদিকে, ভারতীয় ফুটবলের অন্যতম জনপ্রিয় খেলোয়াড় বাইচুং ভুটিয়া। চলছে দেব-বাইচুং দ্বৈরথ। একঝলক দেখে মনে হতেই পারে যে দেব কি আবার কোনও ফুটবল টিমে নাম লেখাচ্ছেন! আজ্ঞে না! দ্বৈরথ নয়। দেব তাঁর আগামী ছবি ‘গোলন্দাজ’-এর জন্য প্রশিক্ষণ নিচ্ছিলেন বাইচুং ভুটিয়ার কাছ থেকে। কারণ তিনিই তো ধ্রব বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে সিনেপর্দায় ‘ভারতীয় ফুটবলের জনক’ অর্থাৎ নগেন্দ্র প্রসাদ সর্বাধিকারি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে চলেছেন।

সামনেই ‘সাঁঝবাতি’র মুক্তি। সদ্য ‘টনিক’-এর প্রথম শিডিউলের শুটিংও শেষ করেছেন। তাঁর উপর ধ্রুব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ম্যাগনাম অপাস ‘গোলন্দাজ’-এর জন্য প্রস্তুতি নেওয়া। সবমিলিয়ে অভিনেতা বর্তমানে শশব্যস্ত। কিন্তু এত কাজের ফাঁকেও অনুশীলনে মোটেই ফাঁকি দিচ্ছেন না বাইচুংয়ের বাধ্য শিষ্য দেব। সকাল-বিকেল দু’বেলা করে প্র্যাকটিসে যাচ্ছেন। জানুয়ারির মাঝামাঝি থেকে শুরু শুটিং। হাতে এখনও ৪০ দিন। তাই ময়দানে নামার আগে কোনওরকম কসরত করতে ছাড়ছেন না দেব। রবিবার সাত সকালে তাই সেন্ট্রাল পার্কের ফুটবল গ্রাউন্ডে বাইচুংয়ের তত্ত্বাবধানে প্রশিক্ষণ নিচ্ছিলেন। দেব-বাইচুংয়ের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক ধ্রুব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং গল্পকার তথা বিশিষ্ট ক্রীড়া সাংবাদিক দুলাল দে।

তা দেব ছাত্র হিসেবে কেমন? বাইচুংয়ের কাছে প্রশ্ন ছুঁড়লেই তিনি বলেন, “দেবের পায়ে বল দেখলে তো মনেই হয় না যে ও ফুটবলে প্রথম পা ঠেকিয়েছে। নিশ্চয় ছোটবেলায় খেলেছে। কারণ, হাজার হোক বাঙালির রক্তে ফুটবল। তবে ওঁর জন্য একটু চ্যালেঞ্জ তো হবেই। আমি নিজে কয়েকদিন প্র্যাকটিসের মধ্যে না থাকলে কীরকম একটা লাগে। আর দেব তো এই সিনেমায় একজন ফুটবলার, কাজেই ওঁর ক্ষেত্রে ফুটবলের প্রাথমিক নিয়মগুলো শেখা একটা চ্যালেঞ্জের ব্যাপার। কিন্তু দেব ট্যালেন্টেড। কারণ, ওঁকে কিছু বলা হলে চট করে ধরে নিচ্ছে।” 

[আরও পড়ুন:  অজয়ের পর আমির, শনিবার ‘লাল সিং চাড্ডা’র শুটিংয়ে কলকাতায় এলেন অভিনেতা  ]

বাইচুংয়ের কথায়, “দেবের মতো সুপারস্টার যখন ফুটবল নিয়ে কোনও সিনেমার মুখ হয়, তা আখেরে ভালই হয়। বাঙালির রক্তে ফুটবল। আবেগে ফুটবল। বাংলার দ্বিগগজ ফুটবলাররা বিভিন্ন সময়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন। মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গল, মহামেডান-এই ক্লাবগুলো ভারতের ফুটবলের ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ রোল প্লে করে। ফুটবল নিয়ে বাঙালির যা আবেগ, তা বোধহয় আর কোনওখানে দেখতে পাইনি।” পাশাপাশি এই সিনেমার জন্য যে মুখিয়ে রয়েছেন বাইচুং, জানান নিজেই।

একজন বাঙালির তৎকালীন প্রেক্ষাপটে ‘নিষিদ্ধ’ ফুটবল পায়ে করে দৌড়নোর গল্প বলবেন পরিচালক ধ্রুব। আর পিরিয়ডিক সিনেমা যখন, তখন এক্ষেত্রে যে বাংলা ইতিহাসের সেই পর্বটাকে তুলে ধরা বেশ চ্যালেঞ্জিং, তা বলাই বাহুল্য। শুটিং হবে কলকাতা এবং শহরতলীতে। সংগীত পরিচালনার দায়িত্ব বর্তেছে বিক্রম ঘোষের উপর। 

দেখুন ভিডিও

[আরও পড়ুন:  উচ্চতা-শারীরিক গঠন নিয়ে বিদ্রুপ, নেহার কাছে ক্ষমা চাইলেন কমেডিয়ান গৌরব গেরা ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং