৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সোশ্যাল মিডিয়ার দৌরাত্ম্যে মিম, ট্রোল এগুলো বর্তমানে প্রায় একটা ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফেসবুক, হোয়াটস অ্যাপ খুললেই মিম ভর্তি মেসেজের আনাগোনা। রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব থেকে খেলোয়াড়, মিম-ট্রোলের শিকার হতে বাদ নেই কেউই। কিন্তু যাঁদের নাম নিয়ে বা যে সমস্ত মানুষজনকে ঘিরে মিম তৈরি করা হচ্ছে, তাঁদের কী মত? এপ্রসঙ্গেই মুখ খুললেন অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ। তাঁকে নিয়ে মিম তৈরি হওয়ায় বেজায় চটে গিয়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: ফের #MeToo প্রসঙ্গে মুখ খুললেন মাধুরী দীক্ষিত]

রাজনীতির ময়দানে কাদা ছোঁড়াছুঁড়িই যেন কারও কারও কাছে তাঁদের সৃজনশীল মনের মাধুরী হয়ে উঠেছে। তবে, মজার মিমটি যখন অপর প্রান্তের ব্যক্তির কাছে সাজার হয়ে ওঠে, তখনই বাঁধে যত গণ্ডগোল। আসলে দেওয়ালে পিঠ ঠেকলে বা গলায় আটকে থাকা কথা যখন আগ্নেয়গিরির মতো চোরাপথে লাভা নিঃসরণ করে, তখন তা আক্রমণাত্মকই হয়ে ওঠে। এক্ষেত্রেও তাই। মিম সাধারণত মজার জন্যই তৈরি করা হয়ে থাকে। তবে বর্তমানে তা আক্রমণের এক অন্যতম হাতিয়ার হয়ে উঠেছে। যে যত ভাল শান দিতে পারে, তার রসাল মিমের কদর ততই বেশি। অর্থাৎ, দেদার শেয়ার, দেদার লাইক-কমেন্ট। অতএব, মিম সৃষ্টিকর্তা ‘সুপারহিট’!

বুধবার সকালে নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে একটি মিম শেয়ার করে কঠোর ভাষায় প্রতিবাদ জানান রুদ্রনীল ঘোষ। “মজার একটা লিমিট থাকে! সেটা টপকালে মুশকিল! এই কুরুচির রাজনৈতিক পোস্টের তীব্র বিরোধিতা করছি! মিম মানেটা পালটে দিও না কেউ! please!!!” ছবিতে রুদ্রকে ‘ভিঞ্চি দা’র লুকে দেখা গিয়েছে। অপরদিকে ওই একই মিমে রুদ্রনীলের উপর রয়েছে দুই বিজেপি নেতা মুকুল রায় এবং দিলীপ ঘোষের ছবি। গেরুয়া শিবিরের ওই দুই নেতাকে উদ্দেশ্য করে মিমে লেখা ‘দুজনের মধ্যে কে বেশি মূর্খ’.. মিমে ‘ভিঞ্চি দা’ ছবিতে রুদ্রনীলের চেনা সংলাপ ‘আপনি ধরতে পারবেন না।’

বুঝুন কাণ্ড! এক্ষেত্রে নেটিজেনদের নজর কেড়েছে অন্য একটি বিষয়। প্রথমত, মিমটি শেয়ার করা হয়েছে ‘মা মাটি মানুষ’ নামে তৃণমূলের এক ফেসবুক পেজ থেকে। যা কিনা আবার তৃণমূলের স্লোগানও৷ দ্বিতীয়ত, গেরুয়া শিবিরের নেতাদের বিরুদ্ধে তৃণমূল ঘনিষ্ঠ টলিউড অভিনেতা রুদ্রনীলের সংলাপ যেভাবে ব্যবহৃত হয়েছে, তার ‘তীব্র প্রতিবাদ’ জানিয়েছেন অভিনেতা। আর ঠিক এই দ্বিতীয় বিষয়টিই নজর কেড়েছে নেটিজেনদের। তাঁর এই পোস্টে অন্যরকম ‘রাজনৈতিক গন্ধ’ পাচ্ছেন বলেও দাবি করেছেন অনেকে। তৃণমূল ঘনিষ্ঠ অভিনেতা কি না তৃণমূলের পেজ থেকে শেয়ার হওয়া মিম নিয়েই মুখ খুললেন শেষে? এমন প্রশ্নও কিন্তু উঠেছে।

[আরও পড়ুন: হ্যাকারদের কারসাজি, বিগ বি’র প্রোফাইল থেকে ভারত-বিরোধী টুইট!]

অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ হয়তো কোনও রকম রাজনৈতিক মানসিকতা থেকে সেই পোস্টের বিরোধিতা করেননি। বরং, তাঁকে নিয়ে কুরুচিকর মিম তৈরি হওয়ায় ব্যক্তিগতভাবে আঘাত পান তিনি। আর তাই ওই মিমের একটি স্ক্রিনশট নিয়ে নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে শেয়ার করে কড়া ভাষায় প্রতিবাদ করেন, এমনটাও দাবি একাংশের।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং