২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কিছুই মনে পড়ছে না! ইডি’র প্রশ্নবাণের উত্তরে একই সুর রিয়ার

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: August 7, 2020 9:49 pm|    Updated: August 7, 2020 9:51 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অবশেষে প্রায় সাড়ে ৮ ঘণ্টা ম্যারাথন জেরার পর ইডির দপ্তর থেকে বেরলেন রিয়া চক্রবর্তী। সূত্রের খবর, ইডির তরফে দিন দুয়েক আগেই রিয়াকে তাঁর সম্পত্তি এবং ২টি ফ্ল্যাটের কাগজপত্র নিয়ে আসতে বলা হয়েছিল। কিন্তু অভিনেত্রী সেসব দলিল এবং তথ্য ছাড়াই শুক্রবার সকালে ইডির দপ্তরে হাজির হন। যথারীতি জেরার মুখে পড়তে তাঁকে। ইডির তরফ থেকে এই বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে রিয়া বলেন, “তিনি ভুলে গিয়েছেন কোথায় ফ্ল্যাট-বাড়ির কাগজপত্র রেখেছেন।” স্বাভাবিকবশতই এই বিষয়টিকে মোটেই ভাল চোখে দেখছেন না তদন্তকারীরা।

ইডির দপ্তর সূত্রে খবর, রিয়াকে সাড়ে ৮ঘণ্টা ধরে যে সমস্ত প্রশ্ন করা হয়েছে সবেতেই তিনি প্রায় একই উত্তর দিয়েছেন যে, “ঠিক মনে করতে পারছি না, কী হয়েছিল।” অন্যদিকে, শুক্রবারই এই বিষয়ে ইডির দপ্তরে রিয়া চক্রবর্তীর পাশাপাশি জেরা করা হয় রিয়ার ভাই সৌহিক চক্রবর্তী, সুশান্ত সিং রাজপুতের প্রাক্তন বিজনেস ম্যানেজার শ্রুতি মোদি এবং রিয়ার অ্যাকাউন্টেন্ট রীতেশ সাহকে। প্রত্যেকের জিজ্ঞাসাবাদই আলাদা আলাদা ঘরে চলেছে বলে জানা গিয়েছে। সূত্রের খবর, আগামী সপ্তাহে ফের রিয়াকে তলব করতে পারে ইডির আধিকারিকরা। পাশাপাশি অভিনেতার বন্ধু সিদ্ধার্থ পৈঠানিকেও আগামীকাল অর্থাৎ ৮ আগস্ট ডেকে পাঠিয়েছে দপ্তরে।

[আরও পড়ুন: হাজিরার দিন পিছনোর আবেদন খারিজ, ইডি’র দপ্তরে জেরা শুরু রিয়ার]

প্রসঙ্গত, সুশান্ত সিং রাজপুতের ব্যাংক অ্যাকউন্ট থেকে কোটি কোটি টাকা নয়ছয়ের অভিযোগ উঠেছে প্রাক্তন প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে। সেই আর্থিক তছরুপের অভিযোগের ভিত্তিতে গত সপ্তাহে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল ইডি’র তরফে (Enforcement Directorate)। তার রেশ ধরেই ইডির দপ্তরে শুক্রবার রিয়া ও তাঁর ভাই সৌহিক চক্রবর্তী-সহ আরও ২জনকে জেরা করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদ পিছনোর আবেদন জানিয়েও ছাড় পাননি রিয়া চক্রবর্তী (Rhea Chakraborty)। দিন কয়েক লুকিয়ে থাকার পর অবশেষে শুক্রবার জনসমক্ষে আসতে হয়েছে সুশান্তের প্রাক্তন প্রেমিকাকে। কারণ, রিয়া যদি এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের দপ্তরে হাজির না হন, তাহলে তাঁর বিরুদ্ধে হাজিরা দিতে অসমর্থ হওয়ার অভিযোগ দায়ের করা হবে বলে জানানো হয়েছিল। তাই একপ্রকার নিরুপায় হয়েই ভাইয়ের সঙ্গে ইডির দপ্তরে হাজির হন অভিনেত্রী। তবে, অভিনেত্রীর আইনজীবী অবশ্য বলেছেন, রিয়া ভীষণই আইনকানুনের বাধ্য। তাই কথামতোই পৌঁছেছেন এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের দপ্তরে। রিয়া এবং তাঁর ভাই সৌহিকের পর ইডির দপ্তরে পৌঁছেছিলেন শ্রুতি মোদি ও রীতেশ শাহও। নির্ধারিত সময়মতোই এদিন ইডির দপ্তরে রিয়াকে জেরা করা শুরু হয়। অবশেষে সাড়ে ৮ ঘণ্টা ম্যারাথন জেরার পর রিয়া এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট দপ্তর থেকে বেরিয়ে আসেন।

[আরও পড়ুন: যৌন হেনস্তায় অভিযুক্তের সংস্থার হয়ে প্রচার, জাতীয় মহিলা কমিশনের নোটিস মহেশ-মৌনীদের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement