১ আশ্বিন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  এক মাস আগেই মুক্তি পেয়েছে ‘স্টোনম্যান’ ওয়েব সিরিজের ট্রেলার। হাড় হিম করা রহস্য-রোমাঞ্চে ভরপুর যেই ট্রেলার দেখে স্তম্ভিত হয়েছেন বাঙালি সিনেদর্শকরা। অভিনয়েও দুই তাবড় অভিনেতা- স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় এবং রজতাভ দত্ত। ওয়েব-দর্শকদের উৎসাহ-উত্তেজনাও প্রবল। তবে এই ওয়েব সিরিজ নিয়েই এবার বিতর্ক শুরু হয়েছে।

গল্প তুমি কার? মূলত, ছবির নির্মাতাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে গল্প চুরির। ওয়েব সিরিজের টাইটেলে পরিষ্কার গোটা গোটা হরফে লেখা রয়েছে সিরিজের কাহিনি লিখিয়ের নাম। তিনি অমিতাভ ভট্টাচার্য। সেই অমিতাভের বিরুদ্ধেই মূলত গল্প চুরির অভিযোগ আনলেন চন্দন কুমার সাউ।

[আরও পড়ুন: ‘#MeToo অভিযুক্তর সঙ্গে কাজ করতে লজ্জা করে না?’, নেটিজেনদের রোষানলে রহমান-মণিরত্নম]

গল্প চুরির অভিযোগ নিয়ে চন্দন কুমার সাউ নিজের ফেসবুকে একটি পোস্টও করেছেন। তাঁর কথায়, “স্টোন ম্যানের ডাইরি “মূল গল্প আমার লেখা। ওনাকে সেটা ২৬শে ফেব্রুয়ারী মেইল করি। প্রথম চারটে খুন নিয়ে অমিতাভ ভট্টাচার্য দশ পর্বের ওয়েব সিরিজ করতে বলেন। দশ পর্বের ওয়েব সিরিজ ওনাকে করে দিয়েছি গল্প হইচই তে এপ্রোভ হয়ে যায়। সেটা নিজের লেখা বলে আমিতাভ ভট্টাচার্য চালাচ্ছেন। সমস্ত জিনিস মেলে পাঠিয়েছি। সমস্ত প্রমান আছে।  যে কেউ চাইলেই তাকে আমি মূল গল্পের কপি, ওয়ান লাইনার পাঠাতে পারি।” যদিও উপর পক্ষ থেকে চন্দন কুমার সাউয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে কোনওরকম পালটা মন্তব্য করেননি।

[আরও পড়ুন: নেতাজি অন্তর্ধান নিয়ে বিতর্কিত প্রশ্ন তুলে মুক্তি পেল ‘গুমনামি’র ট্রেলার]

স্টোনম্যান’ যদি না দেখে থাকেন, তাহলে একবার ঝালিয়ে নিন কোন বিষয়ের উপর ভিত্তি করে তৈরি হয়েছে এই ওয়েব সিরিজ? ৩০ বছর আগে এক স্টোনম্যানের ভয়ে কাঁপত শহরবাসী, সে আবার ফিরে এসেছে। রাতের শহরে অলিগলিতে শিকার খুঁজে বেড়াচ্ছে সে। তার হাতে ইতিমধ্যেই খুন গিয়েছে একাধিক মানুষ। পরের টার্গেট কে, কেউ জানে না। এমন পরিস্থিতিতে এক সাংবাদিকের হাতে আসে একটি ব্যক্তিগত ডায়েরি। স্টোনম্যানের ডায়েরি? তেমনই মনে হয় সেই সাংবাদিকের। ডায়েরির পাতায় স্পষ্ট লেখা ‘প্রত্যাঘাত’। উসকে ওঠে প্রতিশোধ নেওয়ার গল্প। কিন্তু কার উপর প্রতিশোধ নিতে চায় স্টোনম্যান? তার ফিরে আসার পিছনে আর কি কোনও উদ্দেশ্য আছে? প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে শুরু করে কলকাতা পুলিশ। কিন্তু হাতের নাগালে আসে না কিছুই। একের পর এক হত্যা হয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত পুলিশ কি পাবে স্টোনম্যানের খোঁজ? নাকি আবারও সময়ের গভীরে হারিয়ে যাবে স্টোনম্যান? এই নিয়েই ‘দ্য স্টোনম্যান মার্ডারস’-এর গল্প। 

দেখুন ট্রেলার

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং