BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘এমন বর্বরতা বরদাস্ত নয়’, পালঘরে গণপিটুনির ঘটনায় সরব বলিউড

Published by: Bishakha Pal |    Posted: April 21, 2020 12:33 pm|    Updated: April 21, 2020 12:33 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পালঘরে গণপিটুনির ঘটনায় নিন্দায় সরব বলিউড। ১৬ এপ্রিল পালঘরের একটি গ্রামে কিডনি চোর সন্দেহে জুনা আখড়ার সাধুদের পিটিয়ে মারার ঘটনায় তীব্র উত্তেজনা তৈরি হয় মহারাষ্ট্রে। পাশবিক এই ঘটনার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে পুলিশ ১১০ জনকে গ্রেপ্তার করে। তবুও লকডাউনের মাঝে এই ধরনের ঘটনা কী করে ঘটল তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে চারিদিকে। উদ্ধব ঠাকরের প্রশাসনের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে উচ্চপর্যায়ের তদন্তের দাবি জানিয়ে বিজেপি। রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন। এবার ঘটনার নিন্দায় সরব বলিউড সেলিব্রিটিরাও।

লেখক ও গীতিকার জাভেদ আখতার টুইটারে লিখেছেন, “দুই সাধু ও তাদের চালককে যারা পিটিয়েছে, তাদের কোনওভাবেই রেহাই দেওয়া উচিত নয়। সভ্য সমাজে এরকম বর্বর ও জঘন্য অপরাধ বরদাস্ত করা যায় না।”

অনুপম খের পালঘরের গনপিটুনির ঘটনাটিকে ‘অত্যন্ত দুঃখজনক’ বলে মন্তব্য করেছেন। এও বলেছেন, ভিডিওটি শেষ পর্যন্ত দেখতে পারেননি তিনি। ‘এটা কী হচ্ছে? কেন হচ্ছে? মানবতার জঘন্য অপরাধ।’ বলেছেন অভিনেতা। 

পালঘর গণপিটুনির ঘটনাটিকে ‘ডিসটার্বিং’ বলে অভিহিত করে অভিনেত্রী রবিনা ট্যান্ডন। বলেন, প্রবীণ সাধুকে মারার খবর টেলিভিশনে দেখেন তিনি। সন্দেহের ভিত্তিতেই তাঁদের নির্মমভাবে পেটানো হয়। এমন পেটানো হয় যে তাঁরা মারা যান। এমন ঘটনা মানুষকে নাড়িয়ে দেয় বলে জানান রবিনা। পুলিশের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি।

ঘটনাটিকে ‘নিন্দনীয় এবং অমানবিক’ বলেন উর্মিলা মাতন্ডকর। ধৃতদের ন্যায্য বিচারের কথাও বলেন তিনি। তবে এটি যে সাম্প্রদায়িক নয়, তাও জানিয়েছেন অভিনেত্রী। বলেছেন, মানবিকতা কারওর ধর্ম দেখে ক্ষতি করে না।

পালঘরে ৩ জন মানুষের প্রাণহানির ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানান ফারহান। বলেন, ‘যারা এর জন্য দায়ী, তাদের সমাজে কোনও স্থান নেই। আশা করি যে খুনিদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং দ্রুত তাদের বিচার হবে।’

রবি কিষণ লিখেছেন, গোটা জীবন ধর্মকর্ম করে আসা সাধুদের মেরে ফেলা হল।

অভিনেত্রী সোনাক্ষী সিনহা বলেছেন, ‘পালঘরের ঘটনা মানবতার অত্যন্ত জঘন্য এক নিদর্শন। কারওর জীবন কেড়ে ধর্ম ও পেশা নির্বিশেষে অত্যন্ত ভয়ানক ব্যাপার। এবার আমাদের সঙ্গবদ্ধ হওয়ার সময় এসেছে। আশা করি তাঁরা ন্যায়বিচার পাবেন।’ 

পরিচালক সুজিত সরকার তো এনিয়ে একটি গল্পই ফেঁদে ফেলেছেন। লিখেছেন, 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement