২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অপর্ণা সেন, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, শ্যাম বেনেগালের মতো ৪৯ জন সেলিব্রিটির নামে যে এফআইআর দায়ের হয়েছে তা নিয়ে প্রশাসনের কিছু করার নেই। রবিবার একথা জানিয়েছেন বিহার পুলিশের প্রধান গুপ্তেশ্বর পাণ্ডে জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, “যে এফআইআর দায়ের হয়ছে, তা আমরা দেখছি। এটি স্থানীয় CJM আদালতের আওতায় রয়েছে। আমি নিশ্চিত করতে পারি এর তদন্ত হবে। যেমন নির্দেশ আসবে, সেই অনুযায়ী তদন্ত চলবে। আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই।” গুপ্তেশ্বর পাণ্ডে আরও জানিয়েছেন, ঘটনার গুরুত্ব ও সংবেদনশীলতার কথা মাথায় রেখে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এর তদন্ত গুটিয়ে আনা হবে।

[ আরও পড়ুন: ‘বিগ বস’-এর ঘরে রেশমির শরীর নিয়ে মন্তব্য, শেফালিকে একহাত নিলেন জারিন ]

গণপিটুনি, অসহিষ্ণুতা ইত্যাদি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে খোলা চিঠি পাঠানোর জন্য প্রায় ৫০ জন সেলিব্রিটির বিরুদ্ধে দিন দুই আগে দায়ের হয় এফআইআর। অভিযোগ দায়ের করেন আইনজীবী সুধীর কুমার ওঝা। বিদ্বজ্জনেদের মধ্যে রয়েছেন রামচন্দ্র গুহ, মণিরত্নম, অপর্ণা সেন, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, শ্যাম বেনেগল, গৌতম ঘোষ, অনুরাগ কাশ্যপ, অঞ্জন দত্ত ও শুভা মুদগলের মতো ব্যক্তিত্বরা। বিহারের মুজফ্ফরপুরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সূর্যকান্ত তিওয়ারির কাছে একটি পিটিশন দাখিল করার পর এই মামলা দায়ের করা হয়। চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে ২ মাস আগে পিটিশন দাখিল করা হয়।

সুধীরবাবুর বক্তব্য, চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ২০ আগস্ট তাঁর আবেদন মঞ্জুর করেছিলেন। তার ভিত্তিতেই দায়ের হয়েছে এফআইআর। তাঁর অভিযোগ, এই ৫০ জন প্রধানমন্ত্রীকে খোলা চিঠি লিখে দেশের মান নামিয়ে এনেছেন। প্রধানমন্ত্রীর নজরকাড়া পরিশ্রমকেও ছোট করতে চেয়েছেন। উলটে তাঁরা দেশদ্রোহী ও বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সমর্থন করেছেন বলেও অভিযোগ সুধীরবাবুর।

[ আরও পড়ুন: অষ্টমীর মুখার্জি বাড়িতে চাঁদের হাট, রানি-কাজলের আমন্ত্রণে হাজির সস্ত্রীক অমিতাভ ]

দেশজুড়ে ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা বন্ধের দাবিতে এবং ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি তুলে সাম্প্রদায়িক উসকানিমূলক বার্তার প্রতিবাদে জুলাই মাসে বিশিষ্ট পরিচালক শ্যাম বেনেগাল, অপর্ণা সেন, অনুরাগ কাশ্যপ থেকে মণিরত্নম-সহ সরব হয়েছিলেন ৪৯ বিদ্বজ্জন৷ ‘জয় শ্রীরাম’ থেকে গণপিটুনি, যাবতীয় অসহিষ্ণুতামূলক বিষয় উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দপ্তরে চিঠি পাঠিয়েছিলেন তাঁরা। এর জন্য শাসকদলের রোষানলেও পড়েছিলেন তাঁরা। অপর্ণা সেন, কৌশিক সেন-সহ একাধিক ব্যক্তি প্রাণনাশের হুমকি পেয়েছিলেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে মামলা দায়ের হয়েছিল অপর্ণা, সৌমিত্রদের বিরুদ্ধে। প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দেওয়া ওই ৪৯ জনের বিরুদ্ধে ‘দেশদ্রোহিতার’ অভিযোগ এনে মামলা দায়ের হয় বিহার আদালতে। 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং