BREAKING NEWS

১০ মাঘ  ১৪২৭  রবিবার ২৪ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

দিল্লি সীমান্তে কৃষক বিক্ষোভে শামিল অভিনেতা দিলজিৎ, শীতবস্ত্রের জন্য দান ১ কোটি টাকা

Published by: Suparna Majumder |    Posted: December 5, 2020 9:52 pm|    Updated: December 5, 2020 9:53 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কৃষক বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে টুইটারে কুরুক্ষেত্র কাণ্ড বাঁধিয়েছেন কঙ্গনা রানাউত (Diljit Dosanjh) ও দিলজিৎ দোসাঞ্জ (Diljit Dosanjh)। ইতিমধ্যেই পাঞ্জাবি তারকাকে ‘করণ জোহরের পোষ্য’ বলে অভিহিত করেছেন কঙ্গনা। পালটা দিয়েছেন দিলজিৎও। সুর চড়িয়ে জানতে চেয়েছেন, যাঁদের সঙ্গে কঙ্গনা কাজ করেছেন, তিনিও তাঁদের সকলের পোষ্য কিনা। সোশ্যাল মিডিয়ার এই কথাযুদ্ধ বেশ খানিকক্ষণ ধরে চলেছিল। শেষে বিক্ষোভরত কৃষকদের সমর্থনে পাঞ্জাবি ভাষায় কঙ্গনার প্রশ্নের উত্তর দিতে থাকেন দিলজিৎ। এবার সোজা দিল্লি সীমান্তে পৌঁছে গেলেন অভিনেতা-গায়ক। যোগ দিলেন বিক্ষোভে। কৃষকদের মাঝেই বসে পড়লেন রাস্তার উপর।

শনিবার বিকেলে দিল্লির কাছে সিঙ্ঘু সীমান্তে পৌঁছান দিলজিৎ। সেখানে কৃষকদের এই পদক্ষেপকে কুর্নিশ জানান। দেশের সংবাদমাধ্যগুলির কাছে অনুরোধ করেন, কীভাবে শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ (Farmers Protest) প্রদর্শন করে গোটা দেশের সামনে নজির হয়ে উঠেছেন এই কৃষকরা, তা যেন দেখানো হয়। এরপরই, শীতে যাতে বিক্ষোভরত কৃষকদের শীতবস্ত্র অর্থাৎ সোয়েটার ও কম্বল কিনে দেওয়ার বন্দোবস্ত করা হয়, তার জন্য ১ কোটি টাকা দান করেন।

[আরও পড়ুন: বিক্ষোভের ভিন্ন ছবি, দিল্লিতে প্রতিবাদী কৃষকদের মুখে খাবার তুলে দিচ্ছেন মুসলিম যুবকরা]

উল্লেখ্য, কঙ্গনা-দিলজিতের দ্বৈরথের সূত্রপাত হয় অভিনেত্রী কৃষক আন্দোলনে যোগ দেওয়া এক বৃদ্ধাকে ‘শাহিনবাগের দাদি’ বিলকিস বানোর সঙ্গে গুলিয়ে ফেলা ও তাঁর সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য করার পর। পরে সেই টুইট ডিলিটও করে দিয়েছিলেন কঙ্গনা। কিন্তু দিলজিৎ তাঁকে আক্রমণ করে প্রশ্ন করেছিলেন, ‘‘এতটা অন্ধ হলেন কী করে?’’ এরপরই শুরু হয় দু’জনের ভারচুয়াল লড়াই। এরই মধ্যে এক সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে, কঙ্গনার সঙ্গে টুইট যুদ্ধের পর দুই দিনে প্রায় চার লক্ষ ফলোয়ার্স বেড়েছে পাঞ্জাবি তারকার।

 

দিলজিতের পাশে দাঁড়িয়েছেন বেশিরভাগ পাঞ্জাবি তারকা। সালোনি গৌর নামে এক কৌতুক শিল্পী আবার একটি ভিডিও আপলোড করেছেন। যাতে তিনি কঙ্গনার নকল করে দিলজিতের পাঞ্জাবি ভাষার টুইট গুগল ও ডিকশনারিতে খোঁজার চেষ্টা করছিলেন। সেই টুইট শেয়ার করেন দিলজিৎ। শনিবার কৃষক বিক্ষোভে বক্তব্য রাখার সময়ও সেই প্রসঙ্গে তোলেন। পরোক্ষে কঙ্গনাকে ঠেস দিয়ে বলেন। “আমি হিন্দিতেও বলছি যাতে কারও গুগলে খোঁজার প্রয়োজন না হয়।”

[আরও পড়ুন: পঞ্চমদফার বৈঠকও নিষ্ফলা, ফের কৃষকদের সঙ্গে আলোচনায় বসবে কেন্দ্রীয় সরকার]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement