BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘ভোট দেননি কেন?’ প্রশ্ন শুনেই রুদ্রমূর্তি ধারণ অক্ষয় কুমারের

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: May 1, 2019 5:42 pm|    Updated: May 1, 2019 5:42 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সোমবার চতুর্থ দফার লোকসভা ভোট উপলক্ষে বলি সেলেবরা মেতেছিলেন গণতন্ত্রের উৎসবে। ওইদিন সকাল থেকেই পাপারাজিদের ক্যামেরায় ধরা পড়েছে মুম্বইয়ের বিভিন্ন জায়গার বুথে সেলেবরা পৌঁছে গিয়েছিলেন ভোট দিতে। সস্ত্রীক আমির খান, অজয়, কাজল, নবাব বেগম করিনা কাপুর খান, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, আর মাধবন, সোনালি বেন্দ্রে-সহ আরও অনেকেই। তবে, এতকিছুর মাঝে যাঁকে খুঁজে পাওয়া যায়নি তিনি হলেন অক্ষয় কুমার। দেশপ্রেমের কথা যার মুখে সবসময়েই শোনা যায়। কিংবা সেনাদের ভালমন্দ নিয়েও সরব তিনি। দিনকয়েক আগেই মোদির সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন তিনি। তবে, ভোট দেননি অক্ষয়। আর সেকথা প্রকাশ্যে জিজ্ঞেস করতেই বেজায় চটে যান অভিনেতা।

এদিন পোলিং বুথে অক্ষয়-পত্নী টুইঙ্কেলকে ভোট দিতে দেখা গেলেও, সঙ্গে ছিলেন না অক্ষয় কুমার। আর এই ইস্যু নিয়েই তোলপাড় হয়েছে  নেটদুনিয়া। নেটিজেনদের মতে, যেই অক্ষয় কুমার মোদির অনুরোধে ভোট দেওয়ার জন্য ভক্ত তথা দেশবাসীদের অনুরোধ করে লিখেছিলেন, “মানুষরা যেদিন নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করবেন, সেটাই হবে গণতন্ত্রের সত্যিকারের হলমার্ক। নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অংশ নিয়ে দেশ আর দেশবাসীর প্রেমকথা সুপারহিট করুন।” আর এতকিছু বলার পর তিনি কি না নিজেই ভোট দিলেন না! এমন প্রশ্নই তুলেছেন নেটিজেনরা।

 [আরও পড়ুন:  ভোট দিতে গিয়ে বিস্ফোরক কঙ্গনা, ‘ইতালিয়ান’ বলে কটাক্ষ সোনিয়াকে]

মঙ্গলবার, মুম্বইয়ের এক ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা। সেখানেই তাঁকে জিজ্ঞেস করা হয়, কেন তিনি ভোট দেননি? প্রশ্ন শুনে উত্তর দেওয়া তো দূরস্ত। বরং খেপে গিয়ে ওই সাংবাদিকর প্রতি মন্তব্য করেন, “চলিয়ে বেটা (চলে যান)!”

প্রসঙ্গত, ৫১ বছর বয়সী এই অভিনেতার জন্ম অমৃতসরে। তবে, কর্মসূত্রে থাকেন তিনি মুম্বইতে। কিন্তু দুই জায়গার এক জায়গা থেকেও ভোট দিতে পারবেন না অক্ষয়। কারণ, তাঁর পাসপোর্ট কানাডার। সূত্রের খবর অনুযায়ী, তাঁকে সেই দেশ থেকে নাগরিকত্বের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। অভিনেতা সেই প্রস্তাব সাদরে গ্রহণ করেন। তবে, ভারত সরকারের নিয়মানুসারে কোনও ভারতীয় দ্বৈত নাগরিকত্ব উপভোগ করতে পারেন না। ফলে ভোট দেওয়ার অধিকারও হারান তিনি। তাই ভারতের নাগরিকত্ব হারিয়ে ভোট দেননি তিনি। তবে, এদিন সাংবাদিকের উপর রেগে যাওয়াতে তাঁকে নিয়ে নেটিজেনরা সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনা করতে ছাড়েননি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement