BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জামিয়া কাণ্ড নিয়ে নীরবতা ভাঙলেন প্রিয়াঙ্কা, পড়ুয়াদের পাশে দাঁড়ালেন হৃতিকও

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: December 19, 2019 3:12 pm|    Updated: December 19, 2019 3:37 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জামিয়া কাণ্ডে এবার মুখ খুললেন UNICEF-এর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। কোনও রকম রাখঢাক না করেই সোজা চড় কষালেন জামিয়ার পড়ুয়াদের উপর হওয়া অন্যায়ে। প্রশ্ন তুললেন, এই জন্যই কি সন্তানদের শিক্ষা দেওয়া, যাতে ওরা নিজেদের মতামত ব্যক্ত করতে না পারে? অন্যদিকে, প্রিয়াঙ্কার ‘অগ্নিপথ’, ‘কৃষ’ সহ-অভিনেতা হৃতিক বললেন, দুই সন্তানের বাবা হয়ে আজ তিনি দুঃখিত যে দেশে তাঁকে এই দিনও দেখতে হচ্ছে!  

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (Citizenship Amendments Bill) নিয়ে সরগরম গোটা দেশ। যে আইনের বিরোধিতায় সরব হয়েছে গোটা দেশ। অসম, ত্রিপুরা, বাংলার পর অগ্নিগর্ভ দিল্লি। রাজপথে মাঝরাতে কান পাতলেও শোনা যাচ্ছে ছাত্রছাত্রীদের প্রতিবাদ। গগনভেদী স্লোগান- ‘No NRC’। জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ার পড়ুয়ারাও স্বর তুলেছিলেন নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে। যার জেরে ক্যাম্পাসে লাঠি চার্জ করে দিল্লি পুলিশ। ছোঁড়ে কাঁদানে গ্যাসও। আম জনতা থেকে বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব, দিল্লি পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সকলেই। কলকাতা, দিল্লি, মুম্বই, বেঙ্গালুরু, এমনকী আন্তর্জাতিক স্তরের ছাত্রছাত্রীরাও, রাজপথে নেমেছেন প্রতিবাদে। অমিতাভ বচ্চন, শাহরুখ খান, রণবীর সিং থেকে অক্ষয় কুমার যখন নীরব, তখন সে পথে হাঁটলেন না প্রিয়াঙ্কা, হৃতিকরা।  

[আরও পড়ুন: ‘অন্ধকার সুড়ঙ্গের মধ্যে দিয়ে চলছি’, জামিয়া কাণ্ডে সরব ‘নীরব’ অক্ষয়ের পত্নী টুইংকল]

প্রতিবাদী টুইটে প্রিয়াঙ্কা লিখলেন, “প্রতি শিশুর জীবনে শিক্ষার আলো পৌঁছে দেওয়া আমাদের স্বপ্ন। এই শিক্ষাই তো ওদের স্বতঃস্ফূর্তভাবে চিন্তা করার সাহস দিয়েছে। আমরা তো ওদের এভাবেই বড় করেছি, যাতে ওরা নির্দ্বিধায় নিজেদের মতামত জানাতে পারে। একটি গণতান্ত্রিক দেশে শান্তিপূর্ণ ভাবে নিজেদের মতামত জানানোর ফল যদি হিংসা ও সংঘর্ষ হয়, তাহলে সেটা ঘোর অন্যায়। প্রতিটি কণ্ঠস্বর ভারতকে পরিবর্তনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। #HaveVoiceWillRaise #HaveVoiceMustRaise।” যদিও অসমের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হওয়া সত্ত্বেও উপত্যকার অস্থির পরিস্থিতির সময়ে কোনও রকম প্রতিক্রিয়া দেননি দেশি গার্ল।

অন্যদিকে হৃতিক বলেছেন, “দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে একের পর এক যে নৈরাজ্যের সৃষ্টি হয়েছে, একজন অভিভাবক এবং ভারতের নাগরিক হিসেবে অত্যন্ত দুঃখিত আমি। আশা করি, দেশে খুব দ্রুতই শান্ত ফিরে আসুক। মহান শিক্ষকরা অনেক সময়ে তাঁদের ছাত্রদের কাছ থেকেও শেখেন। বিশ্বের নবীনতম গণতন্ত্রকে সেলাম জানাই।” সরকারের সমালোচনা করে CAA, NRC বিরোধী প্রতিবাদী আন্দোলনের ডাক দিয়ে মুম্বই পুলিশ আধিকারিকের কটাক্ষের শিকার হয়েছেন ফারহান আখতার।

[আরও পড়ুন: ‘তুমি লেঠেল পাঠালে প্রশাসক…’, জামিয়া কাণ্ডের বিরুদ্ধে রূপমের গানই ভরসা প্রতিবাদীদের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement