Advertisement
Advertisement
কাজল

‘পুরুষরা এখন সাত পা দূরে থাকে’, #MeToo নিয়ে মুখ খুললেন কাজল

#MeToo নিয়ে কথা বলেন অভিনেত্রী শ্রুতি হাসানও।

Kajol and Shruti Haasan opens up about MeToo movement
Published by: Bishakha Pal
  • Posted:March 3, 2020 6:42 pm
  • Updated:March 3, 2020 9:10 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: #MeToo নিয়ে এবার মুখ খুললেন কাজল। বললেন, ভারতে #MeToo মুভমেন্টের আগে যেমন অবস্থা ছিল, পরের অবস্থা অনেক আলাদা। এখন মহিলাদের সঙ্গে খারাপ বা অশালীন ব্যবহার করতে সাহস পায় না। এই আন্দোলন সাত পা পিছনে থাকতে বাধ্য করছে পুরুষদের।

হলিউডে বহু আগে শুরু হয়েছিল #MeToo মুভমেন্ট। ভারতে এই আন্দোলন এসে পৌঁছয় ২০১৮ সাল নাগাদ। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি তো বটেই, সব পেশাতেই এর প্রভাব পড়ে। বলিউডে প্রথম #MeToo অভিযোগ ওঠে নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে। তোলেন তনুশ্রী দত্ত। এরপর একে একে অলোক নাথ, বিকাশ বহেল, রজত কাপুর, সাজিদ খান, এম জে আকবরের বিরুদ্ধেও #MeToo অভিযোগ উঠতে থাকে। তনুশ্রী দত্তের পর অনেক অভিনেত্রী, চিত্রনাট্যকার অভিযোগ তোলেন তাঁদের সঙ্গেও অশালীন ব্যবহার করা হয়েছে। বলিউডের প্রথম সারির অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউতও জানান, ‘কুইন’ ছবির সময় বিকাশ বহেল তাঁর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। ওই ছবির এক জুনিয়র আর্টিস্টও বিকাশের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন। জল অনেকদূর গড়ায়। সেই সময় হৃতিক রোশনের সঙ্গে ‘সুপার ৩০’ ছবির কাজ করছিলেন বিকাশ। #MeToo’র প্রভাব পড়ে সেই ছবিতেও। পরিচালকের সঙ্গে কাজ করতে অস্বীকার করেন অভিনেতা। কিন্তু আবহাওয়া ধীরে ধীরে ঠান্ডা হয়। আঁচ কমে আসে #MeToo আন্দোলনের।

Advertisement

[ আরও পড়ুন: নাট্য ব্যক্তিত্বকে সম্মান, শ্রীরাম লাগুর নামাঙ্কিত পুরস্কার ঘোষণা মহারাষ্ট্র সরকারের ]

তবে এই আন্দোলনের ফল যে সুদূরপ্রসারী, তা এখনও বুঝতে পারছেন সিনে দুনিয়ার সঙ্গে জড়িত মহিলারা। সেই কথাই বলেন কাজল। তিনি জানান, #MeToo’র পর পরিস্থিতি অনেক বদলেছে। শুধু ফিল্মের সেট নয়, বদল এসেছে সব ক্ষেত্রেই। আসলে এই আন্দোলনে বহু নামী ব্যক্তিত্বের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল। তার পর থেকে ভাল হোক, খারাপ হোক বা ইনডিফারেন্ট হোক, যে কোনও পুরুষ সাত পা দূরে থাকে।

Advertisement

স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবি ‘দেবী’র প্রচারে এসে #MeToo নিয়ে কথা বলেন অভিনেত্রী শ্রুতি হাসানও। তিনি জানান, এই আন্দোলন যখন পুরোদমে চলছে তখন তিনি বিমানে এক সহযাত্রীকে একই বই পড়তে দেখেছিলেন যার নাম ‘Physical proximity and how to behave in that space’। তবে শ্রুতি হাসান বলেছেন, সচেতনতা বাড়ানো দরকার। ভারতের #MeToo আন্দোলনকে পরবর্তী লেভেলে নিয়ে যেতে হবে। যাতে মহিলারা তাঁদের সঙ্গে হওয়া অশালীন আচরণ নিয়ে সরব হতে পারে।

[ আরও পড়ুন: প্রথমবার জুটি বাঁধছেন সোহম-সোহিনী, নেপথ্যে ‘এই আমি রেণু’  ]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ