৬ শ্রাবণ  ১৪২৬  সোমবার ২২ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

৬ শ্রাবণ  ১৪২৬  সোমবার ২২ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দিন কয়েক আগে ‘জাজমেন্টাল হ্যায় কেয়া’ ছবির প্রচারে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন কঙ্গনা রানাউত। অনুষ্ঠানে উপস্থিত এক সাংবাদিককে নিজের ছবির নেতিবাচক সমালোচনার জন্য তুলোধোনা করেছিলেন তিনি। এরপর সাংবাদিকদের একাংশ একজোট হয়ে দাবি তুলেছিলেন, কঙ্গনাকে কৃতকর্মের জন্য ক্ষমা চাইতে হবে৷ কিন্তু ক্ষমা চাওয়া তো দূরের কথা, সোশ্যাল মিডিয়ায় আরও কুৎসিত ভাষায় সাংবাদিকদের আক্রমণ করলেন তিনি। এমনকী পূর্বপুরুষ তুলেও কথা বলতে দ্বিধা বোধ করলেন না অভিনেত্রী। নিজের বক্তব্য জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও-ও পোস্ট করেছেন কঙ্গনা।

[ আরও পড়ুন: চল্লিশেও পড়েনি চালশে, ১১ বছর পর অভিনয়ে ফিরছেন শিল্পা ]

রবিবার নিজের ছবি ‘জাজমেন্টাল হ্যায় কেয়া’-র প্রোমোশনে গিয়েছিলেন কঙ্গনা। সেখানে এক সাংবাদিককে তিনি বলেন, “তুমি এত খারাপ কথা কী করে লিখতে পারো?” এও অভিযোগ তোলেন, কঙ্গনাকে তিনি নাকি দেশাত্মবোধ নিয়ে ছবি তৈরি করার জন্য ‘আগ্রাসী’ আখ্যা দিয়েছেন। ‘মণিকর্ণিকা’-র আলোচনা নেতিবাচক করার জন্য তাঁর ইমেজ খারাপ হয়েছে বলেও অভিযোগ তোলেন অভিনেত্রী। এও বলেন, ওই সাংবাদিককে তিনি ‘বন্ধু’ ভাবেন। তাই প্রায় তিন ঘণ্টা নিজের ভ্যানে সাক্ষাৎকার দিতে দ্বিধাবোধ করেননি। তাঁরা একসঙ্গে দুপুরে খাওয়াদাওয়াও করেছেন। কিন্তু সাংবাদিক এসব অস্বীকার করেন। তিনি সাফ জানিয়ে দেন, কঙ্গনার সঙ্গে সাক্ষাৎকার নেওয়া নিতান্তই তাঁর পেশার অঙ্গ। এখানে কোনও ব্যক্তিগত স্বার্থ তাঁর নেই।

এই ঘটনার পর কঙ্গনাকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার দাবি ওঠে। ছবির প্রযোজক একতা কাপুরের অনুষ্ঠানে কাণ্ডটি ঘটায় তিনি ক্ষমা চাইলেও কঙ্গনা ক্ষমার ধার ধারেননি। উলটে সাংবাদিকদের তিনি আরও তীব্র আক্রমণ করেন। বলেন, অনেক সাংবাদিকই গুজব ছড়ান। তাঁদের নিম্ন মানসিকতার পরিচয় দেন। দেশদ্রোহিতা করেন সর্বসমক্ষে। সংবিধানে এর কোনও শাস্তি নেই। এরপরই মিডিয়াকে ‘বিক্রিত’, ‘সস্তা’ ও ‘ক্লাস টেন ফেল’ আখ্যা দেন তিনি। বলেন, কোনও ভাল ইস্যু নিয়ে সাংবাদিকরা কখনও খবর করেন না। প্রেস কনফারেন্সে এঁরা বিনামূল্যে খেতে চলে আসেন। তাঁর কাছে ‘দেশদ্রোহীদের’ কোনও জায়গা নেই।

এরপরই অভিনেত্রী আরও বলেন, “তোমাদের কেনার জন্য তো লাখ টাকাও চাই না। তোমরা তো এতটাই সস্তা যে ৬০ টাকায় বিক্রি হয়ে যাও।” এরপরই সাংবাদিকদের পূর্বপুরুষদের তুলে আনেন তিনি। বলেন, তাঁদেরও তিনি ঘোল খাইয়ে ছেড়েছেন। আজ যদি সত্যিই সাংবাদিকদের মূল্য থাকত তবে তিনি দেশের সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত নায়িকা হতে পারতেন না। সেইসঙ্গে সগর্বে কঙ্গনা ঘোষণা করেন, তিনি সাংবাদিকদের কাছে ব্রাত্য হলে কোনও সমস্যা নেই৷ অভিনেত্রীর এমন আস্ফালন দেখে হতবাক তাঁর অনেক অনুরাগীও৷

[ আরও পড়ুন: ‘সুপার ৩০’ মুক্তির আগে দুঃস্থ ছেলেমেয়েদের সঙ্গে নাচলেন হৃতিক ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং