২৯ ভাদ্র  ১৪২৬  সোমবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আমিশা প্যাটেলের পর এবার প্রতারণার অভিযোগ উঠল আর এক বলিউড অভিনেতার বিরুদ্ধে। প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ‘মার্ডার ২’ অভিনেতা প্রশান্ত নারায়ণকে। কেরল পুলিশের তরফে জানানো হয়ছে, আপাতত অভিনেতাকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে রাখা হয়েছে।

কেরল পুলিশের তরফে ইন্সপেক্টর প্রতাপ জানিয়েছেন, অভিনেতা প্রশান্তের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা দায়ের হয়েছে। মালায়ালাম ছবির প্রযোজক থমাস পানিক্কর তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন। ২০১৭ সালে একটি মালায়ালম ছবিতে অভিনয় করেছিলেন প্রশান্ত। ছবির পর প্রশান্ত ও থমাসের মধ্যে গভীর বন্ধুত্ব তৈরি হয়। অভিযোগ এরপর প্রশান্ত থমাসকে বলেন মুম্বইয়ে তাঁদের একটি কোম্পানি আছে। সেটি দেখভাল করেন তাঁর স্ত্রী ও শ্বশুর। থমাস সেখানে পরিচালক হিসেবে কাজ করতে পারবেন। এরপর থমাস ১.২ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেন প্রশান্তের কোম্পানিতে। পরে থমাস জানতে পারেন, তাঁর সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে। এরপরই পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন তিনি।

[ আরও পড়ুন: গায়ে দুর্গন্ধ, ভক্তদের সঙ্গে আলিঙ্গনে বিরক্ত রানু মণ্ডল! ]

prasant

পুলিশ সূত্রে খবর, এরপর থমাসের সঙ্গে সাত জনের একটি বিশেষ টিম মুম্বই এসে পৌঁছয়। প্রশান্ত ও তাঁর বাঙালি স্ত্রী সোনাকে ট্রানজিট ওয়ারেন্টে কেরলে নিয়ে আসা হয়। আপাতত তাঁদের বিচারবিভাগীয় হেফাজতে রাখা হয়েছে। ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তাঁদের বিচারবিভাগীয় হেফাজতেই রাখা হবে।

এর আগে অভিনেত্রী আমিশা প্যাটেলের বিরুদ্ধেও প্রতারণার অভিযোগ উঠেছিল। জিমি শেরগিল এবং মাহি গিল অভিনীত ‘ফ্যামিলি অফ ঠাকুরগঞ্জ’ ছবির সহ-অভিনেত্রী ছিলেন আমিশা। সেই সময় ছবির প্রযোজক অজয় সিংয়ের কাছ থেকে ২.৫ কোটি টাকা ধার নেন তিনি। সেই টাকা দিয়ে নিজের প্রোডাকশন হাউসের ব্যানারে প্রথম ছবি ‘দেশি ম্যাজিক’ প্রযোজনা করার কথা ছিল তাঁর। অজয়কে কথাও দিয়েছিলেন কয়েক মাসের মধ্যেই ধারের টাকা ফেরত দিয়ে দেবেন। সঙ্গে ছবির লভ্যাংশও দেবেন। কিন্তু সেসব কিছুই ঘটেনি। তাই আদালতের দ্বারস্থ হন অজয়।

[ আরও পড়ুন: পাইরেসির ফাঁদে ‘পরিণীতা’, মুক্তির কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ইন্টারনেটে ফাঁস ছবি ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং