১ শ্রাবণ  ১৪২৬  বুধবার ১৭ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভোটে জেতার পরই গুঞ্জন শোনা গিয়েছিল অভিনেত্রী তথা সাংসদ নুসরত জাহান জীবনের নয়া ইনিংস শুরু করতে চলেছেন। গত একমাস ধরেই নুসরতের বিয়ে নিয়ে টলিপাড়া তথা রাজনৈতিক মহলে চলছে চাপা উত্তেজনা। অবশেষে সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বোদরুমের উদ্দেশে রওনা হলেন হবু দম্পতি নুসরত জাহান এবং নিখিল জৈন। চলতি সপ্তাহেই সাত পাকে বাঁধা পড়বেন প্রেমিক যুগল। টলিউডের প্রথম ডেস্টিনেশন ওয়েডিং বলে কথা, এই নিয়ে স্বপ্নসাগরে তো ভাসবেনই ভক্তরা! কী পরবেন নুসরত, মেনুতে কী কী থাকবে, সানাই, রোশনাই, গয়নাগাঁটি-পোশাকের বাহার.. খাবারের গন্ধে ম-ম করা ভোজবাড়ি… পুরো ‘ড্রিমি সিকোয়েন্স’-এর মতো ঠেকছে তো? সেটাই স্বাভাবিক! তবে বোদরুমের সেই রাজকীয় বিবাহআসরে পৌঁছানোর চাবিকাঠি কিন্তু আমাদের কাছে।

[আরও পড়ুন:  গায়ে হলুদের আসরে কেঁদে ফেলল মেয়ে, কী বললেন নুসরতের বাবা?]

না, চাবিকাঠি মানে কোনও বিশেষ পাসওয়ার্ড গোছের কিছু নয়। তবে তাঁর ছবি। আর সেই ছবিই এবার প্রকাশ্যে। বলছি, নিখিল-নুসরতের রিসেপশনের আমন্ত্রণপত্রের কথা। রবিবার সকাল হতেই বিশেষভাবে কাস্টমাইজড এই কার্ডের ছবি প্রকাশ্যে এল। বাকি সবকিছুর সঙ্গে নুসরতের বিয়ের আমন্ত্রণপত্রেও রয়েছে অভিনবত্বের ছোঁয়া। ডিজাইন করেছেন মুম্বইয়ের এক শিল্পী। নুসরতের হবু বর নিখিল পেশায় বস্ত্র ব্যবসায়ী। আর সেই কথা মাথায় রেখেই ডিজাইন করা হয়েছে এই বিশেষ কার্ড। গোল আকৃতির সেলাই করা উডেন ফ্রেম। তার মাঝেই হবু দম্পতির নাম দিয়ে লেখা আমন্ত্রণ বার্তা। ভিন্ন রঙের সুতো দিয়ে সেলাই করা ফুলের মাঝেই আমন্ত্রণপত্রে ফুটে উঠেছে নিখিল-নুসরতের ছবি। সেই কার্ডের শুধুমাত্র একটি পাতাই প্রকাশ্যে এসেছে। সেখানে পরিষ্কার গোটা গোটা অক্ষরে লেখা তাঁদের রিসেপশনের তারিখ- ৪ জুলাই। সময় সন্ধে সাড়ে ৬টা। কলকাতায় আইটিসি রয়্যাল বেঙ্গলে হবে রিসেপশনের অনুষ্ঠান।

[আরও পড়ুন:  হবু কনে নুসরতকে আইবুড়ো ভাত খাওয়ালেন মিমি, কী কী ছিল মেনুতে?]

নিখিল-নুসরত দু’জনেই সাজবেন ডিজাইনার সব্যসাচীর পোশাকে। গত বৃহস্পতিবারই সন্ধ্যায় নুসরতের পাম অ্যাভিনিউয়ের বাড়িতে একটি অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়েছিল। সেখানে উপস্থিত ছিলেন নুসরতের প্রিয় বান্ধবী তথা সতীর্থ মিমি চক্রবর্তী। শনিবার ‘ফাদারস ডে’-র আগে বাবার সঙ্গে গায়ে হলুদের ছবি শেয়ার করেছিলেন ইনস্টাগ্রামে। বিয়ের আগে আবেগঘন বার্তাও দিয়েছেন বাবার উদ্দেশে। গায়ে হলুদের আসরে বাবাকে জড়িয়ে ধরে কেঁদে ফেলেছিলেন হবু কনে। সেই ছবি শেয়ার করার সঙ্গে সঙ্গেই শুভেচ্ছাবার্তায় ভেসে যায় নুসরতের সোশ্যাল মিডিয়ার পাতা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং