BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

গুরুতর কোনও শারীরিক সমস্যা নেই, ভাল আছেন সঞ্জয় দত্ত

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: August 9, 2020 12:10 pm|    Updated: August 9, 2020 1:49 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে শনিবার সন্ধেবেলাই হাসপাতালে ভরতি হয়েছিলেন অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত (Sanjay Dutt)। মুম্বইয়ের লীলাবতী হাসপাতালে ভরতি তিনি। সূত্রের খবর, বুকে খানিক অস্বস্তি বোধ করার জন্যই তাঁকে তড়িঘড়ি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। অক্সিজেনের অভাব হওয়ার কারণেই সম্ভবত এই সমস্যায় ভুগছিলেন ৬১ বছরের অভিনেতা। গতকাল এই খবর প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়াজুড়ে সঞ্জুবাবার আরোগ্য কামনায় অনুরাগীদের বার্তা ছেয়ে গিয়েছে। কৌতূহলী মনে একটাই প্রশ্ন তাঁদের- কেমন আছেন মুন্নাভাই? হাসপাতাল থেকেই বা কবে ছাড়া পাবেন তিনি?

রবিবার অভিনেতার এক আত্মীয় তাঁর সঙ্গে দেখা করে হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে এসে জানিয়েছেন, “গুরুতর কোনও সমস্যা নেই সঞ্জুর। চিন্তার কোনও কারণও দেখছি না সেভাবে। তিনি ভাল রয়েছেন। বেশ কয়েকটা রুটিন টেস্ট করানোর রয়েছে, সেগুলি হয়ে গেলেই বাড়ি ফিরে যাবেন তিনি।”

[আরও পড়ুন: সুশান্ত ইস্যুতে মুম্বই পুলিশের অনুমতি না নিলে CBI’কেও আইসোলেশনে যেতে হবে, বিস্ফোরক মেয়র]

অন্যদিকে, লকডাউনের সময় থেকেই সঞ্জয় দত্তের স্ত্রী মান্যতা, আর দুই সন্তান শাহারান এবং ইকরা, প্রত্যেকেই দুবাইয়ে রয়েছেন। মার্চ মাসে গিয়ে আটকে পড়েছিলেন। তারপর আর ফিরতে পারেননি। অতঃপর দুই বোনই এখন সঞ্জুবাবার পাশে রয়েছেন। তবে দুবাই থেকে ফোন করে মান্যতা ক্রমাগত খোঁজখবর নিচ্ছেন বলে জানা গিয়েছে।

প্রসঙ্গত, শনিবার তাঁর অসুস্থতার খবর প্রকাশ্যে আসা মাত্রই যখন উদ্বিগ্ন অনুরাগীদের একের পর এক পোস্ট দেখেছেন, তৎক্ষণাৎ হাসপাতাল থেকেই টুইট করে সঞ্জয় দত্ত জানিয়েছেন যে, চিন্তার কোনও কারণ নেই। তিনি সুস্থ রয়েছেন। তবে আপাতত চিকিৎসকদের কড়া পর্যবেক্ষণে রয়েছেন। সংশ্লিষ্ট টুইটে লীলাবতী হাসপাতালের চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীদের কথা উল্লেখ করে জানিয়েছেন, আগামী দু’-এক দিনের মধ্যেই হয়তো বাড়ি ফিরে যাবেন তিনি। অন্যদিকে, যেহেতু সঞ্জয় দত্তের শ্বাসকষ্ট ছিল, তাই যথারীতি কোভিড টেস্টও করা হয়েছে। রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে বলেই জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: সেলিব্রেশনের টাকায় ভ্যাকসিন বানান! বাবার জন্মদিনে কেক কেটে নেটজনতার কটাক্ষের শিকার দেব]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement