৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে  পরিবারের শিকড় পেশোয়ারে রয়েছে বলে জানান তিনি৷ বলেন, ‘‘আমি অর্ধেক সিন্ধি, অর্ধেক পেশোয়ারের লোক৷’’  ব্যাস! আর এই মন্তব্যের জন্যই এবার নেটিজেনদের রোষের মুখে পড়লেন বলি অভিনেত্রী সোনম কাপুর৷ অনেকেই দিলেন দেশ ছাড়ার পরামর্শ৷ কেউ আবার পোস্ট করল দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গে সোনামের বাবা অনিল কাপুরের একটি পুরনো ছবি৷ যার পালটা দিলেন অভিনেত্রীও৷ সমালোচকদের একহাত নিলেন তিনি৷

[ আরও পড়ুন: ‘ওঁরা যৌন হেনস্তার শিকার’, পার্শ্বশিক্ষিকাদের পাশে থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ অপর্ণার ]

ঘটনার সূত্রপাত বিবিসিকে দেওয়া সোনমের একটা সাক্ষাৎকারকে কেন্দ্র করে৷ যেখানে কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারার বিলুপ্তি নিয়ে নিজের মনের কথা প্রকাশ করেন সোনম৷ এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে, কোনও বিতর্কে যেতে চাননি তিনি৷ সাফ বলেন, ‘‘৩৭০ ধারা সম্পর্কে প্রচুর জ্ঞান নেই আমার৷ বিষয়টি খুবই স্পর্শকাতর৷ এই সম্পর্কে বিভিন্ন জায়গায় ভিন্ন ভিন্ন সংবাদ পড়েছি৷ আমি একজন দেশভক্ত৷ তাই বিতর্কে না গিয়ে চুপ থাকাই ভাল৷’’ এখানেই শেষ নয়, রাজনৈতিক কারণে কাশ্মীরে মতো ভূস্বর্গকে যেভাবে দিনের পর দিন ভুগতে হচ্ছে, তা দুঃখজনক বলেও দাবি করেন অভিনেত্রী৷ এরপরই নিজেকে অর্ধেক পেশোয়ার ও অর্ধেক সিন্ধি বলে দাবি করেন সোনম৷ আর অভিনেত্রীর এই সমস্ত মন্তব্যকে ঘিরেই আক্রমণ করল নেটিজেনদের একাংশ৷ কেবল সোনম নয়, নিশানা করা হল তাঁর বাবা অনিল কাপুরকেও৷ ভারতের মোস্ট ওয়ান্টেড ডন দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গে অনিল কাপুরের ছবি পোস্ট করে, আক্রমণ করল অনেকে৷

[ আরও পড়ুন: রহিম সাহেবের ভূমিকায় ‘ময়দান’-এ নামছেন অজয়, পোস্টার প্রকাশ অভিনেতার ]

তবে চুপ থাকেনি সোনম কাপুরও৷ স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতেই সমালোচকদের একহাত নিলেন স্পষ্টবক্তা এই অভিনেত্রী৷ বিভ্রান্তি না ছড়িয়ে, সমালোচকদের নিজের কাজ করার পরামর্শ দিলেন তিনি৷ প্রসঙ্গত, কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপের পর মুখ খুলেছেন একাধিক বলি সেলেব৷ এই ইস্যুতে একদিকে যেমন সরকারের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন অনুপম খের, কঙ্গনা রানাউত, রবিনা ট্যান্ডন, বিবেক অগ্নিহোত্রীর মতো অভিনেতা ও পরিচালকরা৷ তেমনই সরকারের সমালোচনা করেছেন অনুরাগ কাশ্যপ-সহ একাধিক ব্যক্তিত্বও৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং