৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: “জীবে প্রেম করে যেই জন, সেই জন সেবিছে ঈশ্বর” স্বামী বিবেকানন্দের এই বাণী আদতে সমাজের কত জন আমরা ঠিক মানি? মানেন বইকী! তবে সেই সংখ্যাটাও খুবই কম। অন্তত সচেতনতা গড়ে তোলার জন্য পশুপ্রেমীর সংখ্যা নেহাতই কম। তবে স্বামী বিবেকানন্দের সেই বাণী মনে-প্রাণে বিশ্বাস করেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। আর সেই জন্যই নিজের প্রতিবেশীদের কাছে কটাক্ষের শিকার হতে হল শ্রীলেখাকে।

মাস খানেক আগেই বেহালার নতুন ফ্ল্যাটে সংসার সাজিয়েছেন টলিউড অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র এবং তাঁর মেয়ে। নিঃসন্দেহে খুশির খবর। তবে বাদ সাধল শ্রীলেখার ‘জীবে প্রেম’। কমপ্লেক্সের বাসিন্দাদের কাছে চক্ষুশূল হয়ে উঠলেন অভিনেত্রী। তাঁর অপরাধ? ভালবেসে আশ্রয় দিয়েছিলেন দুটি রাস্তার কুকুর ছানা। ব্যস, সেই থেকেই বাঁধল হুলুস্থূল। কীভাবে? গোড়া থেকে বলা যাক তাহলে। শ্রীলেখা এবং তাঁর মেয়ে ভীষণ কুকুর পছন্দ করেন। কিছুদিন আগেই রাস্তার কুকুরছানাকে ঘরে তুলে নিয়ে আসেন তাঁর মেয়ে। আসলে ঠিক করে চোখ না ফোটায় গাড়ি চাপা পড়ে প্রায় মারাই গিয়েছিল দু’টি কুকুরছানা। অবহেলায় অসহায় অবস্থায় রাস্তায় পড়েছিল ওই মা কুকুর এবং তার দুই সদ্যোজাত। দেখে মায়ায় পড়ে যান অভিনেত্রীর মেয়ে। আর তা দেখেই কোনও কিছু না ভেবে রাস্তার ওই কুকুরছানা এবং তাদের মা’কে সোজা বাড়িতে নিয়ে চলে আসেন। কাউকে কিছু না বলেই শ্রীলেখা নিজের বিলাসবহুল কমপ্লেক্সের ভিতর আশ্রয় দেন তাদের। তাদের নাওয়া, খাওয়া-দাওয়ার দায়িত্ব তুলে নেন নিজের কাঁধেই। আর এতেই ঘটেই বিপত্তি!

[আরও পড়ুন: জানুয়ারিতে শুরু শুটিং, ধ্রুবর পরবর্তী ছবির জন্য কোমর বেঁধে ময়দানে নামছেন দেব ]

কমপ্লেক্সের অন্যান্য আবাসিকরা বেজায় চটে যান টলিউড অভিনেত্রীর উপর। তথাকথিত শিক্ষিত এবং আধুনিক মনস্ক মানুষেরা অসহায় পশুদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য কটাক্ষ করা শুরু করেন শ্রীলেখা এবং তাঁর মেয়েকে। আর এই ঘটনাই সোশ্যাল মিডিয়ায় তুলে ধরে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী। শ্রীলেখা প্রশ্ন তুলেছেন, “কোথায় সেই পশুপ্রেমীরা? এখন তাঁরা চুপ করে রয়েছেন কেন? মানুষের মধ্যে কি সত্যিই মনুষ্যত্ব বেঁচে নেই!”

[আরও পড়ুন: আইনি গেরোয় ‘টেকো’, ছবি মুক্তির স্থগিতাদেশ দিল আদালত ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং